• শনিবার, ১৬ নভেম্বর ২০১৯, ১ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
ads
প্রথম ধাপে ১০১ উপজেলায় ভোট

আগামী ১০ মার্চ প্রথম ধাপের উপজেলা নির্বাচনের ভোটগ্রহণের পরিকল্পনা নির্বাচন কমিশনের

প্রতীকী ছবি

নির্বাচন

প্রথম ধাপে ১০১ উপজেলায় ভোট

  • নিজস্ব প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত ০২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

আগামী ১০ মার্চ প্রথম ধাপের উপজেলা নির্বাচনের ভোটগ্রহণের পরিকল্পনা নির্বাচন কমিশনের (ইসি)। এ লক্ষ্যে আগামীকাল রোববার পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার কথা রয়েছে। এ দফায় পাঁচটি বিভাগের ১০১ উপজেলায় ভোট হবে।

ইসি সূত্রে জানা গেছে, আগামীকাল রোববার সিইসি কেএম নুরুল হুদার সভাপতিত্বে কমিশনের সভা আহ্বান করা হয়েছে। সভায় একাদশ সংসদের সংরক্ষিত মহিলা আসনের নির্বাচন এবং পঞ্চম উপজেলা পরিষদের তফসিল ঘোষণার বিষয়ে আলোচনা হবে। ইতোমধ্যে উপজেলা নির্বাচনের তফসিলের জন্য যাবতীয় প্রস্তুতি শেষ করেছে ইসি। প্রথম ধাপে ভোট করতে রংপুর, রাজশাহী, ময়মনসিংহ, সিলেট ও চট্টগ্রাম বিভাগের ১০১ উপজেলার নামসহ চূড়ান্ত তালিকা অনুমোদন শেষে তফসিল ঘোষণা করবে ইসি। পাঁচ ধাপের পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ৪৯২টি উপজেলার মধ্যে ৪৮০টি উপজেলায় ভোট হবে। মার্চেই চার ধাপের ভোট নেওয়ার পরিকল্পনা রয়েছে ইসির। শেষ ধাপের ভোট হবে রমজানের পর।

ইসি কর্মকর্তারা জানান, যেসব উপজেলার প্রথম সভা ২০১৪ সালের ২২ মার্চ অথবা তার আগে হয়েছে, অর্থাৎ ২০১৯ সালের ২১ মার্চের মধ্যে যেসব উপজেলার মেয়াদোত্তীর্ণ হবে, এমন শতাধিক উপজেলার নির্বাচন প্রথম ধাপে করা যেতে পারে বলে প্রস্তাব রাখা হয়েছে। এ ছাড়া বিভিন্ন জটিলতার কারণে ১২টি উপজেলায় এ বছর ভোট হবে না। এবার প্রতিটি জেলার সদর উপজেলায় পুরোপুরি ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) ব্যবহার করা হবে বলেও জানান ইসি কর্মকর্তারা।

এ বিষয়ে ইসি সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ বলেন, স্থানীয় সরকারের এ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করার আইনি বাধ্যবাধকতা রয়েছে। আগামী মে মাসের মধ্যে উপজেলার মেয়াদোত্তীর্ণ হবে।

সর্বশেষ ২০১৪ সালের মার্চ-মে মাসে ছয় ধাপে উপজেলা নির্বাচন হয়েছিল। আইনে মেয়াদ শেষের পূর্ববর্তী ১৮০ দিনের মধ্যে ভোট করার বাধ্যবাধকতা রয়েছে। ১৯৮৫ সালে উপজেলা পরিষদ চালু হওয়ার পর ১৯৯০ ও ২০০৯ সালে এক দিনেই ভোট হয়েছিল। ২০১৪ সালে ছয় ধাপে ভোট করেছিল তৎকালীন ইসি।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads