• বৃহস্পতিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২১ কার্তিক ১৪২৪
ads

ছবি: ইন্টারনেট

স্বাস্থ্য

দিনে কত কাপ কফি?

  • ফয়জুন্নেসা মণি
  • প্রকাশিত ২৮ এপ্রিল ২০১৮

দিনে কত কাপ কফি নিরাপদ? এমন প্রশ্নের জবাবে গবেষকরা বলছেন, এক কাপ পরিমাণ চায়ে প্রায় ৩০ থেকে ১০০ গ্রাম ক্যাফেইন রয়েছে, যেখানে এক কাপ ইনস্ট্যান্ট কফিতে আছে ৬০ থেকে ১০০ গ্রাম এবং এসপ্রেসো কফিতে ৪০ থেকে ৯০ গ্রাম। বিজ্ঞানীরা বলছেন, দৈনিক দুই থেকে তিন কাপ কফি পান আসলে খারাপ নয়। তাছাড়া কফিতে আছে ফ্ল্যাভনয়েড, যা অ্যান্টি অক্সিডেন্ট হিসেবে কাজ করে এবং বিভিন্ন ক্যানসার, ডায়াবেটিস ইত্যাদির ঝুঁকি কমায়। ক্যাফেইন ব্যথা কমাতে সহায়ক, ঠান্ডা লাগলে শ্বাসনালি প্রসারিত করতে সাহায্য করে এবং ঘুম তাড়ায়, মেজাজ ভালো রাখে। তাই কফিকে যতটা খারাপ ভাবা হয়, এটি তত খারাপ নয়।

স্বাস্থ্যবিষয়ক নির্দেশিকা অনুসারে শরীরে খুব বেশি হলে দৈনিক ৪০০ মিলিগ্রাম ক্যাফেইন নেওয়া যেতে পারে। যুক্তরাজ্যের দ্য গ্লেন হাসপাতাল ব্রিসটলের কনসালট্যান্ট সার্জন এবং ওজন কমানোর বিশেষজ্ঞ স্যালি নরটন ক্যাফেইন গ্রহণের সুবিধা-অসুবিধা সম্পর্কে বলেছেন, দৈনিক পাঁচ কাপের বেশি কফি খেলে গর্ভধারণের ক্ষমতা কমে যেতে পারে। দৈনিক ২০০ মিলিগ্রাম ক্যাফেইন শরীরে গেলে গর্ভের শিশুর ক্ষতি হওয়ার পাশাপাশি জন্মত্রুটি হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। গবেষণায় প্রমাণিত হয়েছে, যারা দিনে তিন কাপের বেশি কফি পান করেন তাদের শান্তির ঘুম খুব কমই হয়। আরেক গবেষণায় দেখা গেছে, যারা কফি খান না তাদের থেকে কফি পানকারীদের ৭৯ মিনিট কম ঘুম হয়। তাই ঘুমের সমস্যা থাকলে কফিকে না বলুন।

কিছু গবেষণায় দেখা গেছে, ক্যাফেইন হূৎপিণ্ডের রক্ত সরবরাহকারী ধমনিতে রক্ত চলাচল ধীর করে দেয়। বুক ধড়ফড়ানি, অনিয়মিত হূদস্পন্দন বা উচ্চ রক্তচাপের জন্যও শরীরের অতিরিক্ত ক্যাফেইন দায়ী। ক্যাফেইন শরীরের অ্যাড্রেনালিন নামক একধরনের হরমোনের মাত্রা বাড়ায়। যে কারণে শরীরের টানটান উত্তেজনা বা ঘাবড়ে যাওয়ার অনুভূতির মাত্রা বাড়িয়ে দেয়।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads