• মঙ্গলবার, ১৮ ডিসেম্বর ২০১৮, ২১ কার্তিক ১৪২৪

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন ২০১৮

রাবি’র সেই দুই বিভাগ একীভূতকরণ হলো

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়

ছবি : সংগৃহীত

শিক্ষা

রাবি’র সেই দুই বিভাগ একীভূতকরণ হলো

  • রাবি প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত ০৬ ডিসেম্বর ২০১৮

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) গত ১১ নভেম্বর থেকে দুই বিভাগ একীভূতকরণের দাবিতে আন্দোলনের পর অবশেষে ফলিত পদার্থ ও ইলেক্ট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং (এপিইই) বিভাগ ও ইলেক্ট্রিকাল এন্ড ইলেক্ট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং (ইইই) বিভাগকে একীভূত করা হয়েছে।

গতকাল বুধবার রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক কাউন্সিলের মিটিংয়ে এই দুই বিভাগ একীভূত করার সিদ্ধান্ত নেয় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। আজ বৃহস্পতিবার সকালে বিষয়টি নিশ্চিত করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. লায়লা আরজুমান বানু।

ছাত্র উপদেষ্টা জানান, একাডেমিক কাউন্সিলের মিটিংয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. এম আব্দুস সোবহানের সভাপতিত্ব করেন। সেখানে চলতি শিক্ষাবর্ষ (২০১৮-১৯) থেকে দুইটি বিভাগকে এক করে ইইই বিভাগের অধীন ৮০ শিক্ষার্থীকে ভর্তি করা হবে। এর আগে এপিইই বিভাগে ৫০ শিক্ষার্থী ও ইইই বিভাগে ৩০ শিক্ষার্থী ভর্তি করা হতো।

তিনি আরও জানান, বর্তমান যারা ওই বিভাগে রয়েছেন সেসব শিক্ষার্থীদের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. চৌধুরী মো জাকারিয়াকে আহ্বায়ক করে ৫ সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন, প্রকৌশল অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. একরামুল হামিদ, বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. খলিলুর রহমান, এপিইই বিভাগের সভাপতি ড. আরিফুল ইসলাম নাহিদ, ইইই বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক ড. আবু জাফর মোহাম্মদ তৌহিদুল ইসলাম।

একাডেমিক কাউন্সিলের সদস্য অধ্যাপক ড. ইফতেখারুল আলম মাসউদ বলেন, কমিটিকে ফ্যাকাল্টি কমিটির মাধ্যমে রিপোর্ট দিতে বলা হয়েছে। সামনের সিদ্ধান্ত আসতে কমপক্ষে ৩ মাস সময় লাগতে পারে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে এপিইই বিভাগের সভাপতি ড. আরিফুল ইসলাম নাহিদ বলেন, শিক্ষার্থীদের দাবিটি সভায় গৃহিত হয়েছে। দুইটি বিভাগকে সংযত আচরণ প্রকাশ করতে বলা হয়েছে। এছাড়া যে তিনটা ব্যাচ বর্তমান আছে সেগুলো কিভাবে একিভুত করা যায় সে বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে একটি কমিটি করা হয়েছে। নতুন শিক্ষার্থীরা ইইই বিভাগের অধীনে ভর্তি হবে।

এদিকে ইইই বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক ড. আবু জাফর মোহাম্মদ তৌহিদুল ইসলাম কোন মন্তব্য করতে রাজি হন নি।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads