• বুধবার, ২০ নভেম্বর ২০১৯, ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
ads
শেকৃবিতে পানের গোড়া পচা প্রতিরোধী জাত উদ্ভাবন

সংগৃহীত ছবি

শিক্ষা

শেকৃবিতে পানের গোড়া পচা প্রতিরোধী জাত উদ্ভাবন

  • ডেস্ক রিপোর্ট
  • প্রকাশিত ২২ জুলাই ২০১৯

পান গাছের গোড়া পচা (ফুট অ্যান্ড রুট রট) রোগ প্রতিরোধী প্রজাতি শনাক্ত ও এ রোগ প্রতিরোধে গবেষণা করে সফল হয়েছেন শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শেকৃবি) একদল গবেষক।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্ভিদ রোগতত্ত্ব বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. রফিকুল ইসলামের তত্ত্বাবধানে গবেষণা করেছেন বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট (বারি)-এর সিনিয়র বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. হাফিজুর রহমানসহ বেশ কয়েকজন গবেষক।

ফুট অ্যান্ড রুট রট পান গাছের মারাত্মক রোগ। গবেষণাকারী দল পাঁচ বছর আগে দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে ১৩ প্রজাতির পান সংগ্রহ করে। এরপর দেশের যেসব প্রান্তে পানগাছ বেশি জন্মে ও যেসব এলাকায় পানগাছ প্রধান ফসল সেসব এলাকায় গবেষণা করে। গবেষণাকালে এ রোগে আক্রান্ত সবচেয়ে বেশি গাছ শনাক্ত করে বরিশালের গৌরনদীতে ও সবচেয়ে কম গাছ শনাক্ত করেন চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ড উপজেলায়। এ গবেষণা থেকেই এ রোগ প্রতিরোধী একটি প্রজাতি শনাক্ত করতে সক্ষম হয় গবেষক দল।

অধ্যাপক ড. মো. রফিকুল ইসলাম গণমাধ্যমকে জানান, এ রোগ পানগাছের মূলে আক্রমণ করে ও মূল পচে গিয়ে দুর্গন্ধ ছড়ায়। মূল পচে যাওয়ায় গাছ মরে যায় ও পান উৎপাদন হ্রাস পায়। ক্ষতিকর ছত্রাকের আক্রমণে এ রোগ সৃষ্টি হয়। ভেজা ও স্যাঁতসেঁতে আবহাওয়ায় এ রোগের আক্রমণ বেশি হয়। তবে ট্রাইকোডার্মা ও সিস্টেমিক ফলিয়ার মিশ্রণের ছত্রাকনাশক ব্যবহার করে এ রোগ প্রতিরোধ করা যায়।

ড. রফিকুল ইসলাম বলেন, পানপাতা বাংলাদেশের কৃষকরা অন্যতম ফসল হিসেবে চাষ করেন। কিন্তু গোড়া পচা বা ফুট অ্যান্ড রুট রট এমন এক মারাত্মক রোগ যার আক্রমণে পানের বাগান নিমেষেই নষ্ট হয়ে যেতে পারে। আনুষ্ঠানিকভাবে গবেষণার কাজ শেষ করে কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগের মাধ্যমে খুব শিগগির আমাদের উদ্ভাবিত এ জাতটি কৃষকদের মধ্যে ছড়িয়ে দেওয়ার পরিকল্পনা রয়েছে। সরকারি সহায়তা পেলে আমরা এ গবেষণার পরিধি আরো বিস্তৃত করতে পারব।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads