• বুধবার, ২১ নভেম্বর ২০১৮, ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৪
ads

ছবি : সংগৃহীত

স্বাস্থ্য

ভেষজে সুরক্ষিত জীবনযাপন

  • ফয়জুন্নেসা মণি
  • প্রকাশিত ২১ এপ্রিল ২০১৮

ভেষজের অনেক গুণ। তথ্য টিপস জানা থাকলে সহজলভ্য ভেষজ উপাদান ব্যবহার করে প্রাকৃতিক সুরক্ষা পাওয়া যায়। ব্যবহারবিধি জানা থাকলে ঘরেই আছে আপনার ডাক্তার। সাধারণত ছোটখাটো সমস্যায় দৌড়ে ডাক্তারের শরণাপন্ন হতে হয় না।

যেমন কাঁচা পেঁয়াজ খেলে ঠান্ডা লাগার ভয় থাকে না। রক্তচাপে যারা ভুগছেন তাদের জন্য কাঁচা পেঁয়াজ উপকারী। দাঁত দিয়ে রক্ত পড়লে সরষের তেলে লবণ মিশিয়ে ঘষুন। উপকার পাবেন। জন্ডিসে গাজরের রস উপকারী। গাজরের রস অম্বলের জ্বালা থেকেও বাঁচায়। বমি বমি ভাব হলে জিরা চিবিয়ে খান। খুব বমি হলে আদা ও পেঁয়াজের রস সমপরিমাণে মিশিয়ে দু-চামচ করে খেলে উপশম হবে। বাচ্চাদের পেট পরিষ্কার না হলে এক চামচ অলিভ অয়েল খাইয়ে দেবেন। পেট পরিষ্কার তো হবেই পুষ্টিকরও বটে। চুলকানি হলে অল্প নারকেলের তেলে কয়েক ফোঁটা লেবুর রস মিশিয়ে লাগান। দাদ হলে তুলসীর ঘন রস লাগান। দু-তিন দিনেই উপকার আসবে। রক্তস্বল্পতায় পালং শাকের রস খেতে পারেন। মুলার রস টনসিলের পক্ষে উপকার। মুলার রসে বিটনুন দিয়ে গরম করে গার্গল করবেন।

ডায়াবেটিস রোগীরা নিয়মিত মেথি পাতা খেতে পারেন। হিক্কা উঠলে সমপরিমাণে মধু ও লেবুর রসে বিটনুন মিশিয়ে চেটে খান। পেটব্যথা করছে? পেয়ারাপাতা মিহি করে বেটে খান। কচি পেয়ারা পাতার রস দাঁত ব্যথাতেও খুব ভালো কাজ দেয়। মাড়ি ব্যথা হলে এককাপ জলে পেয়ারাপাতা ফুটিয়ে কুলকুচি করলে উপকার পাবেন। হাত-পা বেশি ঘামলে বেগুন থেঁতো করে হাতে ঘষুন। কাঁচা পেঁয়াজ রক্তস্বল্পতা কমায়, রাতের ঘুম বাড়ায়।

 

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads