• রবিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৭ আশ্বিন ১৪২৬
ads

পরিবেশ বিজ্ঞান

মঙ্গলের বাতাসের শব্দ শুনছে পৃথিবী!

  • প্রকাশিত ০৯ ডিসেম্বর ২০১৮

শোঁ শোঁ করে বইছে বাতাস, এমন লাইন আমরা হরহামেশাই পড়ে থাকি। যার মাধ্যমে বোঝা যায় পৃথিবীতে বাতাসের শব্দকে শোঁ শোঁ করেই সবার সামনে উপস্থাপন করা হয়। কিন্তু পৃথিবীর বাইরে অন্যান্য গ্রহে বাতাসের শব্দ কেমন সেটা কি কারো জানা আছে?

মনে হয় না তেমন কারো জানা আছে। কারণ, নভোচারীরাও যখন মহাকাশে যান, তখন বিশেষায়িত হেলমেটে মুখমণ্ডল ঢাকা থাকায় বাইরের কোন শব্দই তারা নিজ কানে শুনতে পান না।তাই এতোদিন ধরেই প্রায় অজানাই ছিলো পৃথিবীর বাইরে বাতাসের শব্দের বিষয়টি। তবে এবার সেই সমস্যার সমাধান করেছে নাসা থেকে মঙ্গল গ্রহে গবেষণার কাজে পাঠানো ল্যান্ডার মহাকাশযান ইনসাইট। লাল গ্রহের মাটিতে পা ছোঁয়ানোর ১০ দিনের মধ্যেই ইনসাইট ধারণ করেছে মঙ্গলের বুকে বয়ে যাওয়া বাতাসের শব্দ।

নাসার দেওয়া তথ্যানুযায়ী, গত ১ ডিসেম্বর মঙ্গলের উত্তর-পশ্চিম থেকে দক্ষিণ-পূর্ব প্রান্ত থেকে বাতাসের শব্দ রেকর্ড করে ইনসাইট। ইনসাইটের দুটি যন্ত্র এই শব্দ রেকর্ড করেছে। এর মধ্যে মহাকাশযানটির ভেতরে থাকা ‘অক্সিলিয়ারি পেলোড সেন্সর সাবসিস্টেম’ (এপিএসএস) এর একটি অংশ ‘এয়ার প্রেসার সেন্সর’ এই শব্দ ধারণ করে। বলে রাখা ভালো মঙ্গলের বুক থেকে মাটি তুলে আনবে এই এপিএসএস। আরেকটি যন্ত্র হচ্ছে ‘সাইসমিক এক্সপেরিমেন্ট ফর ইনটেরিয়র স্ট্রাকচার (এসইআইএস বা ‘সেইস’) বা সাইসমোমিটার’। যেটি ইনসাইট ল্যান্ডারের ‘ডেক’-এ অবস্থিত। ইনসাইটের রোবট হাত ওই ‘ডেক’টাকেই নামিয়ে দেবে মঙ্গলের মাটিতে। তার পর খোঁড়া হবে লাল গ্রহের মাটি। তখন ‘ডেক’-এ থাকা সাইসমোমিটার দেখতে শুরু করবে মঙ্গলের পিঠের নিচে এখনও কম্পন (মার্সকোয়েক) হয় কি না, হলে তার মান কত। জানা যায়, ইনসাইট ল্যান্ডার রেকর্ড করা বার্তাসমূহ রিলে করে পাসাডেনায় নাসার জেট প্রোপালসান ল্যাবরেটরিতে পাঠানোর পর তা পরীক্ষা করে নাসা দেখে মঙ্গলের বুকে বয়ে যাওয়া বাতাসের গতিবেগ ছিল ঘণ্টায় ১০ থেকে ১৫ মাইল বা সেকেন্ডে ৫ থেকে ৭ মিটার। যেখানে স্বাভাবিক চাপ ও তাপমাত্রায় সমতল এলাকায় আমাদের গ্রহে বাতাস বইতে থাকে গড়ে সেকেন্ডে ২০ মিটার গতিবেগের মধ্যে। তার মানে বোঝাই যাচ্ছে যে মঙ্গলের বাতাসের গতিবেগ পৃথিবীর চেয়ে কিছুটা পিছিয়ে।

মঙ্গলের বাতাসের শব্দ শুনতে চাইলে যেতে পারেন এই ঠিকানায় https://bit.lz/2BYj8bR

ইন্টারনেট অবলম্বনে মাসুদ রানা

 

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads