• শনিবার, ২৪ আগস্ট ২০১৯, ৯ ভাদ্র ১৪২৫
ads
শরীরের হরেক সমস্যায় কার্যকরী কালমেঘ

ছবি : সংগৃহীত

স্বাস্থ্য

শরীরের হরেক সমস্যায় কার্যকরী কালমেঘ

  • ফিচার ডেস্ক
  • প্রকাশিত ০১ আগস্ট ২০১৯

আগে গ্রামের অনেকের বাড়িতে এবং বাড়ির আশপাশে দেখা মিলত ঔষধি গুণে ভরা কালোমেঘের। অনেকটা মরিচগাছের পাতার মতো কালো পাতাযুক্ত শক্ত গাছ। ছোট ছোট ফুল ধরে। পরে তা থেকে সরু ফল হয়। ফল থেকে সরিষার মতো ক্ষুদ্র বীজ হয়। বীজ ভেজা মাটিতে লাগালে তা থেকে চারা হয়। কালোমেঘ পাতার নানা রকম উপকারিতার কথা জানা যায়। তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য কয়েকটি ঔষধি গুণ তুলে ধরা হলো-

-কালমেঘ পাতা রক্তকে পরিশুদ্ধ করার ক্ষমতা রাখে। এছাড়া এতে প্রচুর পরিমাণে এন্টিঅক্সিডেন্ট থাকে। ফলে আমাদের ত্বকের নানারকম সমস্যার ক্ষেত্রে কালমেঘ পাতা অত্যন্ত কার্যকরী। এছাড়া কালমেঘ পাতা আমাদের শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে তুলতে সাহায্য করে।

-লিভারজনিত যে কোনো রকম সমস্যার অব্যর্থ ওষুধ এই কালমেঘ পাতা। এটি লিভার টনিক হিসেবে ব্যবহূত হয়। অতিরিক্ত মদ্য পান বা অতিরিক্ত কড়া ওষুধ দীর্ঘদিন সেবন করলে আমাদের লিভার ক্ষতিগ্রস্ত হয়। কালোমেঘ পাতা এর নিরাময়ক হিসেবে কাজ করে। এছাড়া আজকাল আমাদের খাদ্যাভ্যাস বা ফল ও সবজিতে ব্যবহূত পেস্টিসাইড আমাদের লিভারকে খারাপ করে দেয়। কালোমেঘের নিয়মিত সেবন এই সমস্যার সব থেকে ভালো সমাধান।

-কালমেঘ পাতা আর্থারাইটিস ও গাউট-এর ওষুধ হিসেবেও ব্যবহূত হয়। ১৫ থেকে ২০টি কালমেঘ পাতার রস করে প্রতিদিন খেলে আর্থারাইটিস বা গাউট-এর সমস্যা থেকে দূরে থাকা যেতে পারে।

-ছোট বাচ্চাদের ডায়রিযা বা গ্যাস, খিদে কমে যাওয়া ইত্যাদি নানা রকম রোগের ক্ষেত্রে কালমেঘ পাতার রস ওষুধ হিসেবে কাজ করে। এছাড়া কৃমি হলেও শিশুদের কালমেঘ পাতার রস খাওয়ানো হয়।

-কালমেঘ পাতা ডায়াবেটিসের অব্যর্থ ওষুধ। এটি আমাদের শরীরে ব্লাড সুগারের পরিমাণকে কম রাখতে সাহায্য করে। তবে ডাক্তারের পরামর্শ মতোই এক্ষেত্রে এর সেবন করা উচিত।

-কালমেঘ ক্যানসার নিরাময়ের ক্ষেত্রেও অত্যন্ত উপকারী। এর ঔষধি গুণ আমাদের শরীরে ক্যানসারের কোষগুলোকে সক্রিয় হতে দেয় না বা ক্যানসারের কোষগুলোকে বাড়তে দেয় না।

-জ্বর, সর্দি, কাশি, গলা ব্যথা, গলা বসে যাওয়া, টন্সিলাইটিস ইত্যাদি ক্ষেত্রে ওষুধ হিসেবে ব্যবহূত হয়। কালমেঘ পাতা ভালো করে ধুয়ে হালকা গরম জল মিশিয়ে ছাঁকনিতে ছেঁকে নিতে হবে। এই কালমেঘ পাতার রস যে কোনো রকম ঠান্ডা লাগাজনিত রোগ খুব তাড়াতাড়ি সারিয়ে তুলতে সাহায্য করে। তবে এর স্বাদ অত্যন্ত তিতকুটে, তাই রস খাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে এক চামচ মধু খেয়ে নিলে ভালো।

-যে কোনো রকম জ্বর বা ক্রনিক ফিভার বা ভাইরাল ফিভার আমাদের শরীরকে খুব দুর্বল করে দেয়। এছাড়া এই সমস্ত রকম জ্বর আমাদের লিভারকে ক্ষতিগ্রস্ত করে। কালমেঘ পাতার রস আমাদের এই সব রকম জ্বরের ফলে হওয়া শারীরিক দুর্বলতা কাটিয়ে উঠতে সাহায্য করে।

-আলসার প্রতিরোধক হিসেবে কালমেঘ পাতার রস খাওয়া হয়। কালমেঘ পাতা হজম ক্ষমতা বাড়িয়ে তুলতে সাহায্য করে। এছাড়া এর নিয়মিত সেবন আমাদের শারীরিক শক্তি ও কর্মক্ষমতা বাড়িয়ে তুলতে সাহায্য করে। অনিয়মিত মাসিকের সমস্যা বা এর থেকে হওয়া নানা রকম অবাঞ্ছিত সমস্যার ক্ষেত্রে কালমেঘ পাতার রস উপকারী।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads