• সোমবার, ২৭ মে ২০১৯, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫
ads

ক্রিকেট

পাঁচ তারকার শেষ বিশ্বকাপ

  • স্পোর্টস রিপোর্টার
  • প্রকাশিত ২৫ এপ্রিল ২০১৯

অল্প কিছুদিন পর শুরু হতে যাচ্ছে ওয়ানডে বিশ্বকাপ ক্রিকেট। ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিলের (আইসিসি) দ্বাদশতম আসর বসছে ইংল্যান্ড অ্যান্ড ওয়েলসে। আগামী ৩০ মে লন্ডনের ওভালে স্বাগতিক ইংল্যান্ড ও দক্ষিণ আফ্রিকার মধ্যকার ম্যাচ দিয়ে পর্দা উঠছে বিশ্বকাপের। বাংলাদেশের মাশরাফি বিন মুর্তজাসহ এশিয়া মহাদেশের পাঁচ তারকা ক্রিকেটারের এটাই হবে শেষ বিশ্বকাপ। বাকিরা হলেন- পাকিস্তানের শোয়েব মালিক ও মোহাম্মদ হাফিজ, ভারতের মহেন্দ্র সিং ধোনি এবং শ্রীলঙ্কার লাসিথ মালিঙ্গা।

মাশরাফি : বাংলাদেশ অধিনায়কের রয়েছে দীর্ঘ ও বর্ণাঢ্য ক্যারিয়ার। বার বার ইনজুরিতে পড়া সত্ত্বেও বোলিংয়ে অলরাউন্ডার অনেক রেকর্ডই নিজের করে নিয়েছেন। হয়েছেন জাতীয় সংসদের সদস্য। ‘নড়াইল এক্সপ্রেস’ এ তারকা খেলোয়াড় দেশের হয়ে সর্বোচ্চ ২০২ ওয়ানডে খেলেছেন। জাতীয় দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৭০ ম্যাচে নেতৃত্ব দেওয়া মাশরাফি ২০৫ ওয়ানডে ম্যাচে শিকার করেছেন ২৫৯ উইকেট। ৫০ ওভার ফরম্যাটে দেশের সর্বোচ্চ উইকেট শিকারিও তিনি। দলের অপরিহার্য এ তারকা ৩৬ টেস্টে শিকার করেছেন ৭৮ উইকেট। এছাড়া জাতীয় দলের হয়ে ৫৪ টি-টোয়েন্টিতে নিয়েছেন ৪২ উইকেট। লোয়ার অর্ডারে ঝড় তুলতে সক্ষম ৩৫ বছর বয়সী মাশরাফি। বিপিএলের সর্বশেষ আসরে রংপুরের হয়ে ১৪ ম্যাচে ২২ উইকেট শিকার করেন তিনি। নিজের কাছে বয়স কোনো বিষয় না হলেও ২০১৯ হতে পারে তার শেষ বিশ্বকাপ।

মোহাম্মদ হাফিজ : পাকিস্তানের সর্বকালের সেরা ব্যাটিং অলরাউন্ডারদের একজন মোহাম্মদ হাফিজ। দেশের হয়ে ৫৫ টেস্টে ৩৭ দশমিক ৬৫ গড়ে ৩৬৫২ রান করেছেন হাফিজ। ২০০৩ সালে অভিষেক হওয়ার পর ২০৮ ওয়ানডে ম্যাচে ৩২ দশমিক ৯৯ গড়ে তার মোট রান ৬৩০২। এছাড়া ৮৯টি-টোয়েন্টিতে ২৪ দশমিক ৪৬ গড়ে তার মোট রান ১৯০৮। হাফিজ অ্যাকশন ত্রুটির কারণে বর্তমানে বোলিং করতে পারছেন না। তবে নিষিদ্ধ হওয়ার আগ পর্যন্ত তিনি ওয়ানডে, টেস্ট ও টি-টোয়েন্টিতে যথাক্রমে ১৩৭, ৫৩ এবং ৫৪ উইকেট শিকার করেছেন। বল হাতে বেশ কিপ্টেও ছিলেন তিনি। ৩৮ বছর বয়সী হাফিজ আইপিএল, পিএসএল, সিপিএল ও বিপিএলে খেলেছেন।  বিশ্বকাপের পরই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর নিতে পারেন।

লাসিথ মালিঙ্গা : ৩৫ বছর বয়সী লাসিথ মালিঙ্গা তার শেষ বিশ্বকাপ খেলতে পারেন এবার। মারদাঙ্গা প্রকৃতি, ঝাঁকড়া চুল এবং বোলিং অ্যাকশনের জন্য বিশেষভাবে পরিচিত লঙ্কার এ বোলার। তবে ডান-হাতি এ মিডিয়াম ফাস্টবোলার সবচেয়ে বেশি পরিচিত তার বোলিং দক্ষতার জন্য। সিংহদের হয়ে নিজের সর্বশেষ পাঁচ ম্যাচে ১১ উইকেট শিকার করেছেন এ স্পিডস্টার। ইনজুরির কারণে টেস্ট ক্রিকেট থেকে অবসর নেওয়ার আগ ৩০ ম্যাচে শিকার করেছেন ১০১ উইকেট। ২০১৮ ওয়ানডেতে শিকার ৩২২ উইকেট। ৭৩টি টি-টোয়েন্টিতে নিয়েছেন ৯৭ উইকেট। তার নেতৃত্বে শ্রীলঙ্কা জয় করেছে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ শিরোপাও।

শোয়েব মালিক : পুরো ক্যারিয়ারে সব পজিশনেই ব্যাটিং করেছেন শোয়েব মালিক। প্রায় দুই দশকের বেশি সময় ধরে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলছেন এ ব্যাটিং অলরাউন্ডার। সর্বোচ্চ ১০৮ টি-টোয়েন্টি ম্যাচে ও সেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হওয়ার রেকর্ডও রয়েছে তার। বিশ্বকাপকে সামনে রেখে ২০১৫ সালেই টেস্ট ক্রিকেট থেকে অবসর নেন তিনি। ৩৫ টেস্টে বল হাতে ৩২ উইকেটসহ তার মোট রান ১৮৯৮। ওয়ানডেতে ২৭৮ ম্যাচে ১৫৬ উইকেটের সঙ্গে রান ৭৪৮১। ১১১ আন্তর্জাতিক টি- টোয়েন্টিতে ২২৬৩ রান ও উইকেট ২৮। নির্ভরযোগ্য এ খেলোয়াড় এ বছর বিপিএলে খেলেছেন কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের হয়ে। সামনের বিশ্বকাপের পরই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর নেবেন নিতে পারেন মালিক।

মহেন্দ্র সিং ধোনি : ক্রীড়াঙ্গন থেকে বিদায় নিলেও ভারতীয় ক্রিকেট ইতিহাসে স্বর্ণাক্ষরে লেখা থাকবে ধোনির নাম। ৩৭ বছর বয়সী ধোনি ৯০ টেস্টে ৩৮ দশমিক শূন্য ৯ গড়ে করেছেন ৪৮৭৬ রান। ৩৪১ ওয়ানডেতে ৫০ দশমিক ৭২ গড়ে তোর মোট রান ১০৫০০। এছাড়া ৯৮টি আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে ৩৭ দশমিক ৬০ গড়ে ১৬১৭ রানের মালিক ধোনি। ২০১৪ সালে টেস্ট ক্রিকেট থেকে অবসর নেন তিনি। সর্বশেষ অস্ট্রেলিয়া সফরে তিন ওয়ানডে সিরিজের সব ম্যাচেই হাফ সেঞ্চুরি হাঁকিয়ে বিশ্বকাপের আগে ফর্মে থাকার ইঙ্গিত দেন তিনি।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads