• বুধবার, ২২ মে ২০১৯, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫
ads
রবীন্দ্র-নজরুল ছাড়া আমরা বাঙালিরা বাঁচতে পারি না : হাসান আজিজুল হক

প্রতিনিধির পাঠানো ছবি

শিক্ষা

রবীন্দ্র-নজরুল ছাড়া আমরা বাঙালিরা বাঁচতে পারি না : হাসান আজিজুল হক

  • ইবি প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

বিশিষ্ট কথাসাহিত্যিক ও রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক হাসান আজিজুল হক বলেছেন, রবীন্দ্রনাথ এবং নজরুল তাঁদের ছাড়া আমরা বাঙালিরা বাঁচতে পারিনা। আমাদের নিশ্বাস-প্রশ্বাসের সাথে তাঁরা জড়িয়ে আছেন। তাঁদের কথা, গান, কবিতা, বাঙালিয়ানাকে বাঁচিয়ে রেখেছে। রবীন্দ্রনাথ তাঁর বিভিন্ন লিখনীর মধ্যদিয়ে বিচিত্র পৃথিবীকে ফুটিয়ে তুলেছেন আর এ জন্যেই তিনি বিশ্বকবির মর্যাদা লাভ করেছেন। বাঙালিত্বের শ্রেষ্ঠ প্রকাশ হচ্ছেন কাজী নজরুল। এই দু’জন কবি বিশ্বের যে বিদ্যা-শিক্ষার উচ্চতা সেখানে আমাদেরকে নিয়ে গেছেন। আজ মঙ্গলবার দুপুরে বীরশ্রেষ্ঠ হামিদুর রহমান মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত ‘ভাষা ভাবনায় রবীন্দ্র-নজরুল’ শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান আলোচকের বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন।

জানা যায়, বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য ও জাতীয় দিবসসমূহ উদ্যাপন স্যান্ডিং কমিটি ২০১৯’র আহবায়ক অধ্যাপক ড. শাহিনুর রহমানের সভাপতিত্বে সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপাচার্য অধ্যাপক ড. রাশিদ আসকারী। এসময় বিশেষ অতিথি কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. সেলিম তোহা এবং ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের বঙ্গবন্ধু চেয়ার অধ্যাপক ও বাংলা একাডেমির সাবেক মহা-পরিচালক অধ্যাপক শামসুজ্জামান খান।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে ড. রাশিদ আসকারী বলেন, ‘বাঙালির হৃদয়ে রবীন্দ্রনাথ, চেতনাতে নজরুল। বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর এবং জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বাংলা ভাষার দিকপাল। এটাই সকল বাঙালির প্রথম এবং শেষ উপলদ্ধি।’

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে ড. সেলিম তোহা বলেন, আমাদের বাংলা ভাষার যে ছন্দ, মাধুর্য এবং সৌন্দর্যবোধ তা সমৃদ্ধশালী করেছেন কবি রবীন্দ্রনাথ এবং নজরুল। আমরা মুলত তাদেরকেই অনুস্মরণ করে চলেছি। ভাষা ভাবনায় রবীন্দ্র-নজরুলের কৃতিত্বের কোন সন্দেহ নেই।

অপর বিশেষ অতিথি শামসুজ্জামান খান বলেন, সৃষ্টিকর্তা যাকে যে ভাষায় সৃষ্টি করেছেন তার কাছে সে ভাষা অমূল্য রতন। আমাদের বাংলাকে বিশ্বপর্যায়ে নিয়ে গেছেন রবীন্দ্রনাথ এবং নজরুল।

আলোচনা সভায় সভাপতির বক্তৃতায় ড. শাহিনুর রহমান বলেন, আমরা ভাষার স্বাধীনতা পেয়েছি ভাষা শহীদদের রক্তের বিনিময়ে। ভাষার স্বাধীনতা পেয়েছিলাম বলেই মহান মুক্তিযুদ্ধের মধ্যদিয়ে আমরা স্বাধীন দেশ পেয়েছি। তাই আমি মনে করি, বাংলা ভাষা অর্জনের মধ্যদিয়েই বাঙালির সকল অর্জনের সূচনা হয়েছে।

ল’এন্ড ল্যান্ড ম্যানেজমেন্ট বিভাগের প্রভাষক সাহিদা আখতারের সঞ্চালনায় সভায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ব্যবস্থাপনা বিভাগের অধ্যাপক ড. মাহবুবুল আরফিন এবং ইংরেজি বিভাগের অধ্যাপক ড. মিয়া মোঃ রসিদুজ্জামান।

এদিকে আলোচনা সভার পূর্বে ‘বাংলা মঞ্চে’ আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস ও মহান একুশে স্মরণে ফিতা কেটে ৩দিনব্যাপী বই মেলা, আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন উপাচার্য অধ্যাপক ড. রাশিদ আসকারী। উদ্বোধন শেষে উপ-উপাচার্য, কোষাধ্যক্ষ, বঙ্গবন্ধু চেয়ার অধ্যাপকসহ অন্যান্য অতিথিবৃন্দকে নিয়ে বই মেলার স্টল ঘুরে দেখেন তিনি।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads