• সোমবার, ২৬ অক্টোবর ২০২০, ১০ কার্তিক ১৪২৬
দ্রুতই মাঠে ফিরছেন মাশরাফি

ফাইল ছবি

ক্রিকেট

দ্রুতই মাঠে ফিরছেন মাশরাফি

  • ক্রীড়া প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত ০৭ অক্টোবর ২০২০

জাতীয় দল, ‘এ’ দল ও হাইপারফরম্যান্স দল (এইচপি) নিয়ে আগামী ১১ অক্টোবর থেকে ৫০ ওভারের একটি সিরিজ আয়োজন করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। দীর্ঘদিন পর ক্রিকেটাররা প্রতিযোগিতার আমেজের ক্রিকেটে ফেরার অপেক্ষায় থাকলেও মাশরাফির এই অপেক্ষাটা নেই।

এই টুর্নামেন্টে তিনি খেলবেন না বলে জানিয়েছেন। এই টুর্নামেন্টে খেলার ব্যাপারে মাশরাফির সঙ্গে যোগাযোগ করেন বিসিবির প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু। মিনহাজুল আবেদীন নান্নুকে মাশরাফি তার সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছেন।

ওয়ানডে টুর্নমেন্টে খেলা না হলেও বিসিবির পরিকল্পনায় থাকা করপোরেট টি-টোয়েন্টি দিয়ে মাঠের লড়াইয়ে ফিরতে চান মাশরাফি। এ জন্য নিজেকে প্রস্তুত করতে কয়েক দিনের মধ্যে অনুশীলন শুরু করবেন তিনি। ৪-৫ দিন ঢাকার বাইরে থাকবেন তিনি। ঢাকা ফিরে আগামী ১০-১১ অক্টোবর থেকে মিরপুরে অনুশীলন শুরু করতে পারেন তিনি।

এর আগে বিসিবির সঙ্গে যোগাযোগ করে মাঠে অনুশীলনের ব্যবস্থা করে নিতে হবে মাশরাফিকে। কারণ বর্তমানে জৈব সুরক্ষা বলয়ের মধ্যে থেকে অনুশীলন করছেন ক্যাম্পে ডাক পাওয়া ২৭ ক্রিকেটারের ২৬ জন। করোনামুক্ত হলেও পর্যবেক্ষণে থাকায় ক্যাম্পে নেই আবু জায়েদ রাহী। মাশরাফি জৈব সুরক্ষা বলয়ের অংশ না হওয়ায় তাকে আলাদাভাবে অনুশীলন করতে হবে। এ কারণে আগে বিসিবির সঙ্গে যোগাযোগ করে অনুশীলনের বিষয়ে নিশ্চিত হতে হবে তাকে।

এ প্রসঙ্গে মাশরাফি বলেন, ‘দীর্ঘদিন ক্রিকেট থেকে বাইরে ছিলাম। বাসায় টুকটাক ফিটনেস নিয়ে কাজ করা হয়েছে। প্রতিযোগিতামূলক ক্রিকেটে ফিরতে হলে অনুশীলন করে তারপর নিজেকে প্রস্তুত করতে হবে। আগামী কয়েক দিন ঢাকার বাইরে থাকব। ঢাকায় ফিরে বিসিবির সঙ্গে যোগাযোগ করে ৪-৫ দিনের মধ্যে অনুশীলন শুরু করব।’

ওয়ানডে টুর্নামেন্টটিতে না খেলার বিষয়ে মাশরাফি বলেন, ‘এত দিনের বিরতির পর তো হুট করেই ম্যাচ খেলা সম্ভব নয়। আমি খেলব কি না সেটা জানতে নান্নু ভাই আমাকে ফোন করেছিলেন। আমি জানিয়েছি প্রস্তুতি, কোয়ারেন্টিনসহ আরো অনেক বিষয় আছে, যে কারণে খেলা সম্ভব হবে না। করোনাকালে বিসিবির গাইডলাইন আছে, যা সবাইকে মানতে হবে।’

‘সামনে করপোরেট লিগ আছে, জাতীয় লিগ আছে; এসব টুর্নামেন্ট দিয়ে শুরু করা যাবে। আগে ফিটনেস নিয়ে কাজ করতে হবে। এরপর বোলিং অনুশীলন। এসব করতে মাস খানেক সময় পাওয়া যাবে। নিজেকে প্রস্তুত করে তারপর খেলার কথা ভাবতে হবে।’

আগামী নভেম্বরে করপোরেট টি-টোয়েন্টি আয়োজন করার কথা ভাবছে বিসিবি। ইতোমধ্যে স্পন্সরের খোঁজ করতে শুরু করেছে দেশের ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থাটি। এই টুর্নামেন্টকে সামনে রেখে আগামী এক মাস অনুশীলনে সময় দেবেন মাশরাফি।

গত মার্চে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সর্বশেষ ম্যাচ খেলেন মাশরাফি। ওই সিরিজেই ওয়ানডের অধিনায়কত্ব ছাড়েন তিনি। এরপর কোনো ধরণের ম্যাচ খেলা হয়নি তার। বলা যায় গত ৮ মাস ধরে ক্রিকেট থেকে বিচ্ছিন্নই ছিলেন অভিজ্ঞ এই ক্রিকেটার। মাঝে করোনাভাইরাসের সঙ্গে লড়তে হয়েছে তাকে। পরিবারের প্রথম সদস্য হিসেবে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হন তিনি।

করোনামুক্ত হতে তার সময় লেগে যায় ২১ দিন। এ ছাড়া তার বাবা-মা, স্ত্রী, ছোটভাইসহ পরিবারের আরো কয়েকজন করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন। সব মিলিয়ে কঠিন সময় পার করা মাশরাফি ক্রিকেটে মনই দিতে পারেননি। গত ১৯ জুলাই থেকে একক অনুশীলন শুরু হলেও মাশরাফি তাতে যুক্ত হননি।

 

 

 

 

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads