• শুক্রবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৯, ৩০ কার্তিক ১৪২৬
ads
মানুষের কাছে পানি চাইছে তৃষ্ণার্ত কোয়েলা

লোরি শুক্রবার দক্ষিণ ভিক্টোরিয়ার মুরে নদীর কাছে ওই কোয়েলাকে দেখেন

ছবি : সংগৃহীত

বৈচিত্র

মানুষের কাছে পানি চাইছে তৃষ্ণার্ত কোয়েলা

  • আন্তর্জাতিক ডেস্ক
  • প্রকাশিত ০৩ জানুয়ারি ২০১৯

প্রচণ্ড দাবদাহে পুড়ছে অস্ট্রেলিয়ার মানুষ ও প্রাণিকুল। কষ্টের সীমা অতিক্রম করতে করতে সব প্রাণীর প্রাণ এখন ওষ্ঠাগত। দেশটির ভিক্টোরিয়া রাজ্যে একটি তৃষ্ণার্ত কোয়েলাকে এক নারী নিজের বোতল দিয়ে পানি পান করিয়ে দেওয়ার ঘটনা বিশ্ব জলবায়ু পরিবর্তন ও সার্বিক প্রভাব নিয়ে আরো একবার চিন্তায় ফেলেছে পরিবেশবাদী ও আবহাওয়াবিদদের।

গত সপ্তাহে দেশটির পশ্চিমাঞ্চলে তাপমাত্রা ৪৯ ডিগ্রি সেন্টিগ্রেড পর্যন্ত উঠতে পারে বলে সতর্ক করা হয়। এ ছাড়া দক্ষিণ অস্ট্রেলিয়ায় চলতি বছরের বার্ষিক তাপমাত্রা স্বাভাবিকের থেকে ১৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস (৬০ ডিগ্রি ফারেনহাইট) বেশি। এনডিটিভির এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়। আবহাওয়া অফিসের তরফ থেকে বলা হয়েছে, অনেকগুলো শহরেই এই দাবদাহ নতুন রেকর্ড স্থাপন করেছে। এ ছাড়া দাবানলের সম্ভাবনা থাকার ফলে উচ্চ সতর্কতাও অবলম্বন করা হয়েছে।

প্রতিবেদনে আরো বলা হয়েছে, লোরি নামের এক স্থানীয় বাসিন্দা গত সপ্তাহে দক্ষিণ ভিক্টোরিয়ার মুরে নদীর কাছে একটি ক্যাম্পিং গ্রাউন্ডে ছিলেন। সেখানে তিনি ওই কোয়েলাকে দেখেন। লোরি ১ জানুয়ারি মঙ্গলবার বার্তাসংস্থা এএফপিকে জানান, সেদিন ৪৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা ছিল। তিনি বলেন— আমি দাঁড়াই কারণ, ওটি এমনভাবে তাকিয়েছিল, যেন জিজ্ঞেস করছিল একটু পানি দেওয়া যাবে কি না।’ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে কোয়েলাকে পানি দেওয়ার এই ঘটনার ভিডিও ইতোমধ্যে ভাইরাল হয়ে পড়েছে।

এদিকে এই ঘটনার ভিডিওটি আগের একটি ভিডিওর কথা মনে করিয়ে দিয়েছে অনেকের। ২০০৯ সালে ভিক্টোরিয়া রাজ্যে আগুন লাগার পর ফায়ার সার্ভিসের কর্মীর বোতল থেকে পানি খেয়েছিল একটি কোয়েলা। অস্ট্রেলিয়ায় গরমকালে তীব্র দাবদাহের ঘটনা অনেকটা স্বাভাবিক। ফলে দেশটির বিভিন্ন এলাকায় দাবানল, স্বাস্থ্য ও বাতাসের মান নিয়েও সতর্কতা জারি করা হয়েছে।

 

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads