• শনিবার, ৪ জুলাই ২০২০, ২০ আষাঢ় ১৪২৭
ads
বিসিবির চাপেও মুশফিকের ‘না’

মুশফিকুর রহিম

ফাইল ছবি

ক্রিকেট

বিসিবির চাপেও মুশফিকের ‘না’

  • নিজস্ব প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত ০৪ মার্চ ২০২০

আমরা জানি, অনিশ্চয়তার খেলা ক্রিকেট। কখনো হারতে হারতে জয়, আবার কখনো জিততে গিয়ে হেরে যাওয়া। এই খেলায় নিজের দক্ষতা, ব্যাটিংশৈলী দিয়ে বারবার খাদের কিনারা থেকে দলকে টেনে তুলেছেন মুশফিক। দলকে করেছেন চাপমুক্ত। তবে এবার নিজের ওয়ানডে ক্যারিয়ারে শততম জয়ের মাইলফলকের সামনে থাকা মুশফিকের মাথায় জুড়ে দেওয়া হয়েছে ‘পাকিস্তানি চাপ’।

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে দ্বিতীয় ওয়ানডের আগের দিন মুশফিকুর রহিমের সঙ্গে আলোচনায় বসেছিলেন প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু ও প্রধান কোচ রাসেল ডমিঙ্গো। তবে সেখানে ছিল না তার ব্যাটিং বা দলের কৌশল নিয়ে কোনো কথা। বরং মুশফিককে পৌঁছে দেওয়া হয়েছে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের বার্তা। সূত্রমতে জানা যায়, পাকিস্তান সফরে যেতে রাজি না হলে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে দ্বিতীয় ম্যাচের একাদশ থেকে বাদ দেওয়া হবে! মুশফিক এ ব্যাপারে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি।

চাপেও অবশ্য নিজের অবস্থান থেকে মুশফিক সরে আসেননি বলে জানা গেছে। প্রধান নির্বাচককে জানিয়ে দিয়েছেন পাকিস্তানে না যাওয়ার সিদ্ধান্তে তিনি অনড়। তার মানে করাচিতে যাচ্ছেন না তিনি।

গতকাল মঙ্গলবার জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ানডেতে মুখোমুখি হয় বাংলাদেশ। এতে দলের হয়ে খেলেছেন মুশফিক। কিন্তু সমর্থকরা মনে করেন ম্যাচের আগে এমন প্রস্তাব দেওয়া উচিত হয়নি। আর বোর্ড ম্যানেজম্যান্টের এমন সিদ্ধান্ত ভাবিয়ে তুলেছে ক্রীড়ামোদীদের। তবে আসলেই কি মুশফিককে চাপে রাখতে খেলার আগে এমন সিদ্ধান্ত?

এর আগে মুশফিকের পাকিস্তান সফর নিয়ে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজার কাছেও প্রশ্ন ছিল সিলেটে জিম্বাবুয়ের সঙ্গে প্রথম ম্যাচ-পূর্ব সংবাদ সম্মেলনে। তিনিও বলেছিলেন, এ নিয়ে বোর্ড প্রত্যেকের সঙ্গে আলাদা আলাদা কথা বলবে।

অধিনায়কের মুখে শোনা খেলোয়াড়দের সম্মান জানিয়ে বিসিবির যে সুর, জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে দ্বিতীয় ম্যাচের আগে সেই সুরের ভিন্নতা ফুটে উঠেছে।

এর আগে মিরপুর টেস্টে মুশফিক ডাবল সেঞ্চুরি করে ম্যাচ সেরা হওয়ার পরপরই বিসিবি সভাপতি সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে বলেন, চুক্তির বাধ্যবাধকতা অনুযায়ী মুশফিকের পাকিস্তান যাওয়া উচিত। মুশফিকের পরিবার সত্যিই শঙ্কিত, এটি তিনি বিশ্বাস করেন না বলেও জানান। আর চাপ প্রয়োগের সেই ধারাবাহিকতায় এবার এলো দল থেকে বাদ দেওয়ার হুমকি।

পাকিস্তান সফরে করাচিতে আগামী ৩ এপ্রিল হবে একমাত্র ওয়ানডে ম্যাচটি। আর ৫ এপ্রিল থেকে টেস্ট খেলার কথা বাংলাদেশের।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads