• শনিবার, ২০ জুলাই ২০১৯, ৫ শ্রাবণ ১৪২৫
ads
ফটোসেশনে নেই সাকিব

দলের অন্যতম তারকা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান

ছবি : সংগৃহীত

ক্রিকেট

ব্যাপারটি দুঃখজনক : পাপন

ফটোসেশনে নেই সাকিব

  • স্পোর্টস রিপোর্টার
  • প্রকাশিত ৩০ এপ্রিল ২০১৯

বিশ্বকাপ। যেখানে খেলতে পারা প্রত্যেক ক্রিকেটারের লালিত স্বপ্ন। মিশন শুরুর আগে দেশের মাটিতে আনুষ্ঠানিক ফটোসেশন একপ্রকার রীতিই। যেখানে অংশ নেয় স্কোয়াডে থাকা সব ক্রিকেটার। ২০১৯ ইংল্যান্ড বিশ্বকাপ উপলক্ষে গতকাল সেই আনুষ্ঠানিক ফটোসেশন হলো বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের। নতুন জার্সিতে পোজ দিলেন মাশরাফিরা। তবে একটা অপূর্ণতা থেকেই গেল। দলের অন্যতম তারকা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানই নেই এই গ্রুপ ছবিতে। 

কেন নেই সাকিব? গতকাল মিরপুরে এ নিয়ে জোর গুঞ্জন। তবে বিসিবি সভাপতি বিষয়টি নিয়ে বেশ ক্ষুব্ধ। সব মিলিয়ে ব্যাপারটিকে তিনি অভিধা দিয়েছেন দুঃখজনক হিসাবে।

আইপিএল পর্ব শেষ করে গত রোববার রাতে দেশে ফিরেছেন সাকিব। গতকাল মিরপুর স্টেডিয়ামে হাজিরও হয়েছিলেন তিনি। কিন্তু ফটোসেশনের সময় তাকে খুঁজে পাওয়া গেল না। বিশ্বকাপের ফটোসেশনে ছিলেন স্কোয়াডের বাকি ১৪ সদস্য। এছাড়া ফটোসেশনে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনসহ বিসিবি পরিচালক ও কোচিং স্টাফরা অংশ নেন। কিন্তু বিশ্বকাপের মতো আসরের অফিসিয়াল ফটোসেশনে সাকিব থাকবেন না কেন? এ নিয়ে বিসিবির কয়েকজন দায়িত্বশীল কর্মকর্তার সঙ্গে কথা বললেও তারা বিশেষ কিছু জানাতে পারেননি।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন কর্মকর্তা বলেছেন, ‘হয়তো সাকিবের বিশেষ কোনো কাজ পড়ে গেছে। যে কারণেই তাকে ফটোসেশনে পাওয়া যায়নি। এক্সাক্টলি বলতে পারছি না।’ বিশ্বকাপের ফটোসেশনের চেয়ে এমন কী বড় কাজ থাকতে পারে সাকিবের? থাকতেই পারে, তবে সেটা জানিয়ে যাননি তিনি। উত্তরটা দিতে পারেননি এই বিসিবি কর্মকর্তাও। বরং কিছুটা বিরক্তই হয়েছেন এমন প্রশ্নে। তবে সাকিবের না থাকা যে খুব দৃষ্টিকটু দেখিয়েছে, সেটা স্বীকার করে নিয়েছেন এই কর্মকর্তা।

বিষয়টি বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের কাছেও চরম হতাশার। ফটোসেশন শেষে এ নিয়ে বিসিবি সভাপতি বলেন, ‘দুঃখজনক। আর কী বলব। যেহেতু টিম ফটোসেশন ছিল, এটা দুঃখজনক। এখানে পৌঁছে আমি ফোন করেছিলাম সাকিবকে। জিজ্ঞেস করেছিলাম, কোথায় তুমি। ও বলল, আপনার বাসায় আসব রাতে। বললাম, এখনই ব্যাক কর। ও বলল, আমি তো বের হয়ে গিয়েছি। সবাই বলল, ওকে আগেই বলা হয়েছে যে আজ ফটোসেশন আছে দলের।’

সাকিবের হেঁয়ালিপানা নতুন নয়। অতীতেও নেতিবাচক খবরের শিরোনাম হয়েছেন বার বার। পাপনের মতে, সাকিবের এই বিষয়গুলোর সঙ্গে অভ্যস্ত সবাই। পাপন বলেন, ‘আমার মনে হয় দলের অন্যরা এতদিনে অভ্যস্ত হয়ে গেছে ওর এসব ব্যাপারে। যাই হোক, এছাড়া আর কী বলব! আমি মনে করি, এটি ওর জন্যই দুর্ভাগ্য। আমাদের যে বিশ্বকাপ দল যাচ্ছে, তার সঙ্গে ও যে থাকতে পারল না- সেটি আমি মনে করি, ওরই কপাল খারাপ। আর কী বলব!’

পাপনের এমন কথার পর সাংবাদিকদের প্রশ্নটি ছিল বিসিবির নাক বরাবর। প্রশ্নটা ছিল এমন, ‘আপনি বলছেন, ওর সঙ্গে অন্যরা অভ্যস্ত হয়ে গেছে। বোর্ডও কি সাকিবের এমনসব আচরণের সঙ্গে অভ্যস্ত হবে? জবাবে নড়েচড়ে বসলেন পাপন। ঘুরে দাঁড়ালেন এক ঝটকায়, ‘প্রশ্নই ওঠে না। প্রশ্নই ওঠে না। যেহেতু পরশু দিনই দল চলে যাচ্ছে, এটি নিয়ে তাই বেশি কথা বলছি না আমরা। কিন্তু আমি অবশ্যই মনে করি, এটি একটি দুঃখজনক ব্যাপার।’

আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজ খেলতে আগামীকাল বুধবার দেশ ছাড়বে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। এই সিরিজ খেলে ওখান থেকেই বিশ্বকাপ মিশনে ইংল্যান্ড যাবে মাশরাফি বাহিনী।

 

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads