• বুধবার, ২১ নভেম্বর ২০১৮, ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৪
ads
আইন মানতে বাধ্য করুন

চলছেই সড়কে বিশৃঙ্খলা

সংগৃহীত ছবি

সম্পাদকীয়

সড়কে ফের বিশৃঙ্খলা

আইন মানতে বাধ্য করুন

  • প্রকাশিত ১৪ আগস্ট ২০১৮

সেই পুরনো দৃশ্য, সড়কে বিশৃঙ্খলা চলছেই। নিরাপদ সড়কের দাবিতে কিশোর ছাত্রদের আন্দোলন বিরল ইতিহাসের জন্ম দিলেও বোধোদয় হয়নি কারোরই। যানবাহন চলছে যেমন বেপরোয়া, তেমনি আইন মানছে না ৯০ শতাংশ পথচারী। সড়কে রয়ে গেছে ফিটনেসবিহীন গাড়ি, হেলপার রয়ে গেছে চালকের আসনে। বেপরোয়া গতির কারণে এখনো মরছে মানুষ। শৃঙ্খলা ফেরাতে সরকার ও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান জনসচেতনতামূলক কার্যক্রম শুরু করেছে। ট্রাফিক পুলিশের পাশাপাশি স্কুল-কলেজের স্কাউট সদস্যরাও শৃঙ্খলা ফেরাতে কাজ করছেন। তবু পরিবর্তন আনা যাচ্ছে না।

দৈনিক বাংলাদেশের খবরসহ অন্যান্য সহযোগী দৈনিকে সড়কে বিশৃঙ্খলা আর মর্মাহত হওয়ার সড়ক দুর্ঘটনার খবর অব্যাহত আছে। গত রোববারও রংপুরে এক স্কুলছাত্র, রাজধানীর গুলিস্তানে পথচারীসহ ছয় জনের মৃত্যু হয়েছে। এতকিছুর পরও সড়কে শৃঙ্খলা ফিরে না আসায় প্রধানমন্ত্রী ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। ডিএমপি কমিশনার গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন ৯০ শতাংশ মানুষ সড়কে শৃঙ্খলা মেনে চলছে না। সব মিলিয়ে সড়কের এই বিশৃঙ্খল পরিস্থিতির চিত্র খুবই উদ্বেগের।

দীর্ঘদিনের চলমান বিশৃঙ্খলার পরিণতিই আজকের নিয়ম না মানার চিত্র। সড়কে চালক আর পথচারীদের মধ্যে আইন না মানার প্রবণতা তৈরি হয়েছে আইন প্রয়োগের অভাবেই। ছাত্ররা সহপাঠী হারিয়ে আন্দোলন করেছে। কিন্তু আইন মেনে চলতে পারছে না তারাও। ছাত্র এবং প্রাপ্তবয়স্কদের একইভাবে আইন অমান্য করতে দেখা যায়। এমন পরিস্থিতিতে আইন মানতে বাধ্য করার বিকল্প নেই। উন্নত বিশ্বে দেখা যায়, সড়কে আইনের যথাযথ প্রয়োগ আছে বলেই শৃঙ্খলাও আছে, দুর্ঘটনাও কম। বর্তমান প্রেক্ষাপটে আমাদের দেশের সড়ক ব্যবস্থাপনায় আইনের যথাযথ প্রয়োগ এখন জরুরি। নতুবা কোনোভাবেই সড়কে দুর্ঘটনা বন্ধ করা সম্ভব নয়। আবার বিশেষজ্ঞরা বলছেন, অধিক জনসংখ্যার দেশ হিসেবে নতুন আইনও যথাযথ হয়নি। আইনে অপরাধী চালকদের সর্বোচ্চ শাস্তির বিধান করা হয়েছে মাত্র পাঁচ বছর। হত্যা প্রমাণ করতে পারলে সেক্ষেত্রে চালকের মৃত্যুদণ্ডের বিধান রাখা হয়েছে। এই যে হত্যা প্রমাণ করা, সে বিষয়টি নিহত বা ক্ষতিগ্রস্ত যাত্রীর পক্ষে আদালতে প্রমাণ করাই দুঃসাধ্য বিষয়। যে কারণে চালকদের মধ্যে নতুন করে সতর্কতার প্রভাব তৈরি হয়নি। তারা আগে যেমন ছিলেন, এখনো তেমনি বেপরোয় গাড়ি চালাচ্ছেন। একইভাবে সময় বাঁচানো আর অসচেতনতার অভাবে পথচারীরাও রয়ে গেছেন পুরনো অনিয়মে।

সুতরাং সড়কে শৃঙ্খলা ফেরাতে নতুন বা পুরনো যে আইনের কথাই বলি না কেন, সবার আগে প্রয়োজন আইনের প্রয়োগ, যে কাজটি সহজে করতে পারছে না সংশ্লিষ্ট বিভাগ। এরও কারণ ক্ষমতার অপব্যবহার, রাজনৈতিক হস্তক্ষেপ আর যারা আইন প্রয়োগ করবেন, তাদের আইন না মানা। দুর্ঘটনা রোধ করতে যেমন প্রয়োজন আইন মানা, তেমনি প্রয়োজন আইনের কঠোর প্রয়োগ। আমরা আশাবাদী যে, সড়ক ব্যবস্থাপনায় শৃঙ্খলার স্বার্থে আইন মানতে বাধ্য করতে যা যা করণীয়, কর্তৃপক্ষ তা-ই করবেন।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads