• বুধবার, ২৭ মার্চ ২০১৯, ১৩ চৈত্র ১৪২৪
ads
পথচলার ৪৯ বছরে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়

প্রতিনিধির পাঠানো ছবি

শিক্ষা

পথচলার ৪৯ বছরে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়

  • জাবি প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত ১২ জানুয়ারি ২০১৯

নয়ানাভিরাম সবুজ প্রকৃতি, পরিযায়ী পাখি ও সাংস্কৃতিক রাজধানীখ্যাত দেশের অন্যতম আবাসিক বিশ্ববিদ্যালয় জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় ৪৯ বছরের পর্দাপণ করেছে। ১৯৭১ সালের ১২ জানুয়ারি দেশের এই স্বনামধন্য প্রতিষ্ঠানটি রাজধানী ঢাকার অদূরে প্রায় ৭০০ একর জায়গা জুড়ে প্রতিষ্ঠিত হয়।

আজ শনিবার দিবসটি উপলক্ষে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ দিনব্যাপী অনুষ্ঠান কর্মসূচীর আয়োজন করেছে। এদিন সকাল দশটায় বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজনেস স্টাডিজ অনুষদ চত্বরে জাতীয় পতাকা এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের পতাকা উত্তোলনের মাধ্যমে দিবসের উদ্বোধন করা হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি উপাচার্য অধ্যাপক ড. ফারজানা ইসলাম জাতীয় পতাকা ও উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক ড. আমির হোসেন এবং কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক শেখ মঞ্জুরুর হক বিশ্ববিদ্যালয়ের পতাকা উত্তোলন করেন। পরে উপাচার্য বেলুন উড়িয়ে ও র‌্যালীর মাধ্যমে বিশ্ববিদ্যালয় দিবসের কর্মসূচির উদ্বোধন করেন।

উপাচার্য অধ্যাপক ড. ফারজানা ইসলাম তার বক্তব্যে বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের বর্তমান কর্তৃপক্ষ সংকীর্ণতা ও সীমাবদ্ধতা অতিক্রম করে জাবিকে বিশ্বে মর্যাদাপূর্ণ বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে প্রতিষ্ঠা করার চেষ্টা করছে। বিশ্ববিদ্যালয় এখন ৪৯ বছরে পর্দাপন করে পরিণত প্রতিষ্ঠানে রুপ লাভ করেছে। মানসম্মত শিক্ষা জ্ঞান, বুদ্ধিকে শানিত করে ব্যক্তি স্বার্থের ঊর্ধ্বে উঠে বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বার্থকে গুরুত্ব দিয়ে আমাদের সামনের পথ পাড়ি দিতে হবে।১৯৭১ সালের এ দিনে আনুষ্ঠানিকভাবে বিশ্ববিদ্যালযটির যাত্রা শুরু হয়। তাই এ দিনটিকে জাবি কর্তৃপক্ষ ‘বিশ্ববিদ্যালয় দিবস’ হিসেবে পালন করেন। দীর্ঘ ৪৯ বছরে বিশ্ববিদ্যালয়টি শিক্ষা, গবেষণায় খ্যাতি লাভ করেছে অসামান্য। বর্তমানে প্রতিষ্ঠানটিতে প্রায় ১৬ হাজার শিক্ষার্থী ৬টি অনুষদের অধীনে ৩৩টি বিভাগ ও ৩টি ইনস্টিটিউট পড়ালেখা করছে। বিশ্ববিদ্যালয়টিতে শিক্ষার্থীদের জন্য রয়েছে মোট ১৬টি হল। আরও ৬টি নতুন হল নির্মাণের বিষয়ে পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে প্রশাসন। এছাড়াও কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগার ছয় তলা বিশিষ্ট এবং প্রশাসনিক ভবন দশ তলা করণসহ আলাদা পরীক্ষা কক্ষ নির্মাণের পরিকল্পনা রয়েছে প্রশাসনের। বর্তমানে শিক্ষার ক্ষেত্রে দেশের গন্ডি পেরিয়ে বিদেশেও সুমান অর্জন করেছে বিশ্ববিদ্যালয়টি।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন রেজিস্ট্রার রহিমা কানিজ। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষার্থী, ডিন, প্রক্টরিয়াল বডির সদস্যসহ প্রাক্তন ও বর্তমান কর্মকর্তা, কর্মচারি উপস্থিত ছিলেন।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads