• সোমবার, ২১ অক্টোবর ২০১৯, ৫ কার্তিক ১৪২৬
ads
ভালো শুরুর প্রত্যাশায়

সংগৃহীত ছবি

ক্রিকেট

ভালো শুরুর প্রত্যাশায়

  • ক্রীড়া প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত ২৬ জুলাই ২০১৯

বিশ্বকাপের রেশ শেষ না হতেই আবার মাঠে নামতে হচ্ছে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলকে। আজ থেকে কলম্বোর প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে ওয়ানডে সিরিজের উত্তাপ গড়াবে। তিন ম্যাচের সিরিজে লড়াইটা হবে সফরকারী বাংলাদেশের সঙ্গে স্বাগতিক শ্রীলঙ্কার। প্রথম ওয়ানডে ম্যাচ শুরু হবে বাংলাদেশ সময় বিকাল ৩টায়। সরাসরি সম্প্রচার করবে গাজী টেলিভিশন।

প্রথম ওয়ানডে ম্যাচ। তার আগে বাংলাদেশের তামিমকে নিয়েই একটু বেশি আলোচনা। কারণ প্রথমবারের মতো ওয়ানডে দলকে নেতৃত্ব দিতে চলেছেন তিনি। ইনজুরির কারণে মাশরাফি ছিটকে গেছেন লঙ্কা সফর থেকে। সহ-অধিনায়ক সাকিব আল হাসান বিশ্বকাপের পর ছুটিতে। তাই দায়িত্বটা নিতে হয়েছে তামিমকে।

শুরুটা ভালো করতে মরিয়া তামিম। পরিকল্পনা ধাপে ধাপে এগোনো। চূড়ান্ত লক্ষ্যটা আসলে লঙ্কার মাটিতে সিরিজ জয়। তবে তামিমের এখন চোখ শুধুই প্রথম ওয়ানডেতে, ‘এই মুহূর্তে লক্ষ্য হলো প্রথম সেশনটি ভালো করে শুরু করা। আমি সব সময় বলি যে, স্টার্টিং লাইনের আগে যদি ফিনিশিং লাইন দেখা শুরু করি তাহলে সেটি একটি সমস্যা। আমাদের একটি ভালো শুরু করতে হবে আগামীকাল (আজ), সেটি বোলিং কিংবা ব্যাটিং যেটাই করি না কেন।’

ভালো শুরু করার পেছনের লক্ষ্যটা যে শেষ পর্যন্ত জয়, তা নিয়ে তামিমের মনে কোনো দ্বিধা নেই। শুধু ১০০ ওভার নিয়ে মাথা ঘামাতে গিয়ে চাপ না নেওয়ার ব্যাপারটাই গুরুত্ব পাচ্ছে তার কাছে, ‘অবশ্যই আমাদের মূল লক্ষ্য থাকবে ম্যাচটি জেতার। আমরা এক ধাপ করে এগোতে চাই। আমরা অনেক দূর যেতে চাই।’

অধিনায়কত্ব পাওয়ার পর প্রথম পরীক্ষায় পাস করতে চান তামিম। তার আগে কেউ যা করেনি সেটাই করতে চান তামিম। তবে সেটা করার জন্য ধৈর্য নিয়ে এগোতে চান, আর এ কারণেই সিরিজ জয়ের লক্ষ্য পেছনে ফেলে কথা বলছেন ছোট ছোট ধাপ ধরে এগিয়ে যাওয়া নিয়ে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তামিমের লক্ষ্য কিন্তু একটাই, প্রথম অধিনায়ক হিসেবে শ্রীলঙ্কা থেকে সিরিজ জিতে ফেরা, ‘আমি নিশ্চিত যে আমাকে যদি জিজ্ঞেস করেন কিংবা ওদের অধিনায়ককেও জিজ্ঞেস করেন তাহলে সে-ও বলবে যে সিরিজটি জিততে চায়। আমিও চাই সিরিজ জিততে। আপনাকে সব ছোট ছোট বিষয় সঠিকভাবে পালন করতে হবে। আর এটি শুরু হবে ম্যাচের প্রথম বল থেকেই। সেটি আমরা বোলিং কিংবা ব্যাটিং যেটাই করি।’

তামিম সেই চ্যালেঞ্জে জিতবেন কি না, তা সময় বলে দেবে। তবে বাংলাদেশ দলটি আগের মতো না। ইনজুরির আর ছুটির কারণে দলে নেই গুরুত্বপূর্ণ কিছু খেলোয়াড়। ইনজুরি সমস্যায় নেই মাশরাফি-সাইফউদ্দিন। ছুটিতে সাকিব ও লিটন। চার প্লেয়ারকে রেখে দল নিয়ে এগিয়ে যাওয়া তামিমের জন্য কষ্টকরই। প্রস্তুতি ম্যাচে ভালো করেছে বাংলাদেশ। একইভাবে মূল লড়াই জিততে হলে কী করতে হবে সেটা নিয়ে তামিম বলেন, ‘আমি সব সময়ই বলি যে, স্টার্টিং লাইনের আগেই যদি ফিনিশিং লাইন দেখে ফেলি, তাহলে সমস্যা। বল বা ব্যাট যাই হোক না কেন, শুরুটা ভালো করা। ম্যাচ জেতার টার্গেট অবশ্যই অগ্রাধিকার পাবে। এটা আমার ক্ষেত্রেও যেমন, ওদের (শ্রীলঙ্কা) অধিনায়ককে জিজ্ঞেস করুন তার ক্ষেত্রে একই রকম।’

প্রস্তুতি ম্যাচে সাকিবের জায়গায় তিনে নেমে ৯১ রানের অসাধারণ ইনিংস খেলেন মোহাম্মদ মিঠুন। চারে নেমে হাফসেঞ্চুরি করেন মুশফিকুর রহিমও। সংবাদ সম্মেলনে উঠে আসে সেই প্রসঙ্গও। তামিম বলেন, ‘প্রস্তুতি ম্যাচে তিন-চার নম্বর পজিসনের পারফরম্যান্স দেখে ভালোই লাগছে। আমাদের নিয়মিত তিন নম্বর ব্যাটসম্যান এই সিরিজে নেই। তবে সেই সুযোগটা অন্যরা নিতে প্রস্তুত। প্রস্তুতি ম্যাচে তারা নিয়েছেনও। তিন ও চার নম্বরের ব্যাটসম্যান হাফসেঞ্চুরি তুলে এগিয়ে গেছেন, দুর্ভাগ্যজনকভাবে সেঞ্চুরি পাননি। তবে তাদের দায়িত্বপূর্ণ ব্যাটিং দেখাটা খুশির। আশা করি, কালকের (শুক্রবার) ম্যাচেও তারা বাংলাদেশের জন্য তেমন ভালো কিছু করবেন।’ বাংলাদেশের অধিনায়ক হিসেবে বিদেশের মাটিতে অভিষেক হচ্ছে তামিমের। এটা আলাদা এক অনুভূতি। বিষয়টা কীভাবে নিচ্ছেন? তামিম বলছেন, ‘বিষয়টা আমি ওইভাবে চিন্তা করি নাই। তবে আপনারা (সাংবাদিক) যখন বলছেন অধিনায়ক হিসেবে অভিষেক হচ্ছে, তখন শুনে ভালো লাগছে। তবে অধিনায়কত্বটা তখনই ভালো লাগে যখন দল ভালো খেলে এবং জিততে পারে। আমি এটা নিয়ে মোটেও উত্তেজিত নই, বরং একটা চিন্তা করছি, বোর্ড আমাকে একটা দায়িত্ব দিয়েছে সেটা যেন ভালোভাবে করতে পারি।’

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads