• মঙ্গলবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২ আশ্বিন ১৪২৫
ads

হলিউড

মাভক্ত টেইলর সুইফট

  • বিনোদন ডেস্ক
  • প্রকাশিত ২৬ আগস্ট ২০১৯

সুমিষ্ট গলা আর তার চেয়েও মিষ্টি চেহারার টেইলর সুইফট সারা বিশ্বের সংগীতপ্রেমীদের কাছে এক অতি পরিচিত নাম। সোনালি চুল, গাঢ় নীল চোখ আর পাতলা গড়নের টেইলরকে হঠাৎ দেখলে রূপকথার পাতা থেকে উঠে আসা পরীদের মতোই মনে হয়। রূপকথার আবেশ থাকে তার প্রতিটি গানের কথাজুড়ে। সবাই জানে সুইফট মাভক্ত। এবার মায়ের জন্য গান করলেন খ্যাতিমান কণ্ঠশিল্পী টেইলর সুইফট।

প্রায় ১১ বছর পর মাকে উৎসর্গ করে এই শিল্পী প্রকাশ করেছেন ‘সুন ইউ উইল গেট বেটার’ শিরোনামের একটি নতুন গান। টেইলর সুইফটের মা ক্যানসারের সঙ্গে লড়াই করে চলেছেন। জীবনঘনিষ্ঠ এই গানে টেইলর সুইফট তার মায়ের চিকিৎসার সময় কাটানো দিনগুলোর কথা তুলে ধরেছেন। অনেকদিন থেকেই এই কঠিন রোগে আক্রান্ত তার মা। ২৯ বছর বয়সী এই গায়িকার গানের প্রতিটি লাইন অনুপ্রেরণা হিসেবে কাজ করেছে ক্যানসার আক্রান্ত রোগীদের জন্য।

গানটি নিয়ে টেইলর সুইফট বলেন, ‘আমার কাছে সবথেকে কঠিন ছিল এই গানটি লেখা। আমার পরিবারের ছবি উঠে এসেছে গানটিতে। এটা এমন একটা কাজ, যেটার জন্য আমি গর্ব করি।’

তিনি আরো বলেন, ‘আমি শিখেছি কীভাবে এই কঠিন পরিস্থিতির সঙ্গে লড়াই করতে হয়। আমার বাবা-মা দুজনই এই রোগের শিকার। আর আমার মা আবারো এই যুদ্ধ শুরু করেছেন।’ এগারো বছর আগে ‘দ্য বেস্ট ডে’ রিলিজের সময় তার মাকে টেইলর এই গানটি উৎসর্গ করেছিলেন। ওটা ছিল মাকে উৎসর্গ করা টেইলরের প্রথম গান।

এদিকে সবচেয়ে বেশি সম্মানী পাওয়া তারকাদের মধ্যে শীর্ষে আছেন মার্কিন গায়িকা টেইলর সুইফট। ২০১৬ সালেও সবার উপরে ছিলেন তিনি। গত বছর তার আয় হয়েছে ১৮ কোটি ৫০ লাখ ডলার (১ হাজার ৫৫৭ কোটি ৩৬ লাখ ৭০ হাজার টাকা)। এর বেশিরভাগই এসেছে ২৯ বছর বয়সী এই তারকার ‘রেপুটেশন’ অ্যালবাম ও কনসার্ট থেকে।

টেইলরের প্রতিটি গানের কথায় এক নতুন দিন, নতুন আশা, নতুন সম্ভাবনা আর নতুন প্রতিজ্ঞার কথাই থাকে টেইলরের প্রতিটি গানের কথায়। মাত্র ২৯ বছরের জীবনেই টেইলরের আকাশছোঁয়া খ্যাতি, অঢেল অর্জন আর পৃথিবীজোড়া কোটি ভক্তের ভালোবাসা প্রাপ্তি।

টেইলর সুইফটের সপ্তম একক অ্যালবাম ‘লাভার’ শিগগির মুক্তি পাবে।  তবে অ্যালবাম প্রকাশের আগে অচিরেই তিনি নতুন একটি গান উপহার দিতে যাচ্ছেন ভক্তদের। ‘ইউ নিড টু কাম ডাউন’ শিরোনামের এই গানটি রোমান্টিক ঘরানার, যা প্রেমিক ভক্তদের মনে নতুন এক রোমান্স ও আবেগের সৃষ্টি করবে বলে জানালেন সুইফট। তিনি আরো জানান, এই গানের পরই আসবে তার নতুন অ্যালবাম। এই অ্যালবামের মাধ্যমে প্রায় তিন বছর পর অডিও বাজারে স্থান পাচ্ছে সুইফটের গান।

২০১৭ সালে বাজারে আসে সুইফটের ষষ্ঠ অ্যালবাম ‘রিপুটেশন’। অ্যালবামটি সাজানো হয়েছিল ১৫টি গান দিয়ে। এই অ্যালবামের ‘লুক হুয়াট ইউ মেক মে ডু’ গানটির ভিডিওটি বেশ সাড়া ফেলেছিল ভক্তমহলে। এরপর অ্যালবামের আরেক হিট গান ‘মি’র মিউজিক ভিডিওটিও রাতারাতি আলোচনায় এনে দেয় তাকে। এ শিল্পী ফিরে এসে সোজা কথায় চমকেই দিলেন ভক্তদের।

কান্ট্রি মিউজিক দিয়েই টেইলরের সংগীত সাধনা শুরু। ২০০৬-এর অক্টোবরে বের হয় টেইলরের প্রথম অ্যালবাম। এই অ্যালবামটি বিলবোর্ডে পঞ্চম স্থান দখল করে নেয় আর এর গানগুলো ১৫৭ সপ্তাহ ধরে চলতে থাকে। কিশোরী মনের অনুভূতি, একেবারে সাদামাটা মনের কথা সোজাসাপ্টা ভাষায় এভাবে হয়তো আর কেউ উপস্থাপন করতে পারেননি আগে। অদ্ভুত এক সারল্য আছে তার গানগুলোয়। টিনএজারদের মধ্যে সাড়া জাগাতে তাই বেগ পেতে হয়নি টেইলরের।

একজন সুকণ্ঠি গায়িকার পাশাপাশি টেইলর অসাধারণ অভিনেত্রীও। ২০০৯-এ ‘হানামনটানা’ মুভিতে টেইলর অতিথি চরিত্রে অভিনয় করেন। ২০১০ সালে ‘ভ্যালেন্টাইন’স ডে’ ছবিতে জেসিকা অ্যালবা, অ্যানি হ্যাথওয়ে, ব্র্যাডলি কুপারের পাশাপাশি টেইলর অভিনয় করেন। তার মনোমুগ্ধকর উপস্থিতি ও অভিনয় এককথায় তুলনাহীন। এছাড়া নিজের অভিনীত মিউজিক ভিডিওগুলোও টেইলরের অভিনয় প্রতিভার অনন্য নিদর্শন। গানের ভিডিওতে সেই সোনালি চুলের রাজকুমারী বা গিটার হাতে সুরের ঢেউ তোলা স্টেজ শিল্পী বা সেই গোবেচারা চশমিশ মেয়েটা, অথবা দুরন্ত অবতার সব রূপেই নিজেকে সমান সুচারুরূপে ফুটিয়ে তুলেছেন টেইলর।

টেইলরের অর্জনের মধ্যে রয়েছে ১০টি গ্র্যামি অ্যাওয়ার্ড, ২৩টি বিলবোর্ড মিউজিক অ্যাওয়ার্ড, ১১টি কান্ট্রি মিউজিক অ্যাসোসিয়েশন অ্যাওয়ার্ড, ৮টি একাডেমি অব কান্ট্রি মিউজিক অ্যাওয়ার্ড, ১৯টি আমেরিকান মিউজিক অ্যাওয়ার্ড, ১টি ব্রিট অ্যাওয়ার্ড এবং ১টি এমি অ্যাওয়ার্ডসহ অসংখ্য পুরস্কার ও পুরস্কারের মনোনয়ন। ইতিহাসে সবচেয়ে কম বয়সী গ্র্যামি বিজেতা শিল্পীও তিনি। ২০১০ সালে মাত্র ২০ বছর বয়সে তিনি এসব পুরস্কার অর্জন করেন।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads