• শনিবার, ২৫ মে ২০১৯, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫
ads
শিক্ষাব্যবস্থা হবে প্রাচ্য ও পাশ্চাত্যের আদলে : শিক্ষামন্ত্রী

ছবি : সংগৃহীত

শিক্ষা

শিক্ষাব্যবস্থা হবে প্রাচ্য ও পাশ্চাত্যের আদলে : শিক্ষামন্ত্রী

  • নিজস্ব প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত ০৯ মে ২০১৯

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, প্রাচ্য ও পাশ্চাত্যের যা কিছু ভালো তার সম্মিলনে গড়ে তোলা হবে আমাদের শিক্ষাব্যবস্থা। তিনি গতকাল রাজধানীর শিল্পকলা একাডেমিতে বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথের ১৫৮তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের আয়োজনে এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এ কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, যে পাঠ্যপুস্তক শিক্ষার্থীদের মানসিক বিকাশে যথার্থ ভূমিকা রাখে, সে রকম পাঠ্যপুস্তক শিক্ষার্থীদের হাতে তুলে দেবে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। তিনি আরো বলেন, যান্ত্রিক ও প্রাণহীন শিক্ষার বদলে আনন্দময় শিক্ষার ব্যবস্থা করতে সরকার প্রতিজ্ঞাবদ্ধ।

সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী কেএম খালিদের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বিশেষ বক্তা ছিলেন জাতীয় অধ্যাপক আনিসুজ্জামান ও অধ্যাপক সন্জীদা খাতুন। রবীন্দ্রনাথ স্মারক বক্তব্য দেন মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরের অন্যতম ট্রাস্টি মফিদুল হক। সভায় স্বাগত বক্তব্য দেন সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব ড. মো. আবু হেনা মোস্তফা কামাল এনডিসি।

মন্ত্রী বলেন, একটি মানবিক সমাজ গড়ার জন্য রবীন্দ্রনাথ ছিলেন সব ধরনের সাম্প্রদায়িকতা, সংকীর্ণতা ও উগ্র জাতীয়তাবাদের বিপক্ষে। তিনি স্বপ্ন দেখেছেন মিলিত বাংলার। তাই হিন্দু-মুসলমানের মিলনে তিনি ছিলেন আশাবাদী।

অধ্যাপক আনিসুজ্জান বলেন, রবীন্দ্রনাথ একই সঙ্গে বাঙালি, ভারতীয় ও বিশ্ব নাগরিক। তিনি প্রথম দিকে জাতীয়তাবাদের সমর্থক হলেও পরে তিনি বিশ্ববাদের সমর্থক হয়ে যান। রবীন্দ্রনাথের মানবিক বিশ্বে সবার অধিকার রয়েছে।

সন্জীদা খাতুন বলেন, রবীন্দ্রনাথের মানবিকতাবোধের কারণে তার প্রতি আমাদের বিশেষ আকর্ষণ। তিনি দেখিয়েছেন, প্রেম সবার ওপর। এই প্রেম মানবিকতার প্রেম। প্রাণের প্রেম।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads