• শনিবার, ১৭ এপ্রিল ২০২১, ৪ বৈশাখ ১৪২৮

সারা দেশ

মধ্যযুগীয় কায়দায় যুবককে নির্যাতন, ইউপি চেয়ারম্যান কারাগারে

  • কালুখালী (রাজবাড়ী) প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত ২৫ জানুয়ারি ২০২১

রাজবাড়ীর কালুখালীতে গ্রাম্য সালিশের সাজা হিসেবে এক যুবককে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতনের অভিযোগে ইউপি চেয়ারম্যান সহ দুইজনকে গ্রেপ্তার করেছে কালুখালী থানা পুলিশ।

আটককৃত ইউপি চেয়ারম্যান কালুখালী উপজেলার ০৭ নং সাওরাইল ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ শহিদুল ইসলাম আলী ও একই ইউনিয়নের বড়বিলা গ্রামের শুটকি মন্ডল এর পুত্র রায়াহন।

কালুখালী থানা পুলিশ সুত্রে জানাযায়, গত রবিবার (২৫ জানুয়ারী) বিকেলে সাওরাইল ইউপির চর পাতুরিয়া উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে একটি গ্রাম্য সালিশের আয়োজন করা হয়। সালিশে চর পাতুরিয়া গ্রামের ইমান আলী শেখ এর পুত্র মোঃ রাশেদুল শেখ কে দোষী সাব্যস্ত করে ১০০ জুতার আঘাত ও জরিমানা করা হয়। এতেও চেয়ারম্যানের মনের তুষ্টি না মেটায় আরও শাস্তি হিসেবে মধ্যযুগীয় কায়দায় তার পুরুষাঙ্গে রশি দিয়ে ইট বেঁধে তাকে স্কুল মাঠে পদক্ষিণ করায় এবং তার শরিরের বিভিন্ন স্থানে মারপিট করে। এর ফলে রাশেদের পুরুষাঙ্গে রক্তপাত হতে থাকে। এসময় চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম আলী স্থানীয় গ্রাম্য ডাক্তার প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়ার ব্যবস্থা করেন এবং এ ঘটনা পুলিশ কে না জানানোর জন্য চাপ প্রয়োগ করতে থাকেন। পরে রাশেদুলকে তার নিজ বাড়ীতে চেয়ারম্যানের লোকজন দিয়ে অবরুদ্ধ করে রাখেন এবং তাকে উন্নত চিকিৎসা থেকে বঞ্চিত করেন।

রাতে জাতীয় জরুরী সেবা ৯৯৯ এর মাধ্যমে সংবাদ পেয়ে কালুখালী থানা অফিসার ইনচার্জ সঙ্গীয় ফোর্স সহ ঘটনাস্থলে গিয়ে মানবিকতার পরিচয় দিয়ে রাশেদুল কে উন্নত চিকিৎসার জন্য পাংশা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।

এ বিষয়ে রাশেদুল এর পিতা ইমান আলী বাদী হয়ে কালুখালী থানায় এজাহার দিলে পুলিশ সাওরাইল ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ শহিদুল ইসলাম আলী ও তার সহযোগী একজন কে গ্রেপ্তার করে থানায় নিয়ে আসেন।

সাওরাইল ইউনিয়নের একাধিক ব্যক্তির সাথে যোগাযোগ করা হলে তারা বলেন, এমন ঘটনা চেয়ারম্যানের নতুন নয়। তার বিরুদ্ধে এরকম একাধীক ঘটনা রয়েছে। প্রভাবশালী হিসেবে এলাকার কেউ তার বিরুদ্ধে মুখ খোলেনি।

এ ব্যপারে কালুখালী থানা অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ মাসুদুর রহমান বলেন, এটি একটি অমানবিক ঘটনা। মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতনের অভিযোগে ইউপি চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম আলী ও রায়হান কে গ্রেপ্তার করে পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads