• সোমবার, ২০ মে ২০১৯, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫
ads
নরসিংদী সরকারি কলেজে অধ্যক্ষের উপর হামলা, ময়লা ও চেয়ার ছুড়ে লাঞ্ছিত

নরসিংদী সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ ড. আনোয়ারুল ইসলামের অফিস কক্ষে ঢুকে ড্রেনের পানি ও চেয়ার ছুড়ে লাঞ্ছিত করেছে মুখোশধারী দুর্বৃত্তরা

ছবি : বাংলাদেশের খবর

শিক্ষা

নরসিংদী সরকারি কলেজে অধ্যক্ষের উপর হামলা, ময়লা ও চেয়ার ছুড়ে লাঞ্ছিত

  • নরসিংদী প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

নরসিংদী সরকারি কলেজের অধ্যক্ষের উপর হামলার ঘটনা ঘটেছে। ওই সময় মুখোশধারী দুর্বৃত্তরা অধ্যক্ষ ড. আনোয়ারুল ইসলামের উপর ড্রেনের ময়লা নিক্ষেপ করেন। চেয়ার ছুড়ে মেরে শারীরিক ভাবে লাঞ্ছিত করা হয়।

আজ শনিবার দুপুরে দিকে কলেজের অধ্যক্ষের কক্ষে এই ঘটনা ঘটে। কলেজের অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ তুলে দীর্ঘ ৫ মাস যাবত কলেজে যেতে বাঁধা দিচ্ছিল ছাত্রলীগের নেতৃত্বাধীন সাধারণ ছাত্র সংগ্রাম পরিষদ। জেলার সর্বোচ্চ বিদ্যাপীঠে নজিরবিহীন এই ঘটনায় কলেজের শিক্ষক ও ছাত্রদের মধ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে। নিরাপত্তাহীনতায় থাকা শিক্ষকরা ঘটনায় সঙ্গে জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক বিচারের দাবী জানিয়েছে।

কলেজ সূত্রে জানা যায়, অধ্যক্ষ প্রফেসর ড. আনোয়ারুল ইসলামের বিরুদ্ধে দুর্নীতি ও অনিয়মের অভিযোগ এনে গত বছরের সেপ্টেম্বর থেকে আন্দোলনে নামে ছাত্রলীগের নেতৃত্বাধীন সাধারণ ছাত্র সংগ্রাম পরিষদ। কলেজে উপস্থিত থাকলে অভিযোগের সুষ্ঠু তদন্ত সম্ভব নয় এই যুক্তিতে অধ্যক্ষকে কলেজে যেতে নিষেধ করে ছাত্রলীগ। এরপর থেকে নিরাপত্তাহীনতার কারণে অধ্যক্ষ আর কলেজে যেতে পারেনি।

গত ২১ ফেব্রুয়ারি স্থানীয় সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম হীরুর উপস্থিতিতে তিনি কলেজের শহীদ মিনার পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। এরই মধ্যে স্থানীয় সাংসদ অধ্যক্ষকে কলেজে এসে কলেজ পরিচালনার নির্দেশ দিলে শনিবার সকালে তিনি কলেজ আসেন। দুপুর ১২টার দিকে ৫-৬ জনের একদল দুর্বত্ত মুখোশ ও ক্যাপ পড়ে অধ্যক্ষের কক্ষে প্রবেশ করে অশালীন ভাষায় বকতে থাকে। ওই সময় তারা সাথে আনা এক বালতি ময়লা পানি অধ্যক্ষের উপর ছুড়ে মারে। ওই সময় চেয়ার ও গ্লাসও অধ্যক্ষের উপর ছুড়ে মারা হয়। এতে অধ্যক্ষ আহত হন। পরে দ্রুত হামলাকারীরা পালিয়ে যায়।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর ড. আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, আজকের ঘটনার শিক্ষক সমাজের জন্য লজ্জাজনক। হামলাকারীরা মুখোশ পড়ে এই হামলা চালালেও সাধারণ ছাত্র-ছাত্রী ও শিক্ষককের নিকট অন্তরালের নায়করা পরিচিত। এই ঘটনাই প্রমাণ করে এই কলেজে কোন শিক্ষক নিরাপদ নয়। আমি ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানাচ্ছি।

ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী নরসিংদী সরকারি কলেজের দর্শন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক সাখাওয়াত হোসেন খাঁন বলেন, দুর্বৃত্তরা শুধু অধ্যক্ষকেই অপমান করেননি। অপমান করেছে সারা দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকদের। শিক্ষককে অসন্মানের ঘটনাটি অত্যন্ত দুঃখ জনক, অপমান জনক উল্লেখ করে তিনি বলেন, এ ঘটনার বিচার না হলে জাতির মেরুদন্ড ভেঙ্গে পড়বে। তাই দ্রুত এর বিচার করা উচিত।

নরসিংদী সরকারী কলেজের ছাত্রলীগের সভাপতি শিব্বির আহমেদ মোল্লা শিবলী বলেন, অধ্যক্ষ নিজের অনিয়ম ও দুর্নীতিকে আড়াল করতে ছাত্রনেতাদের স্বচ্ছতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন। এরই প্রেক্ষিতে বর্তমান ও সাবেক ছাত্র নেতারা অধ্যক্ষের কাছে এর কারন জানতে চাইলে তিনি নিজের অনিয়মের কথা স্বীকার করেন। এরই প্রেক্ষিতে ছাত্র নেতারা সুষ্ট তদন্তের স্বার্থে ওনাকে কলেজে ছেড়ে অন্যত্র চলে যেতে বলেন। কিন্তু সেই ঘটনার সাথে আজকের ঘটনার কোন যোগসুত্র নেই। ছাত্রলীগ এই ঘটনার সুষ্ঠ তদন্ত ও বিচার চায়।

নরসিংদী সদর মডেল থানার ওসি (অপারেশন) আতাউর রহমান বলেন, অধ্যক্ষের উপর হামলার ঘটনায় ভিডিও ফুটেজসহ সকল ধরনের আলামত সংগ্রহ করা হয়েছে। অপরাধীদের আইনের আওতায় আনতে সকল কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads