• শুক্রবার, ১৬ নভেম্বর ২০১৮, ২ অগ্রহায়ণ ১৪২৪
ads

কর্মসংস্থান

আরিচা মহাসড়কে যান চলাচল বন্ধ

পুলিশের সঙ্গে জাবি শিক্ষার্থীদের সংঘর্ষ

  • নিজস্ব প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত ০৯ এপ্রিল ২০১৮

কোটা সংস্কার আন্দোলনে হামলার ঘটনার প্রতিবাদে মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেছে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। এ সময় পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। সোমবার বেলা ১২টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের গেটের সামনে ঢাকা-আরিচা মহাসড়ক অবরোধ করে শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ শুরু করে। এর আধা ঘণ্টার পর পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে রাবার বুলেট ও কাঁদানো গ্যাস ছুড়ে বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করার চেষ্টা করে। তখন শিক্ষার্থীরাও পুলিশের দিকে ইট পাটকেল ছুড়তে থাকে। এ সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৫ থেকে ২০ শিক্ষার্থী আহত হন। আহতদের ৭-৮ জনকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। সংঘর্ষ শুরুর পরপরই ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।

সরকারি চাকরিতে নিয়োগে কোটা পদ্ধতি সংস্কারের দাবিতে বেশ কিছু দিন ধরে আন্দোলন চালিয়ে আসছে ‘বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ’। ১৪ মার্চ তারা ৫ দফা দাবিতে স্মারকলিপি দিতে সচিবালয় অভিমুখে যেতে চাইলে পুলিশি ধরপাকড় ও আটকের শিকার হন। তারপর নানা কর্মসূচি পালনের পর রোববার পদযাত্রার কর্মসূচি দিয়ে শাহবাগে অবস্থান নেয় তারা।

বেলা আড়াইটার দিকে পাবলিক লাইব্রেরির সামনে তারা সমবেত হয়।তারা সাড়ে চার ঘণ্টা গুরুত্বপূর্ণ শাহবাগ মোড় অবরোধ করে বিক্ষোভের পর রাত পৌনে ৮টার দিকে পুলিশ লাঠিপেটা ও রাবার বুলেট-কাঁদুনে গ্যাস ছুড়ে তাদের হটিয়ে দেয়। এরপর বিক্ষোভকাররীরা ছাত্রলীগের হামলার শিকার হয়। ওই ঘটনার প্রতিবাদে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে জড়ো হলে পুলিশের বাঁধার মুখে পড়ে।     

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর কাজী গেলাম মুর্তাজা বলেন, শিক্ষার্থীদের শান্ত করতে তিনি-সহ কয়েকজন শিক্ষক ঘটনাস্থলে যান। এ সময় পুলিশের রাবার বুলেটে প্রক্টর সিকদার মো.জুলকারনাইন আহত হন।

বিশ্ববিদ্যালয় চিকিৎসা কেন্দ্রের ডাক্তার তৌহিদ হাসান বলেন, প্রক্টরসহ ৪০ জনকে আহত অবস্থায় আনা হয়। তাদের প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে সাভারের এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads