• সোমবার, ৯ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
যমুনায় নৌকাবাইচ দেখতে লাখো মানুষের ঢল

যমুনার ঐতিহ্যবাহি নৌকাবাইচ

প্রতিনিধির পাঠানো ছবি

ইতিহাস-ঐতিহ্য

যমুনায় নৌকাবাইচ দেখতে লাখো মানুষের ঢল

  • সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত ১০ অক্টোবর ২০১৯

ঢাক-ঢোলের তালে গ্রাম বাংলার গান আর বৈঠার ছন্দ মাতিয়ে তুলেছিল যমুনার ঢেউকে। আর সেই ছন্দে তাল মিলিয়ে নদীর তীরে সিরাজগঞ্জের লাখ লাখ শিশু-কিশোর-কিশোরী এমনকি বয়োবৃদ্ধ পর্যন্ত নেচে-গেয়ে নৌকাবাইচ উপভোগ করেছেন।

গত বছরের ন্যায় এ বছরও সিরাজগঞ্জের মানুষকে একটু নির্মল আনন্দ-বিনোদন এবং গ্রাম-বাংলার ঐতিহ্য ধরে রাখতে আজ বৃহস্পতিবার বিকেলে জেলা পরিষদ নদীর শহররক্ষা বাঁধ হার্ডপয়েন্টে নৗকা বাইচের আয়োজন করেন। বাইচ শুরুর আগে বিকেল তিনটা থেকে নদী তীর মানুষে ভরে যায়। শুধু সিরাজগঞ্জ জেলা নয় আশপাশের কয়েকটি জেলা থেকেও হাজার হাজার বিনোদনপ্রেমীরা নৌকা বাইচ দেখতে এসেছিল। সিরাজগঞ্জ, টাঙ্গাইল, পাবনা, সরিষাবাড়ি ও জামালপুরসহ বিভিন্ন জেলার নৌকার বাইসালরা নৌকা প্রতিযোগীতায় ‘পানসি, কোষা, ছিপ, খেলনা ও সরঙ্গা মিলে মোট ৩০টির মতো নৌকা অংশগ্রহন করেন। শেষে সন্ধ্যায় বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার হিসেবে ফ্রিজ-টেলিভিশন তুলে দেয়া হয়। নৌকা বাইচ দেখতে পেয়ে সবাই বিপুল আনন্দ উপভোগ করেছে। নৌকা বাইচকে কেন্দ্র করে যমুনার তীরবর্তী এলাকায় ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা নানা-পসরা সাজিয়ে বসেছিল।

নৌকা বাইচ দেখতে আসা বয়োবৃদ্ধ আবুল কাশেম জানান, আগে প্রচুর নৌকা বাইচ হতো। কিন্তু ইদানিং তা হারিয়ে যাচ্ছে। তাই একটু আনন্দ উপভোগ করার জন্য নৌকা বাইচ দেখেতে এসেছি।

শিশু তানিম জানান, বাবার সাথে নৌকা বাইচ দেখতে এসেছি। খুব মজা করলাম। সকলেই প্রতিবছর যমুনায় নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতার দাবী জানিয়েছেন।

সিরাজগঞ্জ পুলিশ সুপার টুটুল চক্রবর্তী জানান, বিনোদনপ্রেমী মানুষ যাতে সুন্দরভাবে নৌকা বাইচের আনন্দ উপভোগ করতে পারে এ জন্য পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়েছিল বলে জানালেন পুলিশ সুপার।

জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আব্দুল লতিফ বিশ্বাস জানান, যমুনা বিধৌত সিরাজগঞ্জ জেলার মানুষকে বন্যা পরবর্তীতে নির্মল বিনোদন এবং গ্রাম বাংলার ঐতিহ্য ধরে রাখার জন্যই এ ধরনের আয়োজন করা হয়েছে। এছাড়াও বাংলাদেশের ঐতিহ্যবাহী সংগঠন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের নির্বাচনী প্রতীক নৌকা। তাই নৌকার ঐতিহ্য ধরে রাখাই নৌকা বাইচের আয়োজন।

সংসদ সদস্য ডা. হাবিবে মিল্লাত মুন্না জানান, সন্ত্রাস, মাদক ও জঙ্গীমুক্ত দেশ গড়তে খেলাধুলা ও বিনোদনের বিকল্প নেই। যুব সমাজকে মাদক ও সন্ত্রাস থেকে বিরত রাখতে পারে সুস্থধারার সংস্কৃতি ও বাংলার ঐতিহ্য খেলাধুলা। আর এ কারণেই বাংলার ঐতিহ্য নৌকা বাইচের আয়োজন। আজ লক্ষ লক্ষ মানুষ নৌকা বাইচ দেখতে যমুনা পাড়ে উপস্থিত হয়েছে। তাদের মনে আনন্দে বইছে। বিশেষ করে শিশুরা বাংলার ঐতিহ্যবাহী নৌকা বাইচ সম্পর্কে জানতে পারছে।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads