• মঙ্গলবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২১ কার্তিক ১৪২৪
ads
ওয়ালশের চোখে মাশরাফি

ওয়ালশের সঙ্গে খুনশুটিতে ব্যস্ত মাশরাফি

সংগৃহীত ছবি

ক্রিকেট

ওয়ালশের চোখে মাশরাফি

  • স্পোর্টস রিপোর্টার
  • প্রকাশিত ০৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮

অদম্য লড়াকু এক সৈনিক। ভাঙবেন তবু মচকাবেন না। বার বার পড়ে গেছেন। উঠে দাঁড়িয়েছেন নতুন প্রত্যয়ে। এক হাঁটুতেই কয়েকবার অস্ত্রোপচার। তার পরও মাঠের লড়াইয়ে তিনি অনন্য। বল হাতে দাপিয়ে বেড়ান ২২ গজের কমব্যাট জোনে। তিনি মাশরাফি বিন মুর্তজা। সবার প্রিয় ম্যাশ।

নড়াইল এক্সপ্রেসের কাহিনী সবারই কমবেশি জানা। বাংলাদেশ জাতীয় দলের বোলিং কোচ কোর্টনি ওয়ালশ খুব কাছ থেকে মাশরাফিকে দেখছেন বছর দুয়েক ধরে। আর তাতেই মুগ্ধ তিনি। অভিজ্ঞতা, ভালো করার তীব্র তাড়না, তরুণদের জন্য প্রেরণার স্থল; সব মিলিয়ে ক্যারিবীয় কিংবদন্তির কাছে মাশরাফি একজন অনন্য ক্রিকেটার।

গতকাল শনিবার মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে সংবাদ মাধ্যমের মুখোমুখিতে ম্যাশ প্রসঙ্গ উঠতেই ওয়ানডে অধিনায়ককে প্রশংসায় ভাসিয়েছেন ওয়ালশ। তার মতে, ‘ম্যাশের অভিজ্ঞতা এবং ওর স্কিলসেট অন্যদের থেকে অনেক আলাদা। আরো ভালো। বরাবরই সে দারুণ এক ফাস্ট বোলার। ইনজুরি না থাকলে এখনো হয়তো সে টেস্ট ক্রিকেট খেলত। আমি এখানে আসার পর প্রথমে ওকে এটাই বলেছিলাম, ‘এখনো তো তুমি টেস্ট ক্রিকেট খেলতে পারো!’ কিন্তু ইনজুরির কারণে সব সংস্করণ খেলতে পারছে না। অনেক বছর ধরেই বাংলাদেশের জন্য যে খুবই উঁচুমানের পেস বোলার।’

তিনি আরো বলেন, ‘আমি মনে করি সে যতটা করতে পারে, তার পুরোটাই সে করতে চায়। তরুণদেরও এই ক্ষুধা থাকতে হবে। আমরা শুধু আড়াল থেকে কাজ করতে পারি। কিন্তু তরুণদের মাঠে নেমে সর্বোচ্চ পর্যায়ে পারফর্ম করতে হবে। ম্যাশ তার পারফরম্যান্সকে আত্মসম্মান হিসেবে দেখে। সেখানেই আমি মনে করি অন্যদের সঙ্গে বড় পার্থক্য। সে তার ক্ষুধাটা ফুটিয়ে তোলে, সে পারফর্ম করতে চায়, ভালো করতে চায়, লড়াই করতে চায়।’

মাশরাফির মতো পেসার দরকার বাংলাদেশের। ওয়ালশের মতে, পেস প্রতিভার অভাব নেই। তরুণদের আগ্রহও অনেক বেশি। তবে তাদের বেশি সুযোগ দিতে হবে। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘কাজ এখনো এগিয়ে চলছে। বেশ কজন তরুণ ক্রিকেটার উঠে আসছে। কিন্তু দলে না নেওয়া হলে তো বোঝা যাবে না তারা কেমন! আমার মনে হয়, এদিকটায় আমাদের আরেকটু বেশি মনোযোগ দেওয়া উচিত। আমার মনে হয়, আমরা তরুণদের সুযোগ দিতে একটু বেশিই ভয় পাই। কিন্তু আমরা যদি ওদের শুধু অপেক্ষায় রাখি এবং খেলার সুযোগ না দেই, তাহলে তো লাভ নেই। যত খেলবে ওরা, তত শিখবে। খেললেই অভিজ্ঞতা বাড়বে। ওরা প্রস্তুত নয় বলে যদি সুযোগ না দেওয়া হয়, তাহলে তো ওরা কখনোই প্রস্তুত হবে না!’

আবার সুযোগ পেলে যদি ভালো না করতে পারে, হুট করে তখন বাদ দেওয়াও ঠিক নয়। শোধরানোর সুযোগ দিতে হবে। ওয়ালশের মতে, ‘পারফরম্যান্স ভালো-খারাপ হবেই। কিন্তু একটু খারাপ করলেই সবাই বাদ দিতে উঠে-পড়ে লাগে। এসবে লাভ বেশি হবে না। কেউ খারাপ করলে শোধরানোর সুযোগ দেওয়া উচিত। যে তরুণ ক্রিকেটারদের আমি দেখেছি, ওরা যথেষ্ট আগ্রহী, শিখতে চায়, পারফর্ম করতে চায়। ওদেরকে সুযোগটা দিতে হবে।’

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads