• রবিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২১ কার্তিক ১৪২৪
ads
‘আমার জন্য বড় চ্যালেঞ্জ’

অনুশীলনে মিরাজ

সংরক্ষিত ছবি

ক্রিকেট

‘আমার জন্য বড় চ্যালেঞ্জ’

  • স্পোর্টস রিপোর্টার
  • প্রকাশিত ২৯ আগস্ট ২০১৮

দুয়ারে এশিয়া কাপ। শুরু হয়েছে টাইগারদের প্রস্তুতি ক্যাম্প। সংযুক্ত আরব আমিরাতে আগামী ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হবে ব্যাট-বলে এশিয়ার শ্রেষ্ঠত্বের লড়াই। যেখানে সমীহ জাগানো দল হিসেবে অংশ নেবে মাশরাফি ব্রিগেডও। প্রথমবারের মতো এশিয়া কাপ খেলতে উন্মুখ হয়ে আছেন দলের তারকা অলরাউন্ডার মেহেদী হাসান মিরাজ। স্কোয়াডে জায়গা পেলে সেরাটা দেওয়ার প্রত্যয় তার। এশিয়া কাপকে চ্যালেঞ্জ হিসেবেও নিচ্ছেন তরুণ এই ক্রিকেটার।

গতকাল ফিল্ডিং সেশন শেষে সংবাদমাধ্যমের সামনে মিরাজ জানালেন এশিয়া কাপ ঘিরে তার লক্ষ্যের কথা। তিনি বলেন, ‘দলের প্রয়োজনে যখন যেটা করতে হবে সেটা করাই আমার লক্ষ্য। পাওয়ার প্লেতে বোলিং করতে হলে কীভাবে ব্যাটসম্যানকে রান করা থেকে থামিয়ে রাখব, উইকেট আদায় করতে পারব; মিডল ওভারে কীভাবে বল করব, এভাবে পরিকল্পনা করেই বল করি। এছাড়া ব্যক্তিগত কোনো লক্ষ্য নেই। এটা করব বা সেটা করব, এমন কোনো চিন্তা নেই। বাড়তি কোনো চাপও নিতে চাই না। দলের চাহিদা অনুযায়ী পারফর্ম করে যেতে চাই।’

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে মিরাজের পথচলা ২০১৬ সালে ঘরের মাঠে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজ দিয়ে। তবে এখনো খেলা হয়নি এশিয়া কাপ। তাই আসন্ন এই টুর্নামেন্ট ঘিরে স্বপ্নে বিভোর তিনি। আমিরাতের কন্ডিশনও সাহস জোগাচ্ছে তাকে। কারণ, এখানেই ২০১৪ সালে অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ খেলেছিলেন তিনি। তারপরও এশিয়া কাপকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিচ্ছেন মিরাজ, ‘এটা আমার জন্য বড় চ্যালেঞ্জ। জাতীয় দলের হয়ে আমি এশিয়া কাপ খেলিনি। লক্ষ্য থাকবে ভালো কিছু করার। এশিয়া কাপ যেহেতু আরব আমিরাতে, যদি সুযোগ পাই অবশ্যই শতভাগ দেওয়ার চেষ্টা করব। অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ খেলেছি ওখানে, উইকেট সম্পর্কে একটু হলেও ধারণা আছে। সব ঠিক থাকলে ভালো করার চেষ্টা করব।’

গতকাল মিরপুরে অনুশীলন সেশনে উপস্থিত ছিলেন হেড কোচ স্টিভ রোডস। এদিন এক হাতে ক্যাচ নেওয়ার প্র্যাকটিস করিয়েছেন তিনি। অনুশীলনও হচ্ছে বেশ কঠোর। এ প্রসঙ্গে মিরাজ বলেন, অনুশীলনে কঠোর পরিশ্রম করলে ম্যাচে কাজটা সহজ হয়ে যায়। এক হাতে যদি ক্যাচ নিতে পারি, তাহলে দুই হাতে ধরতে সহজ হয়ে যায়। সেটাই অনুশীলন করছিলাম আমরা। কঠিন ক্যাচ প্র্যাকটিস করলে ম্যাচে ক্যাচিং সহজ হয়ে যায়।’

অনুশীলনে জোর দেওয়া হচ্ছে ফিল্ডিংয়ে। এ প্রসঙ্গে মিরাজ বলেন, ‘ক্রিকেটে ব্যাটিং-বোলিং দুটিই গুরুত্বপূর্ণ। তবে সবচেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ ফিল্ডিং। একটি ওয়ানডে ম্যাচে ২০-৩০ রান ফিল্ডিং করে বাঁচাতে পারলেই ম্যাচের মোড় ঘুরে যায়। দিন শেষে দেখা যায় সেই রানই জয়-পরাজয় নির্ধারণে কাজে দয়। সেভাবেই আমরা অনুশীলন করছি, কঠোর পরিশ্রম করছি ম্যাচ পরিস্থিতির কথা চিন্তা করে।’

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads