• মঙ্গলবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৮, ২৯ কার্তিক ১৪২৫
ads
আরো ১৬১ ভোট প্রয়োজন আরিফুলের

সিলেট সিটি করপোরেশনে বিএনপি সমর্থিত মেয়র প্রার্থী আরিফুল হক চৌধুরী

ছবি: সংগৃহীত

নির্বাচন

আরো ১৬১ ভোট প্রয়োজন আরিফুলের

  • সিলেট প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত ৩১ জুলাই ২০১৮

সিলেট সিটি করপোরেশন (সিসিক) নির্বাচনে এগিয়ে আছেন বিএনপি সমর্থিত মেয়র প্রার্থী আরিফুল হক চৌধুরী।

এ পর্যন্ত ১৩২ কেন্দ্রের ফলাফল ঘোষণা করা হয়েছে। গতকাল সোমবার ভোট গ্রহণের সময় গোলযোগের কারণে দুইটি কেন্দ্রের ভোট স্থগিত করা হয়। এই দুই কেন্দ্রে পুনরায় ভোট গ্রহণ করা হবে কি না- সে বিষয়ে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে. এম. নুরুল হুদা সিদ্ধান্ত নেবেন বলে জানিয়েছেন রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. আলীমুজ্জামান। 

আঞ্চলিক নির্বাচন অফিসের ফল ঘোষণার কেন্দ্র থেকে প্রকাশিত ১৩২টি কেন্দ্রের মধ্যে আরিফুল হক চৌধুরী পেয়েছেন ৯০ হাজার ৪৯৬ ভোট এবং নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী বদর উদ্দিন আহমদ কামরান পেয়েছেন ৮৫ হাজার ৮৭০ ভোট।

সেই হিসেবে আরিফুল হক চৌধুরী সিসিক নির্বাচনে ১৩২টি কেন্দ্রে চার হাজার ৬২৬ ভোটে এগিয়ে রয়েছেন।  অন্যদিকে স্থগিত হওয়া দুটি কেন্দ্রের মোট ভোটার চার হাজার ৭৮৭। এ হিসেবে আরিফুলের বিজয় নিশ্চিত করার জন্য প্রয়োজন ১৬১টি ভোট।

সিসিক নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা আলীমুজ্জামান জানিয়েছেন, যেহেতু আরিফুল হক চার হাজার ৬২৬টি ভোটে এগিয়ে আছেন এবং এর মধ্যে ১৬১টি ভোট পেলেই তিনি বিজয়ী হবেন; তাই স্থগিত দুই কেন্দ্রের ভোটের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেবেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার।

তিনি জানান, স্থগিত দুই কেন্দ্রের ভোটের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত গ্রহণের জন্য আজ মঙ্গলবার (৩১ জুলাই) প্রধান নির্বাচন কমিশন বরাবর চিঠি পাঠানো হবে। তিনিই ঠিক করবেন, নতুন করে ভোট হবে নাকি আরিফুল হক চৌধুরীকে বিজয়ী ঘোষণা করা হবে।

গতকাল সিসিক নির্বাচন সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে সম্পন্ন হয়েছে বলে দাবি করেছিলেন আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী বদর উদ্দিন আহমদ কামরান। কিন্তু ভোটের ফল প্রকাশের একপর্যায়ে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ রিটার্নিং কর্মকর্তা বরাবর ভোটের ফল ঘোষণা স্থগিতের আবেদন করেন।

আবেদনে মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ বলেন, স্থানীয়ভাবে আওয়ামী লীগের এজেন্টদের মাধ্যমে পাওয়া ফলাফলের সঙ্গে নির্বাচন কমিশনের ঘোষিত ফলাফলে ১০-১৫ হাজার ভোটের ব্যবধান রয়েছে। তাই ফল ঘোষণা বন্ধ রেখে পুনর্গণনা করার অবেদন করা হয়েছে।

 

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads