• সোমবার, ১৪ অক্টোবর ২০১৯, ২৯ আশ্বিন ১৪২৬
ads
তামিমের চ্যালেঞ্জিং সিরিজ

সংগৃহীত ছবি

ক্রিকেট

তামিমের চ্যালেঞ্জিং সিরিজ

  • ক্রীড়া প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত ২১ জুলাই ২০১৯

সাম্প্রতিক পারফরম্যান্স খুব একটা আহামরি নয়। তবে ঘরের মাঠ বলেই শ্রীলঙ্কা আত্মবিশ্বাসী। বাংলাদেশের বিরুদ্ধে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ জিততে মরিয়া লঙ্কান শিবির। ছেড়ে কথা বলবে না বাংলাদেশও। তবে দলের যে হালহকিকত তাতে শঙ্কা থেকেই যাচ্ছে। বাংলাদেশ শিবিরে চোটের হানা। এই সিরিজে থাকছেন না নিয়মিত কিছু খেলোয়াড়।

হঠাৎ করে মাশরাফি চোটে পড়ায় থাকছেন না টাইগার দলপতি। সে কারণে লঙ্কান সিরিজে নেতৃত্বভার পড়েছে তামিম ইকবালের কাঁধে। পিঠের ব্যথায় ছিটকে গেছেন অলরাউন্ডার সাইফউদ্দিনও। চোট কাটিয়ে পুরোপুরি ফিট নন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদও। আবার ছুটিতে থাকায় স্কোয়াডে নেই বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান ও ওপেনার লিটন দাস।

লঙ্কানদের বিরুদ্ধে তাই ওয়ানডে সিরিজ বেশ চ্যালেঞ্জিং। যা মানছেন ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক তামিম ইকবাল। গতকাল দেশ ছাড়ার আগে হযরত শাহজালাল বিমানবন্দরে তা জানিয়ে গেছেন মারকুটে ওপেনার। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সবশেষ তিন দেখায় বাংলাদেশ তিনটিতেই জিতলেও এবার সিরিজটা যে কঠিন হতে যাচ্ছে। তামিম বলেন, ‘এই সিরিজটা আমাদের জন্য খুব গুরুত্বপূর্ণ। এই দলটার প্রমাণ করার অনেক কিছু আছে। চোটে পড়ায় আমাদের গুরুত্বপূর্ণ কয়েকজন ক্রিকেটার এই সিরিজে যাচ্ছে না। সিরিজটা আমাদের জন্য অনেক চ্যালেঞ্জিং হবে। শ্রীলঙ্কার হোম কন্ডিশনে সিরিজটা কঠিন হতে যাচ্ছে। তবে আগের সিরিজগুলোয় দেখেছি, আমরা ভালো করেছি ওদের সঙ্গে। আশা করি, এবারও চ্যালেঞ্জ উতরে যাব।’

মাশরাফি-সাইফউদ্দিন নেই। সাকিব আল হাসান-লিটন দাস আছেন ছুটিতে। লঙ্কানদের বিপক্ষে ভালো করতে হলে কঠিন পথই পাড়ি দিতে হবে বাংলাদেশকে। তবে তামিম মনে করেন, নতুন যারা সুযোগ পেয়েছেন, তারা যদি ভালো করতে পারেন, ভালো একটা সিরিজই হবে বাংলাদেশের জন্য। চোটের সুযোগে দলে ফিরেছেন পেসার তাসকিন ও অলরাউন্ডার ফরহাদ রেজা।

প্রতিকূল পরিবেশেও তামিম খুব একটা চিন্তিত নন, বরং দারুণ কিছু উপহার দিতে উন্মুখ, ‘আমি এভাবে চিন্তা করছি না। কোথাও খারাপ করলে সেটা নিয়ে সারাক্ষণ ভাবলে খারাপই হবে। সব সময় সামনে তাকাতে হয়, ইতিবাচকভাবে ভাবতে হয়। আমিও তা-ই করছি। আমাকে ইতিবাচক থাকতে হবে।’

সিরিজ জিততে দলের সবার সম্মিলিত অবদানের দিকে তাকিয়ে প্রথমবারের মতো দেশকে কোনো সিরিজে নেতৃত্ব দিতে যাওয়া তামিম। তিনি বলেন, ‘স্কোয়াডে যারা আছে তারা যদি দুই হাতে সুযোগটি লুফে নেয়, তাহলে সেটা বাংলাদেশ দলের পাশাপাশি তাদের জন্যও ভালো হবে। আমি যে ধরনের আশা করেছিলাম, খেলার সে ধরনের খেলা বিশ্বকাপে খেলতে পারিনি। এখন সামনে নতুন চ্যালেঞ্জ। আশা করছি ভালো কিছু হবে। দেখি কী হয়।’

বিশ্বকাপে নিজের ছায়া হয়েছিলেন তামিম। একটি ম্যাচে ফিফটি করলেও বাকিগুলোতে ম্লান। লঙ্কায় রানে ফিরতে মরিয়া তামিম, ‘আমি সামনের কথা মাথায় নিয়ে এগোচ্ছি। ইতিবাচক দিক খুঁজে নেওয়ার চেষ্টা করছি। যেটা বললাম, আমাদের জন্য সিরিজটি গুরুত্বপূর্ণ এবং আশা করছি দল হিসেবে আমরা ভালো করব।’

তামিমের নেতৃত্বে গতকাল শনিবার দুপুর পৌনে ১টায় দলের সাত ক্রিকেটার শ্রীলঙ্কার উদ্দেশে দেশ ছাড়েন। তাইজুল ইসলাম ও তাসকিন আহমেদ ভারত থেকে দলের সঙ্গে যোগ দেবেন। আফগানিস্তান ‘এ’ দলের বিপক্ষে প্রথম ওয়ানডেতে খেলা পাঁচ ক্রিকেটার সাব্বির রহমান, মোহাম্মদ মিঠুন, এনামুল হক, রুবেল হোসেন ও ফরহাদ রওনা দেবেন আগামীকাল। 

আগামী ২৩ জুলাই একটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ। ওয়ানডে সিরিজ শুরু হবে ২৬ জুলাই থেকে। সিরিজের দ্বিতীয় ও তৃতীয় ওয়ানডে ম্যাচ ২৮ ও ৩১ জুলাই। ভেন্যু কলম্বোর প্রেমাদাসা স্টেডিয়াম।

 

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads