• বুধবার, ১২ ডিসেম্বর ২০১৮, ২৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৫
ads
সাফল্য এশিয়া কাপে কাজে দেবে : সাকিব

টি-টোয়েন্টি দলনায়ক সাকিব আল হাসান

সংরক্ষিত ছবি

ক্রিকেট

সাফল্য এশিয়া কাপে কাজে দেবে : সাকিব

  • স্পোর্টস রিপোর্টার
  • প্রকাশিত ১০ আগস্ট ২০১৮

যারা বিদেশের মাটিতে ভালো পারফরম্যান্স করার শর্ত দিয়েছিলেন, তাদের জবাব দিয়ে দিলেন ক্রিকেটাররা। ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও যুক্তরাষ্ট্র সফরে টেস্টে হোয়াইটওয়াশ হওয়ার পর সীমিত ওভারের ক্রিকেটে দাপট দেখিয়ে সিরিজ জিতেছে বাংলাদেশ দল। আর এই অর্জন কাজে লাগিয়ে এশিয়া কাপেও দলের ধারাবাহিকতা দেখতে চান টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি দলনায়ক সাকিব আল হাসান।

তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ ২-১ ব্যবধানে জিতে নেয় বাংলাদেশ। ৯ বছর পর বিদেশের মাটিতে এক দিনের কোনো সিরিজে ট্রফির স্বাদ পায় তারা। তারপর টি-টোয়েন্টিতেও দাপট দেখিয়ে একই ব্যবধানে জিতে নিয়েছে সিরিজ। এই সাফল্যের পর বাংলাদেশের পরের মিশন এশিয়া কাপ। ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হতে যাওয়া এই মহাদেশীয় শ্রেষ্ঠত্বের লড়াইয়ের আগে আত্মবিশ্বাসী সাকিবরা।

দুটি ট্রফি জয়ের আত্মবিশ্বাস কাজে লাগাতে চান অধিনায়ক সাকিব, ‘এই মুহূর্তে সবার আত্মবিশ্বাস অনেক উঁচুতে। বিশেষ করে এ রকম একটা ভালো সিরিজের পর আমি বিশ্বাস করি এখান থেকে হয়তো নতুন কিছু করার আছে। এটা এশিয়া কাপে দারুণ কাজে দেবে।’

টি-টোয়েন্টিতে ব্যাটে-বলে দারুণ ঝলক দেখিয়েছেন সাকিব। বিশেষ করে বিশ ওভারের ক্রিকেটে সিরিজ জিততে সাকিবের অবদান অনেকটাই। যার কারণে পেয়েছেন ম্যাচসেরার পুরস্কার। বিমানবন্দরে নেমেই তৃপ্তির ঢেঁকুর তুললেন বিশ্বসেরা এই অলরাউন্ডার, ‘সব মিলিয়ে বলতে গেলে এই সফরটা সফল হয়েছে। তিনটা ট্রফির মধ্যে দুইটা জিতেছি। সাধারণত দেশের বাইরে এ রকম রেজাল্ট আমরা করি না। আমি খুবই খুশি।’

টি-টোয়েন্টিতে ব্যাটে-বলে দারুণ পারফরম্যান্স করেছেন সাকিব। হয়েছেন সিরিজসেরা। আরো অবদান রাখতে পারলে খুশি হতেন, কিন্তু আক্ষেপ নেই মনে- ‘নিজের পারফরম্যান্স নিয়ে অবশ্যই খুশি। আরো অবদান রাখতে পারলে ভালো হতো। সব মিলিয়ে যে ধরনের পারফরম্যান্স হয়েছে, সেটা নিয়ে সন্তুষ্ট।’

বুধবার রাতে ‘এ’ দলের আয়ারল্যান্ড সফরে মুমিনুল হকের ব্যাটে এসেছে ১৮২ রান। সীমিত ওভারের ক্রিকেটে তার ফেরার সম্ভাবনা উড়িয়ে দিচ্ছেন না সাকিব, ‘জাতীয় দলের জন্য বিবেচনা করেই আসলে ‘এ’ দল গঠন করা হয়। কাজেই ওখানে যারা ভালো করবে তাদের জাতীয় দলে ফেরার সুযোগ থাকবে।’

অস্ত্রোপচার : এদিকে গত জানুয়ারিতে ত্রিদেশীয় ওয়ানডে সিরিজের ফাইনালে পাওয়া চোট পুরোপুরি সেরে ওঠেনি সাকিবের। তারপরও ব্যাটে-বলে পুরোদমে পারফরম্যান্স করে চলেছেন সাকিব। ব্যথানাশক ইনজেকশন নিয়ে খেলে যাচ্ছেন তিনি। কারণ আঙুলের এই চোট সারাতে হলে যেতে হবে অস্ত্রোপচারের টেবিলে, যেটা তাকে প্রায় দেড় মাসের জন্য ছিটকে দেবে মাঠের বাইরে। এই আশঙ্কা নিয়েও এশিয়া কাপের আগে অস্ত্রোপচার করানোর ইঙ্গিত দিলেন বাংলাদেশের টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads