• মঙ্গলবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২ আশ্বিন ১৪২৫
ads
মলত্যাগ সমস্যায় সাবধান হোন

ছবি : সংগৃহীত

স্বাস্থ্য

মলত্যাগ সমস্যায় সাবধান হোন

  • প্রকাশিত ২০ ডিসেম্বর ২০১৮

মলত্যাগে জটিলতা একটি অতিসাধারণ সমস্যা। প্রত্যেক মানুষই জীবনের কোনো না কোনো সময় মলত্যাগের সমস্যায় ভুগে থাকেন। কখনো হয়ে পড়ে কোষ্ঠকাঠিন্য, কখনো অনিয়মিত, কখনো ডায়রিয়া, আমাশয়; মলত্যাগের সময় ব্যথা, কালো মল, ইত্যাদি। দুর্ভাগ্যবশত বেশিরভাগ মানুষেরই মলের সমস্যা, যেমন— রক্ত যাওয়াসহ আরো কিছু সমস্যা পাইলস বলে ধরে নেন। কিন্তু পাইলস ছাড়া আরো বিভিন্ন কারণে মলত্যাগের সমস্যা হতে পারে। এর মধ্যে অন্যতম হলো রেক্টাল ক্যানসার (পায়ুপথের ক্যানসার)। এটি মরণব্যাধি হলেও একটু সচেতন হলে প্রাথমিক পর্যায়ে রোগটি নির্ণয় করা যায়। যথাযথ চিকিৎসার মাধ্যমে রোগীকে পুরোপুরি সুস্থ করে তোলা যায়।

সাধারণত ৪০ বছর বয়সের পর এ রোগ হয়ে থাকে। লক্ষণের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো— মলের সঙ্গে রক্ত বা কালো মল আসতে পারে। মলের সঙ্গে মিউকাস বা আম যেতে পারে। রোগীর মলত্যাগের অভ্যাস বদলে যেতে পারে। যেমন— আগে একবার মলত্যাগ করা হলেও এখন কয়েকবার হয়, একবার পাতলা, একবার কষা মল হতে পারে। কোষ্ঠ পরিষ্কার না হতে পারে। রোগী টয়লেট থেকে আসার পর আবার টয়লেটে যায়। কিন্তু কোনো মল আসে না। তলপেটে চিপে চিপে ব্যথা হতে পারে ইত্যাদি। এসব হলে একেবারেই দেরি না করে একজন কলোরেক্টাল সার্জনের শরণাপন্ন হতে হবে। কারণ কোলন ও রেক্টাল ক্যানসার অর্থাৎ অন্ত্র ও পায়ুপথের ক্যানসার প্রাথমিক পর্যায়ে সম্পূর্ণ নিরাময়যোগ্য। কিন্তু দেরি হলে তেমন কিছু করার থাকে না। বলা যায়, আমরা বসে থাকলেও ক্যানসার বসে থাকে না। সময় এবং নদীর স্রোত যেমন কারো জন্য অপেক্ষা করে না, তেমনি শরীরের মধ্যে রোগ থাকলে তা ক্রমে বাড়তেই থাকে। তাই মলত্যাগের সময় কোনো ধরনের সমস্যা অনুভূত হলে চিকিৎসা নিন এবং সুস্থ থাকুন।

লেখক : পাইওনিয়ার কলোরেক্টাল সার্জন

অধ্যাপক ডা. এসএমএ এরফান

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads