• শনিবার, ১৭ এপ্রিল ২০২১, ৪ বৈশাখ ১৪২৮
 ১৫ বারের মতো ভেঙে পড়লো সেতু

ছবি: বাংলাদেশের খবর

সারা দেশ

কাওরাইদ জৈনা আঞ্চলিক সড়কে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন

১৫ বারের মতো ভেঙে পড়লো সেতু

  • শ্রীপুর (গাজীপুর) প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২১

গাজীপুরের শ্রীপুরের কাওরাইদ জৈনা আঞ্চলিক সড়কের  গুরুত্বপূর্ণ একটি একটি সেতু ১৫ বারের মতো ভেঙে পড়েছে। এলাকাবাসীর অভিযোগ, এর আগেও বহুবার এমনি করে সেতুটি ভেঙে পড়লে সাময়িকভাবে মেরামত করা হয়। তবে দীর্ঘমেয়াদী কোনো পদক্ষেপ নেয়নি সংশ্লিষ্টরা।  এ নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেন তারা।

আজ মঙ্গলবার দুপুরে কাওরাইদ ইউনিয়নের চৌধুরী ঘাট এলাকার মাটিকাটা নদীর ওপর সেই সেতুটি পুর্বপাশের অংশ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়লে এ সড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে পড়ে। 

এলাকাবাসীরা জানিয়েছে, বহুদিন ধরেই এ বেইলি ব্রিজটি চরম ঝুঁকিপূর্ণ  রয়েছে। এর আগেও অন্তত ১২ থেকে ১৪ বার ব্রিজটির কোনো না কোনো অংশ ভেঙে পড়ে। পরে সাময়িক মেরামতের মধ্যমেই কাজ শেষ করে দেয়।

তারা আরো জানান, কাওরাইসহ আশপাশের অন্তত ২০টি গ্রামের মানুষের চলাচল এ সড়কে। প্বার্শবর্তী গফরগাঁও ও পাগলা এলাকার ১০ থেকে ১৫টি অঞ্চলের মানুষ  এ পথে চলাচল করে। আশপাশে পোল্ট্রি ও ডেইরি খামারের উন্নতির কারণে এ সড়কের ব্যস্ততাও অনেক বেশি। দ্রুত এ সমস্যার সমাধান চান স্থানীয়রা।

পোল্ট্রি খামারি মেহেদি হাসান, বলেন আশপাশের কয়েকটি গ্রামে কয়েক লাখ লেয়ার ও ব্রয়লার মুরগির খামার গড়ে উঠেছে। পাশাপাশি বেশ কিছু গরুর খামারও গড়ে উঠেছে। সে সব খামাকে কেন্দ্র করে ফিড ও ওষুধের ব্যবসা রয়েছে।  আর সড়কেই সব যোগাযোগ রক্ষা করতে হয়। খাদ্য ও ওষুধের গাড়ি চলাচলের একমাত্র  সড়ক এটি। এ সড়ক ছাড়া এ অঞ্চলের সড়ক পথে যোগাযোগ রক্ষা করতে হলে অন্তত ২০ কিমি পথ ঘুরে আসতে হয় যা চরম ভোগান্তির কারণ।

স্থানীয় মানবাধিকার ও সমাজ কর্মী রাহাত আকন্দ বলেন,  মাটিকাটা নদীর ওপর দিয়ে যাওয়া এ বেইলি ব্রিজটি চরম ঝুঁকিপূর্ণ বহুদিন ধরেই। এ ব্রিজটি  স্থায়ী মেরামতের দাবিতে আমরা স্থানীয়রা বহুবার রাস্তায় নেমেছি, দাবি জানিয়েছি। পরে আবার ভেঙে গেলেই নামকাওয়াস্তে মেরামত করে কর্তৃপক্ষ। ব্রিজটিও বেশ সরু। দুটি অটো বা সিএনজি এক সঙ্গে পারাপার হতে পারে না। তিনি দাবি করে বলেন দ্রুত বেইলি ব্রিজের পরিবর্তে একটি প্রসস্ত সেতু করা হোক।  

শ্রীপুর উপজেলা প্রকৌশলী (এলজিইডি) মো. রকিবুল আহসান বলেন আমরা খবর পেয়েছি। পরে ঘটনাস্থলে একজন দায়িত্বশীল কর্মকর্তাকে পাঠানো হয়েছে। যত দ্রুত সম্বব যান চলাচলে সচল করা হবে ব্রিজটি। আর স্থায়ী কোনো সমাধানের ব্যাপারেও আমরা চেষ্টা করবো যত দ্রুত সম্বব।

 

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads