• বুধবার, ১২ ডিসেম্বর ২০১৮, ২৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৫
ads
ঘুমের মধ্যেই শরীরের মেদ কমান

ঘুমের বিভিন্ন নিয়ম ও তার আগে পরের কিছু অভ্যাসই মেদ কমাতে সাহায্য করবে

সংগৃহীত ছবি

স্বাস্থ্য

ঘুমের মধ্যেই শরীরের মেদ কমান

  • ফিচার ডেস্ক
  • প্রকাশিত ১১ অক্টোবর ২০১৮

ঘুমিয়ে কি শরীরের ওজন কমানো সম্ভব? আমারা অনেকেই মনে করি ঘুমানো মানে সময় নষ্ট। সেই সময়টা বরং একটু কাজ করলে জীবনে অনেক উন্নতি করা সম্ভব। এমন ভাবনা শুধু ভয়ঙ্করই নয় শরীরের পক্ষে ক্ষতিকরও বটে। কারণ ঘুমের পরিমাণ আপনার হরমোনের ওপর প্রভাব ফেলে। আবার রাতে ঘুম কম হলে বা ঘুম না হলে খাওয়ার প্রবণতাও বৃদ্ধি পায়।আর এই অতিরিক্ত ক্যালোরি শরীরের মেদ বাড়ায়। এছাড়া আধুনিক জীবনযাত্রা ও পরিবর্তিত খাদ্যাভ্যাসের মিশেলে শরীরে রোজই জমছে অতিরিক্ত মেদ। সময়ের অভাব অথবা আলস্যের কারণে নিয়মিত শরীরচর্চাও করা হয়ে ওঠে না অনেকের। আর তাই অতিরিক্ত মেদ ঝরাতে চিন্তার শেষ থাকে না। কিন্তু বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ঘুমের মধ্যেই নাকি রয়েছে মেদ ঝরানোর উপায়!

ঘুমানোর সময়েই শরীরের মেটাবলিজম রেট সবচেয়ে বেশি থাকে। তাই এই সময়টা ওজন কমানোর জন্য মোক্ষম বলে মনে করেন বিশেষজ্ঞরা। ঘুমের বিভিন্ন নিয়ম ও তার আগে পরের কিছু অভ্যাসই কমিয়ে দেবে মেদ। আসুন জেনে নেই সেই অভ্যাসগুলো সম্পর্কে -


** সঠিক ভাবে ঘুমাতে যাওয়ার অভ্যাস শরীরের মেদ কমাতে খুব সাহায্য করে। নির্দিষ্ট একটা বায়োলজিক্যাল ক্লক মেনে চললে শরীরের মেটাবলিজম রেট নিয়ন্ত্রণে থাকে। অন্তত ৭-৮ ঘণ্টা টানা ঘুমানো প্রয়োজন।

** ঘুমের সময় মেদ কমাতে চাইলে ঘুমানোর আগে হালকা কিছু খান। প্রোটিন শেক বা এমন কোনও পানীয়, যা শরীরকে পুষ্টি দেওয়ার পাশাপাশি হালকা রাখে।

**ঘুমের আগে অনেকেই ঘর অন্ধকার করেন, কিন্তু জ্বালিয়ে রাখেন নাইট ল্যাম্প। চিকিৎসকের পরামর্শ, নাইট ল্যাম্পও নিভিয়ে দিন। সম্পূর্ণ অন্ধকারে ঘুমালে শরীরে ক্যালোরি বার্ন বেশি হয়।

** ঘুমানোর আগেই মোবাইল বা ল্যাপটপ থেকে সরে আসুন। মোবাইল, টিভি ও ল্যাপটপের স্ক্রিন থেকে আসা নীল আলো শরীরে মোলাটোনিন হরমোনের উৎপাদন বন্ধ করে দেয়। মেলাটোনিন ক্যালোরি বার্ন করার অন্যতম প্রধান উপাদান। এই মেলাটোনিনের পর্যাপ্ত জোগান না থাকলে মেদ কোনও দিনই কমবে না। তাই ঘুমনোর আগে মোবাইল-ল্যাপটপ-ভিডিও গেম থেকে দূরে থাকুন।

** হালকা এসি চালিয়ে ঘুমান, বাড়িতে এসি না থাকলে ঘুমানোর আগে গরম পানিতে গোসল করে নিন। মাথা বাদ দিলেও শরীরটুকু ভেজান। পাখা চালিয়েই ঘুমান। ঘুমের মাঝে নিজেকে গরম রাখতে শরীর নিজেই বেশি ক্যালোরি খরচ করে। এতে মেদ কমে সহজে। তবে সর্দি-কাশির অসুখ থাকলে এই অভ্যাসটি এড়িয়ে যান।

** কখন ঘুমাতে যাবেন যেমন গুরুত্বের, তেমনই কিন্তু কখন রাতের খাবার সারছেন সে দিকেও নজর রাখা দরকার। সহজেই মেদ ঝরাতে গেলে শোওয়ার অন্তত দু’ঘন্টা আগে রাতের খাবার সেরে নিন৷ পাশাপাশি রাতের খাবারটাও হালকা রাখুন৷ তাহলে সরাসরি ফ্যাট জমে না শরীরে।

** নরম ও হালকা পোশাকে ঘুমান। আঁটসাঁট পোশাকে রক্ত চলাচলে ব্যাঘাত হয়। আবার ভারী ও ঢাকা পোশাক থাকার ফলে নিজেকে গরম রাখতে শরীরকে খুব একটা শ্রম করতে হয় না, ফলে ক্যালোরি বার্নও কম হয়। তাই ঘুমের মধ্যেও শরীরের ক্যালোরি কমাতে চাইলে বেছে নিন হালকা পোশাক।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads