• সোমবার, ২২ অক্টোবর ২০১৮, ৭ কার্তিক ১৪২৫
ads
মালয়েশিয়ায় অবৈধ অভিবাসী ধরতে চিরুনি অভিযান শুরু

সংগৃহীত ছবি

প্রবাস

মালয়েশিয়ায় অবৈধ অভিবাসী ধরতে চিরুনি অভিযান শুরু

  • ডেস্ক রিপোর্ট
  • প্রকাশিত ৩১ আগস্ট ২০১৮

অবৈধ অভিবাসী ধরতে মালয়েশিয়ায় শুরু হয়েছে চিরুনি অভিযান। পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী অবৈধ অভিবাসীদের স্বেচ্ছায় আত্মসমর্পণের থ্রি প্লাস ওয়ান প্রোগ্রাম শেষ হয় গতকাল বৃহস্পতিবার রাত ১২টায়। এরপর থেকেই অবৈধ অভিবাসীদের আটক করতে তিন বাহিনীর সহায়তায় চিরুনি অভিযান চালানো হবে বলে ঘোষণা দিয়েছিল দেশটির ইমিগ্রেশন বিভাগ।

মালয়েশিয়ার ইমিগ্রেশন বিভাগের মহাপরিচালক দাতুক সেরি মুসতাফার আলী গতকাল দুপুরে পুত্রজায়ায় সাংবাদিকদের বলেন, অবৈধ অভিবাসীদের বাসস্থান ও কর্মক্ষেত্র চিহ্নিত করার জন্য রয়েছেন বিভিন্ন বাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ও স্থানীয় ব্যক্তিবর্গ। তাদের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে অভিযান পরিচালনা করবে অভিবাসন বিভাগ। এ ছাড়া পরিত্যক্ত ঘর, সেতুর নিচে ও জঙ্গলে অভিযান চালানো হবে। বিভিন্ন সময়ে অবৈধ অভিবাসী ধরা পড়ে ছাড়া পেলে কড়াকড়ি রয়েছে এবারের অভিযানে। সর্বোচ্চ ৫০ হাজার রিঙ্গিত জরিমানাসহ জেলের বিধান রয়েছে। তিন বাহিনীর সর্বাত্মক প্রচেষ্টায় মালয়েশিয়াকে অবৈধ অভিবাসীমুক্ত করা হবে বলে জানান অভিবাসন বিভাগের প্রধান।

অভিবাসীদের একত্রিত হতে দেখলেই অভিবাসন বিভাগের ফেসবুক পেজে অথবা টেলিফোন নম্বরে যোগাযোগ করতে বলা হয়েছে। তথ্যদাতাদের পরিচয় গোপন রেখে অভিযান পরিচালনা করা হবে। শুধু অবৈধ অভিবাসীর সন্ধানে নয় বরং তাদের মালিককেও আইনের মুখোমুখি করা হবে এবারের অভিযানে। গ্রেফতারকৃতদের বিচার না হওয়া পর্যন্ত কোনো প্রকার আউটপাস সংগ্রহ করতে দেওয়া হবে না বলে জানান মুসতাফার আলী।

তিনি আরো বলেন, ডিপার্টমেন্ট থেকে বারবার বলা হয়েছে থ্রি প্লাস ওয়ান প্রোগ্রামের সময়সীমা আর বাড়ানো হবে না। এরপরও যারা একগুঁয়ে আচরণ করে প্রোগ্রামের আওতায় ক্ষমা চায়নি তাদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

থ্রি প্লাস ওয়ান প্রোগ্রামের আওতায় গত ১ জানুয়ারি থেকে ১ লাখ ৮১ হাজার ৫২৯ অবৈধ অভিবাসীকে তাদের নিজ দেশে ফেরত পাঠিয়েছে মালয়েশিয়া। ১ লাখ ২ হাজার ৯০৪ জন মেয়াদোত্তীর্ণ হয়ে এই দেশে অবস্থান করছিলেন। এর মধ্যে ৭৮ হাজার ৬২৫ জনের কাছে বৈধ কাগজপত্র ছিল না।

মুসতাফার বলেন, অবৈধ অভিবাসী ধরতে গত আট মাসে দেশব্যাপী ৯ হাজার ৪৪৯টি অভিযান পরিচালিত হয়েছে। জানুয়ারির ১ তারিখ থেকে পরিচালিত এসব অভিযানে মোট ২৯ হাজার ৪০ অবৈধ শ্রমিক এবং ৮৭৯ নিয়োগকর্তাকে আটক করা হয়েছে।

মালয়েশিয়ায় কতজন অবৈধ অভিবাসী আছে তা সঠিকভাবে নির্ণয় করা না গেলেও পাঁচ লক্ষাধিক বলে বিশ্বাস করে ইমিগ্রেশন বিভাগ।  দেশটির ইমিগ্রেশন বিভাগের মহাপরিচালক জানান, ২০১৬ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত বৈধতার জন্য রেজিস্ট্রেশন (ফিঙ্গার প্রিন্ট) করেছেন বিভিন্ন দেশের মোট ৭ লাখ ৪৪ হাজার শ্রমিক।সঠিক প্রক্রিয়ায় কাগজপত্র জমা দিয়েছেন ৪ লাখ ৫০ হাজার শ্রমিক।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads