• শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২১ কার্তিক ১৪২৪
ads
তবু তৃপ্ত নন মোস্তাফিজ

ছবি : সংগৃহীত

ক্রিকেট

তবু তৃপ্ত নন মোস্তাফিজ

  • স্পোর্টস রিপোর্টার
  • প্রকাশিত ০৭ জুলাই ২০১৯

বিশ্বকাপে বল হাতে একমাত্র তিনিই আলো ছড়িয়েছেন। ৮ ম্যাচে নিয়েছেন ২০ উইকেট। যা এখন পর্যন্ত দ্বিতীয় সর্বোচ্চ। আবার টানা দুই ম্যাচে নিয়েছেন পাঁচটি করে উইকেট। নাম লিখিয়েছেন লর্ডসের অনার্স বোর্ডে। তবে এত সাফল্যের পরও তৃপ্ত নন মোস্তাফিজুর রহমান।

বাংলাদেশ সেমিফাইনালে উঠতে না পারায় অতৃপ্তি আছে মোস্তাফিজের। বোলিংয়ে ইকোনমি রেট (৬.৭০) বেশি হওয়াতে আছে কিছুটা হতাশাও, ‘সবাই বলছে প্রমাণ করতে পেরেছি, কিন্তু আমি খুশি না। রানটা যদি কম দিতাম, তাহলে ভালো হতো। ভেরিয়েশন আরেকটু ভালো হতে পারত। কাটার আছে, ইয়র্কার ফিফটি-ফিফটি পেরেছি। অ্যাকুরেসি আরেকটু ভালো হলে ডেথ ওভারে আরো ভালো করতে পারব।’

পাকিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচ শেষে লর্ডস ক্রিকেট গ্রাউন্ডের মিক্সড জোনে দাঁড়িয়ে অল্প কথায় মোস্তাফিজ যেটি বোঝাতে চাইলেন, তার মানে দাঁড়ায় ‘আরো ভালো করা যেত’। এ তরুণের বড় আক্ষেপ অবশ্য দল শেষ চারে না যেতে পারায়, ‘সেমিফাইনালে উঠলে খুশি হতাম।’

ওয়ানডেতে বাংলাদেশের প্রথম ও বিশ্বের চতুর্থ দ্রুততম হিসেবে মোস্তাফিজ ক্যারিয়ারের ১০০ উইকেট শিকার করেছেন ক্রিকেটের তীর্থভূমি লর্ডসে। পাকিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচের আগে ভারতের বিপক্ষেও নিয়েছিলেন ৫ উইকেট। বিশ্বকাপে বাংলাদেশের আর কোনো বোলারের একাধিকবার নেই ৫ উইকেটের কীর্তি। বিশ্বমঞ্চে এসে এত অর্জনও খুশি করতে পারছে না মোস্তাফিজকে। অবশ্য সেটি দলের দিকে তাকিয়েই।

সেঞ্চুরি কিংবা ৫ উইকেট পেলে লর্ডস ক্রিকেট গ্রাউন্ডের ড্রেসিংরুমে লিখে রাখা হয় খেলোয়াড়ের নাম। কীর্তির ব্যাপারটি সঙ্গে সঙ্গেই লিখে ফেলা হবে ব্যাপারটি অবশ্য এমন নয়। ক্রিকেট তীর্থে প্রথম খেলতে নেমেই পাকিস্তানের বিপক্ষে ৫ উইকেট শিকার করা মোস্তাফিজ যখন স্টেডিয়াম ছাড়েন, তখনো লেখা হয়নি তার অর্জনের কথা। সে জন্য অবশ্য অপেক্ষায় নেই মোস্তাফিজ। লর্ডস থেকে বের হওয়ার আগে টাইগার পেসার বলেন, ‘পরেরবার যদি আবার আসি, তখন দেখব।’

অনার্স বোর্ডে নিজের নাম এই সফরে দেখার সুযোগ না পেলেও অনলাইনে যে আপডেটটা করা হয়েছে, সেটি দেখেই আপাতত স্বস্তি পেতে হবে মোস্তাফিজকে। শুক্রবারের ম্যাচে পাকিস্তানের দুই ক্রিকেটার ইমাম-উল হক (১০০) ও শাহিন শাহ আফ্রিদির (৬/৩৫) নামও উঠেছে অনার্স বোর্ডে।

লর্ডসের অনার্স বোর্ডে আগে শুধু টেস্ট ম্যাচে পারফর্মারদের নাম লেখা হতো। এখন ওয়ানডেও বিবেচনায় আসে। টেস্টে সেঞ্চুরি করে অনার্স বোর্ডে নাম লিখিয়েছিলেন তামিম ইকবাল। আর ৫ উইকেট নিয়ে শাহাদাত হোসেন রাজিব। তাদের কাতারে যুক্ত হলেন তৃতীয় বাংলাদেশি হিসেবে মোস্তাফিজ।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads