• বুধবার, ২২ মে ২০১৯, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫
ads
গবেষণা জটিল কোনো বিষয় নয়

ছবি : সংগৃহীত

মুক্তমত

গবেষণা জটিল কোনো বিষয় নয়

  • প্রকাশিত ১৬ মে ২০১৯

আমজাদ হোসাইন হ‍ৃদয়

 

দেশ ও জাতির উন্নয়নে গবেষণা একটি অন্যতম মাধ্যম। যে জাতি যত উন্নত, সে জাতির গবেষণাক্ষেত্রও তত সমৃদ্ধ। গবেষণা হচ্ছে নিজের চিন্তার জগৎকে বিস্তৃত করা। পৃথিবীতে যত বড় বড় আবিষ্কার তা এসেছে আমার আপনার মতো অন্য কোনো মানুষের মস্তিষ্ক থেকে। তারা বিস্তৃত করেছিল চিন্তার জগৎকে এবং উদ্যমী ছিল নতুন কিছু সৃষ্টির।

আমি-আপনি চাইলেও গবেষণা করতে পারি। এটুকু নিশ্চিত যে, গবেষণা করতে বিরাট কোনো ডিগ্রিধারী হতে হয় না। আমরা সবাই প্রাত্যহিক জীবনে ছোট ছোট গবেষণা করে যাচ্ছি এবং আমরা প্রত্যেকে এর থেকে বড় বড় গবেষণা করতেও সক্ষম। গবেষণা করার জন্য কোনো নির্দিষ্ট শ্রেণি, বয়স বা শিক্ষাগত যোগ্যতা লাগে না; বরং লাগে কেবল ধৈর্য আর একটি ইন্টারনেট কানেকশন। এই দুটি জিনিস থাকলে যে কেউ পৃথিবীর যে কোনো প্রান্তে বসে গবেষণা করতে পারে। ব্যক্তিগত গবেষণা করে নিজের জন্য যা সত্য আর নিজের জন্য যা সুবিধা তা বের করে আনতে পারে, আর আরেকটু ঘরের খেয়ে বনের মোষ তাড়ানোর শখ থাকলে সামাজিক সমস্যারও সমাধান করতে পারে।

আপনি যদি একটু লক্ষ করেন, তাহলে দেখতে পাবেন— কোন পথে গেলে আপনার জন্য উত্তম, কোন যানবাহনে গেলে আপনার জন্য ভালো, কীভাবে গেলে এই পথটি সহজে অতিক্রম করা যায়, আপন মানুষকে খুশি করার জন্য কোন উপায় অবলম্বন করা যায় ইত্যাদি যে চিন্তা-ভাবনা প্রতিনিয়ত করে থাকেন, প্রকৃতপক্ষে এটাও একটি গবেষণা। আপনি যদি আপনার চিন্তার জগৎকে আরো বিস্তৃত করেন, তাহলে নতুন কিছু জানতে পারবেন, নতুন কিছু তৈরি করতে পারবেন।

সারা পৃথিবীর মানুষের মনে একধরনের অবিশ্বাস কাজ করছে আর এই অবিশ্বাস এসেছে বর্তমান অস্থির আধুনিকতার ঘাড় ডিঙিয়ে উপস্থিত হওয়া উত্তরাধুনিক যুগের হাত ধরে। এই অবিশ্বাসের যুগে আমাদের মুক্তির একমাত্র পথ হলো নিজের সত্যের সংজ্ঞা, নিজের মুক্তির সংজ্ঞা নিজেকেই খুঁজে নেওয়া। একটি দেশ অন্য একটি দেশকে ডিঙিয়ে যাওয়ার জন্য নিত্যনতুন আবিষ্কার করছে। আর এই আবিষ্কার ততই সমৃদ্ধ হচ্ছে, যত তাদের গবেষণাক্ষেত্র সমৃদ্ধ হচ্ছে। নিজের প্রতিভা বিশ্বকে জানান দেওয়ার অন্যতম মাধ্যম হচ্ছে গবেষণা।

একটি পরিসংখ্যান থেকে গবেষণাক্ষেত্রে বাংলাদেশের পিছিয়ে থাকার গল্প উঠে আসে। সেখান থেকে পাওয়া তথ্যমতে— চীন, জাপান, জার্মানি, রাশিয়া এবং আমেরিকার মতো উন্নত দেশগুলো রয়েছে গবেষণা কাজের ক্ষেত্রে প্রথম দিকের সারিতে এবং বাংলাদেশের অবস্থান একদম শেষের দিকে। আসলে দেশ ও জাতির উন্নয়নে এবং যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলতে হলে নতুন উদ্ভাবনী তথা গবেষণার কোনো বিকল্প নেই। সরকারিভাবে গবেষণা খাতে বিশেষভাবে নজর দেওয়া সময়ের দাবি।

সর্বোপরি নিজেকে এবং দেশকে এগিয়ে নিতে গবেষণার বিকল্প নেই। আমরা শিক্ষার্থীরা যে সময়টি হেলায়-ফেলায় কাটিয়ে দিই; সে সময়টিতে যদি গবেষণায় নিয়োজিত হতে পারি, তাহলে নিজের জ্ঞানভান্ডার সমৃদ্ধের পাশাপাশি দেশের উন্নয়নেও ভূমিকা রাখতে পারি। আসুন নিজে গবেষণা করি, গবেষণা পরিষদ তৈরি করি এবং অন্যকে গবেষণায় আগ্রহী করে তুলি। আর এভাবেই এগিয়ে যাবে আমাদের প্রিয় মাতৃভূমি বাংলাদেশ।

 

লেখক : সদস্য, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় গবেষণা সংসদ

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads