• বৃহস্পতিবার, ২৭ জুন ২০১৯, ১৩ আষাঢ় ১৪২৫
ads
ফুরফুরে মেজাজে মাহি

ছবি : সংগৃহীত

ঢালিউড

ফুরফুরে মেজাজে মাহি

  • বিনোদন প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত ১০ জুন ২০১৯

বিয়ের পর প্রতিটি ঈদ শ্বশুরবাড়িতে কাটিয়েছেন মাহিয়া মাহি। এবারো আছেন সেখানে। একান্নবর্তী পরিবারের বড় বউ মাহি। আদর ও আবদারের কমতি নেই। চাওয়ার চেয়ে পাওয়াটাই এগিয়ে থাকে সবসময়। সালামিও পান বড় অঙ্কের। তবে এতদিন সে কথা বলেননি কাউকে। এবার মুখ খুললেন তিনি।

নিজের শ্বশুর-শাশুড়ি থেকে শুরু করে চাচাশ্বশুর, ফুফাশ্বশুর, আপা-দুলাভাই সহ সব মিলিয়ে প্রায় চার লাখ টাকা সালামি পেয়েছেন মাহি। তবে তাকে দেবর-ননদদেরও সালামি দিতে হয়েছে! সেই অঙ্কটাও নেহাত কম নয়, প্রায় তিন লাখ টাকা! এ বিষয়ে মাহি বলেন, ‘জীবনে এত আনন্দ আগে পাইনি কখনো। অপুকে বিয়ে করে নতুন একটা জীবন পেয়েছি। সালামিটা বড় কথা নয়, আমাকে বউমা হিসেবে শ্বশুরবাড়ির সবাই যে পরিমাণ ভালোবাসেন তা অনেক মেয়েই পায় না। আমি পৃথিবীর সবচেয়ে সুখী একজন নারী। যেমন ক্যারিয়ার পেয়েছি তেমন সুন্দর একটি পরিবারও পেয়েছি।’

এদিকে খেলার প্রতি দারুণ ঝোঁক রয়েছে চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহির। বিশেষ করে ক্রিকেট। শুধু খেলা দেখাই নয়, সময় পেলে ব্যাট হাতে তিনিও নেমে পড়েন খেলার মাঠে। এদিকে শুরু হয়েছে বিশ্বকাপ ক্রিকেট। শতব্যস্ততার মাঝেও বাংলাদেশ দলের খেলা দেখেন এই চিত্রনায়িকা। মাহি বলেন, ‘ক্রিকেট খেলার প্রতি আমার দুর্বলতা এমনিতেই একটু বেশি। আর আমার ভালোবাসার টিম বাংলাদেশ। আমার প্রত্যাশা, আমার টিম ট্রফি জিতবে।’

খেলা দেখা নিয়ে মাহি প্রায়ই বাজি ধরে থাকেন। তার ভাষ্য, ‘আমি আমার দলের জয়ের ব্যাপারে সবসময় আশাবাদী। সেই আত্মবিশ্বাস থেকে মাঝে মাঝে নিজেদের মধ্যে বাজি ধরে থাকি। বাজিগুলো বেশিরভাগই এমন হয়- আমি জিতলে আমাকে খাওয়াতে হবে। বহুবার জিতেছি, হেরেছিও। টাকা নিয়ে অপুর (মাহির স্বামী) সঙ্গে বেশি বাজি ধরি। একবার ইন্ডিয়া-বাংলাদেশ খেলা নিয়ে ওর সঙ্গে ২৫ হাজার টাকা বাজি ধরি। সেবার আমি জিতে যাই। এরপর অন্য খেলায় ৫০ হাজার টাকার বাজি ধরি। কিন্তু সেবার আর জিততে পারিনি। খুব কষ্ট লেগেছিল টাকাগুলো দিতে। তবে আমি জানি বাংলাদেশ ক্রিকেট অনেক দূর যাবে। আর সবচেয়ে বড় কথা- জিতলেও বাংলাদেশ, হারলেও বাংলাদেশ। ’

 

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads