• শুক্রবার, ১৮ অক্টোবর ২০১৯, ২ কার্তিক ১৪২৬
ads
সাংবাদিক জিনিয়াকে সাময়িক বহিষ্কার ও হয়রানির প্রতিবাদে জাবিতে মানববন্ধন

ছবি: বাংলাদেশের খবর

শিক্ষা

সাংবাদিক জিনিয়াকে সাময়িক বহিষ্কার ও হয়রানির প্রতিবাদে জাবিতে মানববন্ধন

  • জাবি প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের কর্মরত সাংবাদিক ও আইন বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী ফাতেমা তুজ জিনিয়াকে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন কর্তৃক বহিষ্কার ও হয়রানির ঘটনায় জড়িতদের শাস্তির দাবি জানিয়েে মানববন্ধন করেছে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মরত সাংবাদিকরা।

আজ বৃহস্পতিবার দুপুর সাড়ে ১২টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের অমর একুশের পাদদেশে এই মানবন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

'জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত সাংবাদিকবৃন্দ' ব্যানারে মানববন্ধনে প্রায় অর্ধশতাধিক সাংবাদিক অংশগ্রহণ করেন। মানববন্ধনে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রগতিশীল বাম ছাত্র সংগঠনের পক্ষ থেকেও সংহতি জানানো হয়।

মানববন্ধনে দ্য ডেইলি স্টারের বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি মো. আসাদুজ্জামান বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বাধীন সাংবাদিকতার কন্ঠরোধে প্রশাসন থেকে যতই চেষ্টা চালান, কালো আইন প্রণয়ন করেন আমরা সেটি মানবো না। আমরা কলম দিয়ে লেখি, কলম দিয়ে প্রতিবাদ জানাই। প্রয়োজনে জনগণ, রাষ্ট্রের স্বার্থে রাস্তায়ও নামতে জানি। 

তিনি বলেন, ফাতেমা তুজ জিনিয়াকে যে নির্যাতন করা হযেছে এর জন্য বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে নিঃস্বার্থ ক্ষমা চাইতে হবে। বহিষ্কারের সাথে জড়িত সকলকে শাস্তির আওতান আনতে হবে। 

দৈনিক বাংলাদেশের খবর পত্রিকার জাবি প্রতিনিধি শাহিনুর রহমান শাহীন বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন শিক্ষার্থীর সাথে উপাচার্যের এরকম বিমাতাসুলভ আচরণ কখনই কাম্য নয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের অভিভাবকের জায়গা তিনি কলঙ্কিত করেছেন। তিনি অশালীন ভাষা ব্যবহার করে শিক্ষার্থী জিনিয়াকে ব্যক্তিগত ও সামাজিকভাবে হেয় করেছেন। এছাড়া  লঘু পাপে গুরুদণ্ড দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন স্বেচ্ছাচারী মনোভাবের বহিঃপ্রকাশ দেখিয়েছে। আমরা জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ও সাংবাদিকদের পক্ষ থেকে এই ঘটনার তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি। 

সেই সঙ্গে তিনি অবিলম্বে শিক্ষার্থীকে হয়রানি করার মূলে যাদের মদদ ছিল অতিদ্রুত তাদেরকে আইনের আওতায় আনার জোরালো দাবি জানান।

মানববন্ধনে সংহতি প্রকাশ করে আরও বক্তব্য দেন সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক আরিফুল ইসলাম, জাহাঙ্গীরনগর সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি আশিকুর রহমান, সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট জাবি শাখার সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ দিদার প্রমুখ। 

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads