• মঙ্গলবার, ২১ মে ২০১৯, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫
ads
নিজের বিধানই মানছে না ইসি!

নির্বাচন ভবন

ছবি : সংগৃহীত

নির্বাচন

নিজের বিধানই মানছে না ইসি!

  • নিজস্ব প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত ০৬ এপ্রিল ২০১৯

নির্বাচনী বিধি অনুযায়ী মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার পরপরই প্রার্থীদের হলফনামা নির্বাচন কমিশনের (ইসি) ওয়েবসাইটে প্রকাশ করার নিয়ম রয়েছে। কিন্তু একাদশ জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত নারী আসনের প্রার্থীদের হলফনামা এখন পর্যন্ত প্রকাশ করেনি ইসি। ফলে নিজেদের বিধান ও উচ্চ আদালতের নির্দেশ উভয়ই লঙ্ঘন করছে সাংবিধানিক এই প্রতিষ্ঠানটি।

গত এক মাসে এ ব্যাপারে কয়েক দফায় সংরক্ষিত নারী আসনের রিটার্নিং কর্মকর্তা আবুল কাশেমের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি ‘হচ্ছে’, ‘হবে’, ‘দিচ্ছি’ বলে প্রসঙ্গ এড়িয়ে যান। প্রথমবার তিনি বলেন, ‘হচ্ছে, দ্রুতই প্রকাশ করা হবে। পেয়ে যাবেন আপনারা।’ সপ্তাহখানেক পর একই প্রসঙ্গে জানতে আবুল কাশেম বলেন, ‘ওয়েবসাইটে দ্রুতই (হলফনামা) দিচ্ছি। ঢাকা সিটির নির্বাচন গেল, উপজেলা নির্বাচন হচ্ছে। সব মিলিয়ে প্রকাশ করা হয়নি আর কী। তবে পেয়ে যাবেন।’

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে নির্বাচন কমিশনার কবিতা খানম বলেন, এটা তো প্রকাশ করার কথা। কেন করেনি, আমি জানি না। বিষয়টি নির্বাচন পরিচালনা শাখা জানে।

ইসির ওয়েবসাইটে সংরক্ষিত নারী আসনের প্রার্থীদের হলফনামা প্রকাশ না করা হলেও বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত ৪৯ সংসদ সদস্য এরই মধ্যে সংসদের প্রথম অধিবেশনে অংশ নিয়েছেন। গত ৩ ফেব্রুয়ারি জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত নারী আসনের তফসিল ঘোষণা করা হয়। সে হিসেবে মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ দিন ১১ ফেব্রুয়ারি ও প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ দিন ছিল ১৬ ফেব্রুয়ারি। গত ৪ মার্চ ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু আসনপ্রতি একজন করে প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ায় সেই ভোটগ্রহণের প্রয়োজন হয়নি। ফলে প্রার্থিতা প্রত্যাহারের নির্ধারিত সময় শেষে একই দিনে ৪৯ প্রার্থীকে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় বিজয়ী ঘোষণা করা হয়। বিএনপি সংসদে যোগ না দেওয়ায় তাদের জন্য বরাদ্দ একটি সংরক্ষিত নারী আসনে নির্বাচন হয়নি।

নির্বাচনী বিধি অনুযায়ী মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার পরপরই ৪৯ নারী প্রার্থীর হলফনামা ইসির ওয়েবসাইটে প্রকাশের কথা। কিন্তু নির্ধারিত সময়ের মাসাধিককাল অতিক্রান্ত হলেও ইসি তা প্রকাশ করেনি।

২০০৫ সালে ইসিকে নির্বাচনে অংশ নেওয়া প্রার্থীদের আট ধরনের তথ্য মিডিয়ার মাধ্যমে ভোটারদের কাছে সরবরাহের নির্দেশনা দেন হাইকোর্ট। সে সময় এ উদ্দেশ্য সাধনে লজিস্টিক সাপোর্ট দিতে সরকারকেও নির্দেশ দেওয়া হয়।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads