• শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২১ কার্তিক ১৪২৪
ads
‘সিনড্রেলা’ থেকে ‘এলি’

ছবি : সংগৃহীত

হলিউড

‘সিনড্রেলা’ থেকে ‘এলি’

  • বিনোদন ডেস্ক
  • প্রকাশিত ০৮ জুলাই ২০১৯

হলিউডে মুক্তিপ্রাপ্ত রোমান্টিক কমেডি ‘ইয়েসটারডে’ ছবিটি সুপারহিট হয়েছে। টানা দুই সপ্তাহ ধরে ছবিটি হলিউডের সেরা পাঁচে অবস্থান করছে। আর এ ছবিতে অভিনয় হলিউডে আবার নতুন করে লাইমলাইটে এসেছেন হলিউডের ‘সিনড্রেলা গার্ল’ লিলি জেমস।

লিলি জেমসের পারিবারিক নামটা বেশ বড়। লিলি ক্লো নিনেত থমসন। আর তার জন্য অভিনয় করাটাও অস্বাভাবিক কিছু ছিল না। কারণ তার মা-বাবা তো বটেই, এমনকি তার দাদিও মঞ্চ-সিনেমার সঙ্গে যুক্ত। মা নিনেত আর দাদি হেলেন ছিলেন অভিনেত্রী। বাবা জেমস ছিলেন সংগীতশিল্পী। কাজেই লিলিও যে এ জগতেরই একজন হবেন, তা তো আর বলার অপেক্ষা রাখে না। জন্ম ১৯৮৯ সালে ইংল্যান্ডের সারেতে।

অভিনয়ে লিলির হাতেখড়ি ছোটবেলাতেই। তখন তারা থাকতেন হার্টফোর্ডশায়ারের ছোট্ট শহর ট্রিংয়ে। সেখানে ভর্তি হন আর্টস এডুকেশনাল স্কুলে। পরে লন্ডনের ‘গিল্ডহল স্কুল অব মিউজিক অ্যান্ড ড্রামা’তে যখন ভর্তি হন, ততদিনে অভিনয়কে ধ্যানজ্ঞান হিসেবে নিয়েছেন। ২০১০ সালে সেখান থেকেই অভিনয়ে স্নাতক করেন। তারপর জড়িয়ে যান মঞ্চের সঙ্গে।

আর ২০১১ সাল থেকেই মঞ্চে নিয়মিত অভিনয় করতে শুরু করেন। অভিনয় করেছেন চেখভের ‘দ্য সিগাল’-এ হয়েছেন ‘নিনা’। তারপর ক্রসিবল থিয়েটারের প্রযোজনায় ড্যানিয়েল ইভান পরিচালিত ‘ওথেলো’তে হয়েছেন ‘দেসদিমোনা’। শেকসপিয়ারের ধ্রুপদী এই নাটকে তার অভিনয় সমালোচকদের প্রশংসা আদায় করতে সক্ষম হয়।

২০১২ সালে আরো কয়েকটি মঞ্চনাটকের কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করেন তিনি। এর আগেই অবশ্য টেলিভিশনের পর্দায় হাজির হতে শুরু করে দেন লিলি। ২০১০ সালেই ‘জাস্ট উইলিয়াম’ টিভি ধারাবাহিকের চারটি পর্বে অভিনয় করেন ‘ইথেল ব্রাউন’ চরিত্রে। পরের বছর ২০১১ সালের ‘সিক্রেট ডায়েরি অব এ কল গার্ল’ সিরিজের আটটি পর্বে ‘পপি’ চরিত্রেও দেখা যায় তাকে।

তবে ২০১২ সাল হচ্ছে লিলি জেমসের ক্যারিয়ারের গুরুত্বপূর্ণ এক বছর। সে বছরেই সিনেমায় হাতেখড়ি। যদিও সেটা ছিল স্বল্পদৈর্ঘ্যের ছবি ‘কেমিস্ট্রি’।

তবে মূলধারার সিনেমায় নাম লেখান ডাকসাইটে সিনেমা প্রযোজনা সংস্থা ওয়ার্নার ব্রাদার্সের ছবি ‘র্যাথ অব দ্য টাইটানস’-এর মাধ্যমে। তাতে ‘করিনা’ চরিত্রে অভিনয় করেন লিলি। পরে একই বছরে অভিনয় করেন ‘ব্রোকেন’ এবং ‘ফাস্ট গার্লস’-এ। একই সঙ্গে টিভি-ক্যারিয়ারের জন্য সে বছরটাও বেশ গুরুত্বপূর্ণ হয়েই দেখা দেয়। ‘ডাউন্টন অ্যাবি’ সিরিজে বেশ গুরুত্বপূর্ণ এক চরিত্রই পান তিনি। ‘রোজ ম্যাকক্লেয়ার’ নামের চরিত্রে তাকে দেখা গেছে গত বছরে প্রচারিত সিরিজের সর্বশেষ সিজনেও। সিরিজটিতে অভিনয়ের জন্য ২০১৪ সালে তিনি ‘স্ক্রিন অ্যাক্টরস অ্যাওয়ার্ডস গিল্ড’ পুরস্কারও পান।

২০১৫ সালে অভিনয় করেন স্বপ্নের চরিত্র ‘সিনড্রেলা’। চরিত্রটির জন্য তিনি একটি পুরস্কারও জিতে নেন, মনোনয়ন পান টিন চয়েস অ্যাওয়ার্ডেও। একই বছর ‘সারা’ চরিত্রে অভিনয় করেন ‘বার্নট’ ছবিতে। ২০১৬ সালে ‘ওয়ার অ্যান্ড পিস’, ২০১৭ সালে ‘বাস ড্রাইভার’, ‘ডার্কেস্ট আওয়ার’। সর্বশেষ নতুন মুক্তিপ্রাপ্ত ছবি ‘ইয়েসটারডে’ও ব্যবসাসফল। সব মিলিয়ে লিলি জেমসের সামনের দিনগুলো যে বেশ সাফল্যমণ্ডিত হতে যাচ্ছে, তেমনটা বলা যেতেই পারে।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads