• শুক্রবার, ১৬ নভেম্বর ২০১৮, ২ অগ্রহায়ণ ১৪২৪
ads
গণসংযোগে পরস্পরবিরোধী বক্তব্য

রাজশাহী সিটি করপোরেশন (রাসিক) নির্বাচন

প্রতীকী ছবি

নির্বাচন

রাসিক নির্বাচন

গণসংযোগে পরস্পরবিরোধী বক্তব্য

  • রাজশাহী ব্যুরো
  • প্রকাশিত ১৩ জুলাই ২০১৮

রাজশাহী সিটি করপোরেশন (রাসিক) নির্বাচনের মেয়র পদের প্রার্থীসহ কাউন্সিলর পদপ্রার্থীরা উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে গণসংযোগ করে যাচ্ছেন। প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী দুই মেয়র প্রার্থী আওয়ামী লীগ মনোনীত এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন এবং বিএনপির মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল গতকাল বৃহস্পতিবার নগরীর পৃথক এলাকায় গণসংযোগ করেন।

আওয়ামী লীগ মনোনীত ও মহাজোট সমর্থিত মেয়র প্রার্থী খায়রুজ্জামান লিটন রাজশাহী নগরীর আরডিএ মার্কেট, কাপড়পট্টি ও স্বর্ণপট্টি এলাকায় গণসংযোগ করেন। বেলা ১১টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত এ গণসংযোগ করেন তিনি। এ সময় তিনি অভিযোগ করেন, সদ্য সাবেক মেয়র বুলবুলের আমলে; গত পাঁচ বছর নগরীর কোনো উন্নয়ন হয়নি। সেই কারণে নিশ্চিত পরাজয় বুঝতে পেরে বিএনপির মেয়র ও তার কর্মী-সমর্থকরা অপপ্রচারে লিপ্ত হয়েছে।

আর লিটনের বিরুদ্ধে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ও রাসিকের সাবেক মেয়র মিজানুর রহমান মিনু অভিযোগ করেন, ইতোমধ্যে সরকারদলীয় প্রার্থী এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন তার পরিচয় দিয়েছেন। তিনি নির্বাচনী হলফনামা অতিক্রম করে অন্য খরচ বাদেই শুধু কোটি কোটি টাকার পোস্টার, ব্যানার ও ফেস্টুন সারা সিটিতে ভরে দিয়েছেন। মেয়র কিংবা কাউন্সিলর প্রার্থীদের কোনো ওয়ার্ডে এগুলো টানানোর কোনো জায়গা নেই। পুলিশ বাহিনী আওয়ামী লীগ প্রার্থীকে সরাসরি সহযোগিতা করছে।

রাসিকের সাবেক মেয়র খায়রুজ্জামান লিটন বিভিন্ন দোকানে দোকানে গিয়ে লিফলেট বিতরণ ও নৌকা মার্কায় ভোট চান। এরপর সাধারণ ব্যবসায়ী সমিতির অফিসে সংক্ষিপ্ত মতবিনিময় সভায় অংশ দেন খায়রুজ্জামান লিটন। পরে নগরীর কাপড়পট্টি ও স্বর্ণপট্টি এলাকায় লিফলেট বিতরণ ও গণসংযোগ করেন এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন।

মতবিনিময় সভায় তিনি বলেন, রাজশাহীর অনেক উন্নয়ন করার আছে। নির্বাচিত হলে সবার পরামর্শ নিয়ে কাজ করা হবে। নগরীতে শিল্প-কারখানা গড়ে লক্ষাধিক ছেলেমেয়ের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করব। এসিবি ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে রাজশাহীর সব ব্যবসায়ীকে স্বল্প সুদে ঋণের ব্যবস্থা করব।

সভায় উপস্থিত ছিলেন আরডিএ মার্কেট ব্যবসায়ী সমিতির উপদেষ্টা সেকেন্দার আলী, সভাপতি ফরিদ মাদুদ হাসান, সাধারণ সম্পাদক ফরাদ মাদুদ হাসান, সহসভাপতি জাহিদুল ইসলাম, বোয়ালিয়া থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি আতিকুর রহমান কালু প্রমুখ।

বিএনপি ২০ দলীয় জোটের মেয়র প্রার্থী বিএনপি কেন্দ্রীয় কমিটির বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক ও মহানগর বিএনপির সভাপতি মোহাম্মদ মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল সকাল ৮টা থেকে ১৬ নম্বর ওয়ার্ডে গণসংযোগ করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন বিএনপি চেয়ারপারসনের অন্যতম উপদেষ্টা, সাবেক মেয়র ও সংসদ সদস্য জননেতা মিজানুর রহমান মিনু, বিএনপি কেন্দ্রীয় কমিটির ত্রাণ ও পুনর্বাসন বিষয়ক সহ-সম্পাদক ও মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট শফিকুল হক মিলন, শাহ মখদুম থানা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আবদুল মতিন, সহ-সভাপতি খোকন, সাংগঠনিক সম্পাদক বাবু, ১৬নং ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি আকরাম, সাংগঠনিক সম্পাদক লালন, ১৬নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর বেলাল আহম্মেদ, মহানগর যুবদলের সভাপতি আবুল কালাম আজাদ সুইট, জেলা যুবদলের সভাপতি মোজাদ্দেদ জামানী সুমন, মহানগর যুবদলের সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুর রহমান রিটন প্রমুখ।

গণসংযোগকালে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মিনু বলেন, বিভিন্ন ওয়ার্ডে বিএনপি মেয়র প্রার্থীর পোস্টার, ব্যানার, ও ফেস্টুন সরকারদলীয় প্রার্থীর সন্ত্রাসীরা এবং অতি উৎসাহী পুলিশ সদস্যরা এখনো টানাতে বাধা প্রদান করছে, আবার ছিঁড়ে ফেলে দিচ্ছে। আওয়ামী লীগ প্রার্থীরা ভোটারদের ধানের শীষে ভোট দিতে নিষেধ করছে। এমনকি ভোটকেন্দ্রে না যাওয়ার জন্য ভয় দেখাচ্ছে। সেই সঙ্গে ভোটকেন্দ্রে গেলেও নৌকায় ভোট দেওয়ার জন্য চাপ প্রয়োগ করা শুরু করেছে।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads