• শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২১ কার্তিক ১৪২৪
ads

ঢালিউড

আবারো স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রে দিলারা জামান

  • বিনোদন প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত ০৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯

টেলিভিশন নাটকের গুণী অভিনেত্রী দিলারা জামান। চলচ্চিত্রে সুনাম কুড়িয়েছেন তিনি। স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রেও তিনি অভিনয় করেছেন। এবার নতুন একটি স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রে অভিনয় করলেন দিলারা জামান। স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রটির নাম ‘ভাইজান’। এটি রচনা ও পরিচালনা করেছেন মুহাম্মদ মনিরুজ্জামান জুলহাস। সম্প্রতি উত্তরায় এই স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রটির শুটিং শেষ হলো। এটি দেশে ও বিদেশের বিভিন্ন চলচ্চিত্র উৎসবের জন্য নির্মাণ করা হয়েছে।

এতে অভিনয় করেছেন দিলারা জামান, আবদুল আজিজ, খান আতিক, ফারজানা রিক্তা, সঞ্চিতা দত্ত, সোহেল রহমান, এ আর সোহাইলসহ আরো অনেকে। স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রটির আবহসংগীত করেছেন আপেল মাহমুদ এমিল।

এ প্রসঙ্গে দিলারা জামান বলেন, ‘অনেক দিন পর সুন্দর একটি গল্পে অভিনয় করলাম। এই স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রটির মধ্যে সুন্দর একটি মেসেজ আছে আর এটি পুরস্কার পাবার মতোই একটি কাজ হয়েছে বলে আমি মনে করি।

এই প্রসঙ্গে আবদুল আজিজ বলেন, ‘এখানে ‘ভাইজান’ চরিত্রটিতে আমি অভিনয় করছি। একটি পারিবারিক পরিবেশের মধ্য দিয়ে গল্পটি এগিয়ে যাবে। আশা করছি দর্শকদের ভালো লাগবে।’

এবারের ঈদের নাটকেও অভিনয় করেছেন দিলারা জামান। অভিনয় প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘অভিনয় তো আমার পেশা। এখন আর চরিত্র নিয়ে খুব একটা ভাবি না। কাজ করতে হবে বলে কাজ করে যাই। তার মধ্যে যখন কিছু নাটকে ভালো গল্প পাই, তখন চরিত্রটাতে অভিনয় করে ভালো লাগে। তখন কাজটা করে আনন্দ পাওয়া যায়। আমার এই কাজের মধ্যে তো প্রাণেরও ব্যাপার আছে। চরিত্রটা ভালো লাগলে কাজটা করে প্রাণ পাওয়া যায়। একটা মানসিক যে প্রশান্তি, সেটা পাওয়া যায়। যদি ভালো একটা গল্পে, ভালো একটা চরিত্রে অভিনয় করা যায়, তখন নিজের কাছেও ভালো লাগে। নইলে কাজ করে চলে আসলাম, কিন্তু নিজেও তেমন কাজটা করে আনন্দ পেলাম না।’

টিভি ইন্ডাস্ট্রির বর্তমান অবস্থা সম্পর্কে এই বর্ষীয়ান অভিনেত্রী বলেন, ‘এই বিষয়টি নিয়ে আপাতত কোনো মন্তব্য করতে চাই না। এটা তো সবাই দেখছে, এখন আমরা কোন অবস্থায় আছি। সাম্প্রতিক সময়ের নাটকগুলো দেখলেই তো বোঝা যায় আমরা কোন অবস্থায় আছি। তাই আলাদাভাবে আমি কোনো মন্তব্য করতে চাই না।’

ছোটপর্দা পেরিয়ে বড়পর্দায়ও নিজের মুন্সিয়ানা দেখিয়েছেন দিলারা জামান। ছোটপর্দায় নিয়মিত হলেও বড়পর্দায় দেখা যায় না তাকে। বড়পর্দায় আবার ফিরবেন কি না এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, ‘আমি অভিনেত্রী হিসেবে সব মাধ্যমেই অভিনয় করতে চাই। সিনেমায় তো আগেও অভিনয় করেছি। সামনেও যদি সুযোগ হয় তবে অভিনয় করব। সিনেমা তো অনেক বড় আয়োজনের ব্যাপার। অভিনয়ের জন্য অনেক প্রস্তুতিরও ব্যাপার থাকে।’

মিডিয়াতে নতুনদের অংশগ্রহণকে ইতিবাচক দেখছেন দিলারা জামান। তিনি বলেন, ‘এখন যারা অভিনয় করছে তারা অনেকেই বেশ ভালো অভিনয় করছে। একসময় তো মঞ্চ থেকে অভিনয় শিখেই মিডিয়ায় অভিনয় করতে আসত। এখন সেটা কমে গেছে। আবার কেউ কেউ এখনো মঞ্চে অভিনয় শিখে মিডিয়ায় কাজ করছে। অনেকেরই নাম বলা যাবে, যারা ভালো কাজ করছে। তাই আলাদা করে নাম বলছি না। শুধু বলব, এই সময়ে বেশ প্রতিভাবান শিল্পী আছে। তাদের নিয়ে অনেক ভালো কাজ করা সম্ভব।’

দিলারা জামানের অভিনয়ের শুরু ১৯৬৬ সালে ত্রিধরা নাটক দিয়ে। নাটকের পাশাপাশি তিনি চলচ্চিত্রেও অভিনয় করেন। ১৯৯০-এর দশকে তিনি ‘চাকা’ ও ‘আগুনের পরশমণি’ চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন। পরবর্তী সময় ‘ব্যাচেলর’, ‘মেড ইন বাংলাদেশ’, ‘চন্দ্রগ্রহণ’, ‘প্রিয়তমেষু’ ও ‘মনপুরা’ চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন। ১৯৯৩ সালে শিল্পকলায় অবদানের জন্য তিনি বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক প্রদত্ত সর্বোচ্চ বেসামরিক সম্মান একুশে পদকে ভূষিত হন। ২০০৮ সালের ‘চন্দ্রগ্রহণ’ চলচ্চিত্রে অভিনয়ের জন্য তিনি শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব অভিনেত্রী বিভাগে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার লাভ করেন।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads