• রবিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২১ কার্তিক ১৪২৪
ads

ক্রিকেট

মাসে দশ লাখ করে চান হাসিন

  • ডেস্ক রিপোর্ট
  • প্রকাশিত ১১ এপ্রিল ২০১৮

ভারতীয় পেসার মোহাম্মদ শামির গাড়ি দুর্ঘটনার খবর পেয়ে মেয়ে আইরা-কে নিয়ে নয়াদিল্লি ছুটে গিয়েছিলেন তার স্ত্রী হাসিন জাহান। কিন্তু তাতেও দূরত্ব কমেনি স্বামী-স্ত্রীর। দিল্লি থেকে কলকাতায় ফিরে তাই শামি ও তাঁর পরিবারের বিরুদ্ধে পারিবারিক নির্যাতনের অভিযোগ এনে আদালতে মামলা দায়ের করলেন স্ত্রী হাসিন জাহান। মঙ্গলবার হাসিনের অভিযোগ শোনার পরে আদালত আগামী পনেরো দিনের মধ্যে শামিকে হাজির হয়ে কারণ দর্শানোর জন্য নির্দেশ দিয়েছে।

হাসিন বলছেন, ‘শামির গাড়ি দুর্ঘটনার পরে মানবিকতার কারণেই ওর পাশে থাকতে মেয়েকে নিয়ে নয়াদিল্লি ছুটে গিয়েছিলাম। কিন্তু সেখানে শামি আমার সঙ্গে ভাল ব্যবহার করেনি। আমাকে এড়িয়ে গিয়েছিল। কথা বলতে গেলে, জানিয়ে দেয়, আদালতে কথা হবে। এরপরে আইনের দ্বারস্থ হওয়া ছাড়া আমার সামনে আর রাস্তা ছিল না।’

মঙ্গলবার সকালে আইনজীবী জাকির হুসেনকে নিয়ে আলিপুর পুলিশ আদালতে অতিরিক্ত মুখ্য বিচারবিভাগীয় ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে গিয়ে শামির বিরুদ্ধে পারিবারিক নির্যাতনের ১২  ও ১৩ ধারায় মামলা (কেস নং-৪৫৩/২০১৮) দায়ের করেন হাসিন। সেই মামলা স্থানান্তরিত হয় তৃতীয় বিচারবিভাগীয় ম্যাজিস্ট্রেট নেহা শর্মার এজলাসে। দুপুর দু’টো নাগাদ শুনানির সময় দেন তিনি।

মার্চ মাসে আলিপুর পুলিশ আদালতে এই তৃতীয় বিচারবিভাগীয় ম্যাজিস্ট্রেটের কাছেই গোপনে জবানবন্দি দেন হাসিন। এবার সেখানেই শামি ও তার দাদা, বৌদি ও মায়ের বিরুদ্ধে মামলা শুরু করলেন তিনি। হাসিন জাহানের আইনজীবী জানিয়েছেন, ‘তৃতীয় বিচারবিভাগীয় ম্যাজিস্ট্রেট আমাদের অভিযোগ শোনার পরে, কেন শামির বিরুদ্ধে একতরফা ব্যবস্থা নেওয়া হবে না, তার কারণ জানতে চেয়ে ওকে আগামী পনেরো দিনের মধ্যে আদালতে হাজির হতে বলেছেন। একই সঙ্গে সংসার চালানো ও সন্তানের দেখ ভাল করার জন্য প্রতি মাসে দশ লক্ষ টাকা দেওয়ারও আবেদন জানিয়েছি আমরা।’

যার বিরুদ্ধে এই মামলা সেই মোহাম্মদ শামি মঙ্গলবারও কোনো ফোন ধরেননি বা এসএমএস-এর উত্তর দেননি। ফলে তার প্রতিক্রিয়া জানা যায়নি। এই মুহূর্তে আইপিএল-এ দিল্লি ডেয়ারডেভিলস-এর হয়ে খেলায় ব্যস্ত রয়েছেন তিনি। বুধবারই তার দলের ম্যাচ রয়েছে রাজস্থান রয়্যালসের বিরুদ্ধে।

এর আগে প্রচারমাধ্যমের সামনে একটি রেকর্ড করা ‘ফোন-কল’ শুনিয়েছিলেন হাসিন। যার পরিপ্রেক্ষিতে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের দুর্নীতি দমন শাখা তদন্ত করে জানিয়ে দেয়, কোনো ক্রিকেট দুর্নীতিতে জড়িত নয় শামি। ফলে মাঠে নেমে পড়তে সমস্যা হয়নি ভারতীয় ক্রিকেটের ‘সুইং সুলতান’ মোহাম্মদ শামির। 

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads