• সোমবার, ২৪ জুন ২০১৯, ১০ আষাঢ় ১৪২৫
ads
কুমিল্লা শিক্ষাবোর্ডে অর্ধেকেরও বেশি পদ দীর্ঘদিন ধরে শূণ্য

ছবি : সংগৃহীত

শিক্ষা

কুমিল্লা শিক্ষাবোর্ডে অর্ধেকেরও বেশি পদ দীর্ঘদিন ধরে শূণ্য

  • খায়রুল আহসান মানিক, কুমিল্লা জেলা প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত ১৭ মে ২০১৯

কুমিল্লা মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ড জনবল সংকটে রয়েছে। অনেক বছর ধরে লোকবল নিয়োগ না দেওয়ায় এবং কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা অবসরে যাওয়ায় এ বোর্ডের বিভিন্ন পর্যায়ের ২১৯টি পদের মধ্যে ১২৮টি পদই শূণ্য হয়ে আছে, যা অর্ধেকেরও বেশি। তার উপর গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি পদে লোক না থাকায় অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করতে হচ্ছে বোর্ডের কর্মকর্তা ও কর্মাচারীদের। বোর্ডের বিভিন্ন পর্যায়ের বেশ কয়েকজন কর্মকর্তা ও কর্মচারীর সাথে কথা বলে এসব তথ্য জানা গেছে।

জানা যায়, ১৫টি জেলা নিয়ে ১৯৬২ সালে বৃহত্তর চট্টগ্রাম বিভাগ নিয়ে কুমিল্লা মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ড স্থাপিত হয়। পরবর্তীতে ১৯৯৬ সালে চট্টগ্রাম, বান্দরবন, খাগড়াছড়ি, রাঙ্গামাটি কক্সবাজার জেলা নিয়ে চট্টগ্রাম মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ডের কার্যক্রম শুরু হয়। এরপর ২০০১ সালে সিলেট, সুনামগঞ্জ, মৌলভীবাজার ও হবিগঞ্জ জেলা নিয়ে সিলেট মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ড স্থাপিত হয়। এভাবে এক সময়ের বৃহৎ এলাকা নিয়ে প্রতিষ্ঠিত কুমিল্লা মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ড সময়ের প্রয়োজনে তিন টুকরো হয়ে এর অধীভুক্ত এলাকা হ্রাস পেয়ে ছোট হয়ে যায়।

বর্তমানে কুমিল্লা, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, চাঁদপুর, নোয়াখালী, ফেনী ও লক্ষীপুর এ ৬টি জেলা নিয়ে কুমিল্লা মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ডের কার্যক্রম চলছে। এ বোর্ড সূত্র জানায়, বর্তমানে কুমিল্লা মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ডের কর্মকর্তা ও কর্মচারীর অনুমোদিত পদের সংখ্যা২১৯টি এর মধ্যে বিভিন্ন পর্যায়ে ১২৪টি পদ শূণ্য রয়েছে। শূণ্য পদগুলোর সংখ্যা হচ্ছে প্রথম শ্রেণির ২৪টি পদের মধ্যে ৬টি, দ্বিতীয় শ্রেণির ১৯টি পদের মধ্যে ১১টি, তৃতীয় শ্রেণির ১১৫টি পদের মধ্যে ৮১টি এবং চতুর্থ শ্রেণির ৬১টি পদের মধ্যে ২৬টি পদ। প্রথম শ্রেণির পদগুলোর মধ্যে অডিট অফিসার, তথ্য কর্মকর্তা, ক্রীড়া কর্মকর্তা, প্রোগ্রামার, সহকারী প্রোগ্রামার ও সহকারী মেইনটেনেন্স ইঞ্জিনিয়ারের ১টি করে পদ শূণ্য রয়েছে। দ্বিতীয় শ্রেণির পদের মধ্যে সহকারী সচিব, সহকারী কলেজ পরিদর্শক, চেয়ারম্যানের একান্ত সচিব, সহকারী ক্রীড়া কর্মকর্তা, নিরাপত্তা কর্মকর্তা, সহকারী গ্রস্থাগ্রারিক, উপ-সহকারী প্রকৌশলী ও ডাটা এন্ট্রি কম্পিউটার অপারেটরর ১টি করে পদ শূণ্য রয়েছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বোর্ডের একাধিক কর্মকর্তা জানান, প্রকৌশলী, তথ্য, ক্রীড়া, একান্ত সচিব, নিরাপত্তা কর্মকর্তা ও সহকারী গ্রস্থাগারিকের পদগুলো শূণ্য থাকার কারণে বোর্ডের সার্বিক কাজের উপর চাপ পড়েছে। একজন উপ-সচিব (একাডেমিক) দীর্ঘদিন ধরে ভারপ্রাপ্ত ক্রীড়া কর্মকর্তার দায়িত্ব পালন করছেন। তথ্য কর্মকর্তার পদ শূণ্য থাকায় বোর্ডে সেবা নিতে আসা লোকজন বিপাকে পড়তে হচ্ছে। এছাড়া বর্তমানে তথ্যপ্রযুক্তির ব্যবহার বাড়লেও এখানে ডাটা অপরেটরসহ কম্পিউটার শাখায় জনবল সংখ্যা কম। তাই অবিলম্বে সকল শূণ্য পদ পূরণ করে সেবা প্রত্যাশিদের ভোগান্তি কমাতে হবে।

কুমিল্লা মাধ্যমি ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর মো. রুহুল আমিন ভূঁইয়া জানান, ‘কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা অবসরে যাচ্ছেন, তাই প্রতি বছরই লোকবল কমছে, বহু পদ শূণ্য হচ্ছে। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন নিয়ে জনবল নিয়োগ দেওয়া হবে’।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads