• রবিবার, ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৩১ ভাদ্র ১৪২৫
ads
নতুন পথে ইরিনা শায়েক

ছবি : সংগৃহীত

হলিউড

নতুন পথে ইরিনা শায়েক

  • বিনোদন ডেস্ক
  • প্রকাশিত ১৩ জুন ২০১৯

হলিউডের জনপ্রিয় অভিনেত্রী ও রুশ মডেল ইরিনা শায়েক  হলিউড তারকা ব্র্যাডলি কুপারের সঙ্গে চার বছর একসঙ্গে ছিলেন। তাদের একমাত্র কন্যা লে ডি শাইন। গত বছর মার্চ মাসে তারা বাবা-মা হয়েছেন। এখন এই সুখের পরিবারে ধরেছে ভাঙন। হঠাৎ করেই ৪৪ বছর বয়সের ব্র্যাডলি কুপার আর ৩৩ বছরের ইরিনা শায়েক আনুষ্ঠানিকভাবে আলাদা হওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

জানা গেছে, ব্র্যাডলি কুপারের লস অ্যাঞ্জেলেসের বাড়ি থেকে যখন ইরিনা শায়েক চলে যান, তখন মেয়েকে সঙ্গে নিয়ে গেছেন। এখন মেয়ের দায়িত্ব ভাগাভাগি করার জন্য তারা আইনি সহায়তা নেবেন। পিপল ডটকম জানিয়েছে, অনেক দিন থেকেই তাদের সম্পর্ক খুবই শীতল ছিল। কয়েক মাস ধরে তারা একেবারেই ভালো ছিলেন না। বলা যায়, তাদের এই সম্পর্ক শুধু ঝুলে ছিল। শেষ পর্যন্ত ইরিনা শায়েক নিজেই তা ভাঙার সিদ্ধান্ত নেন। কারণ তার কাছে মনে হয়েছে, এখন আর এই সম্পর্ক টিকিয়ে রাখার কোনো মানে হয় না।

এ ঘটনা অবশ্য নতুন নয়। এর আগেও একবার ব্র্যাডলি কুপার আর ইরিনা শায়েকের সম্পর্কে ভাঙন ধরেছিল। ২০১৫ সালের মে মাসে পিটিআই জানায়, ব্র্যাডলি কুপার আর ইরিনা শায়েকের প্রেমের সম্পর্ক টিকল মাত্র ৯ মাস। আর তখন যুক্তরাজ্যের ডেইলি মিরর জানিয়েছে, ব্র্যাডলির মা আর ইরিনা শায়েকের মধ্যে কয়েকবার ঝগড়া হয়েছে। পরিস্থিতি একসময় আরো খারাপের দিকে চলে যায়। শেষে এই দুজনের যন্ত্রণায় বিরক্ত হয়ে ব্র্যাডলি কুপার তার প্রেমিকা ইরিনার সঙ্গে সম্পর্কের ইতি ঘটিয়েছেন।

এদিকে আরেকটি খবর থেকে জানা যায়, ‘সিলভার লাইনিংস প্লেবুক’ তারকা ব্র্যাডলি কুপার একসময় জীবনের প্রতি বিরক্ত হয়ে আত্মহত্যা করতে চেয়েছিলেন। ছয় বছর আগে ‘জিকিউ’ ম্যাগাজিনে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তা জানিয়েছিলেন এই মার্কিন অভিনেতা। সেই সাক্ষাৎকারে ব্র্যাডলি কুপার বলেছেন, ‘হলিউডে অভিষেকের আগে খুবই খারাপ সময়ের মধ্য দিয়ে যাচ্ছিলাম। জীবনের প্রতি রীতিমতো বিরক্ত হয়ে পড়েছিলাম। ২০০২ সালে ‘অ্যালিয়াস’ টিভি সিরিজে আমার চরিত্রটিকে কেটেছেঁটে একেবারে গুরুত্বহীন করে ফেলা হয়। তখন জীবনটাকে খুব তুচ্ছ মনে হচ্ছিল। একটা পর্যায়ে আত্মহত্যাও করতে চেয়েছিলাম আমি।’

নতুন সম্পর্কের ভাঙন নিয়ে ইরিনা শায়েক এখন পর্যন্ত মুখ খোলেননি। নিন্দুকেরা বলছেন, আলাদা হওয়াটা কুপার আর ইরিনার স্বভাব হয়ে দাঁড়িয়েছে। দেখা যাবে, কয়েক মাস পর আবার তারা মিলিত হবেন। যেমন ছিলেন তেমনি আবার একসঙ্গে থাকবেন।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads