• মঙ্গলবার, ১২ নভেম্বর ২০১৯, ২৭ কার্তিক ১৪২৬
ads

হলিউড

স্পাই চরিত্রে কিরা নাইটলি

  • বিনোদন ডেস্ক
  • প্রকাশিত ৩১ আগস্ট ২০১৯

তার পুরো নাম কিরা ক্রিস্টিনা নাইটলি। শিশুশিল্পী হিসেবে চলচ্চিত্র জীবন শুরু করলেও ‘পাইরেটস অব দ্য ক্যারিবিয়ান’ দিয়ে বিশ্ব দরবারে পরিচিত হয়ে ওঠেন কিরা। ছোট্ট একটা বিরতির পর ৩৪ বছর বয়সী কিরা নাইটলি আবার হলিউড মাতাতে আসছেন। অভিনয় করছেন নতুন ছবি ‘অফিশিয়াল সিক্রেটসে’। ইরাক যুদ্ধের ওপর ভিত্তি করে ছবিটি নির্মাণ করা হয়েছে ছবিতে একজন স্পাইয়ের চরিত্রে অভিনয় করেছেন কিরা।

নাইটলির জন্ম ইংল্যান্ডের লন্ডনের টেডিংটনে। তার মা শারম্যান ম্যাকডোনাল্ড ছিলেন একজন পুরস্কারপ্রাপ্ত নাট্যকার এবং তার বাবা উইল নাইটলি ছিলেন মঞ্চ ও টেলিভিশন নাট্যাভিনেতা। নাইটলির বাবা ইংরেজ এবং মা স্কটিশ ও সেই সঙ্গে ওয়েলস বংশোদ্ভূত। কালেব নামে নাইটলির একটি বড় ভাইও আছে। নাইটলি তার জীবনের বেশির ভাগ সময় কাটিয়েছেন লন্ডনের রিচমন্ডে। পড়াশোনা করেছেন টেডিংটন বিদ্যালয় ও এশার কলেজে।

তবে নিজ নাম নিয়ে ভীষণ আক্ষেপ ব্রিটিশ নায়িকা ও গায়িকা কিরা ক্রিস্টিনা নাইটলির। রাশিয়ান আইস স্কেটার কিয়েরা ইভানোভার নাম অনুসারে নাম রেখেছিলেন বাবা। কিন্তু নিবন্ধনের সময় মায়ের ভুলে ‘কিয়েরা’ হয়ে গেল ‘কিরা’। তাতে অবশ্য তার ক্ষতি তেমন হয়নি। নিজ নামেই পরিচিতি পেয়েছেন বেশ।

ক্যারিয়ারের শুরুতে কিরা নাইটলিকে একাধিকবার তার অভিনয়ের জন্য সমালোচিত হতে হয়েছে। নিন্দুকেরা বারবার বলেছেন, ‘নাইটলি বাজে অভিনেত্রী, দর্শক তাকে ঘৃণা করে’। এ প্রসঙ্গে কিরা বলেন, দুঃসময় মানুষের জীবনে সব সময় থাকে না। এক কথায় বলতে গেলে, নিজেকে প্রমাণ করতে আমাকে অনেক কাঠখড় পোড়াতে হয়েছে।

ঘোড়ায় চড়া থেকে শুরু করে তীর ছোড়া, বক্সিং ইত্যাদির ওপর প্রশিক্ষণ নিয়েছেন কিরা। অভিনয়ের প্রয়োজনে শেখা হলেও এগুলোকে নাইটলির বিশেষ গুণ হিসেবেই ধরা হয়। স্টান্ট দেওয়া থেকে এত কঠিন পরিশ্রমের কাজ সম্পর্কে কিরা বলেন, ফিল্মমস্টার হওয়ার চেয়ে ভালো অভিনেত্রী হওয়া বেশি জরুরি।

ব্যক্তিজীবনে নাইটলি দারুণ রোমান্টিক স্বভাবের। তাই একাধিকবার প্রেমেও পড়েছেন। তার প্রথম ও দ্বিতীয় প্রেমসঙ্গী জেমি ডোরন্যান ও রুপার্ট ফেন্ড হলেও তৃতীয়বারের মতো নিজেকে প্রেমের রজ্জুতে বাঁধেন মিউজিক সেলিব্রেটি জেমস রাইটনের সঙ্গে। ২০১২ সালে এ জুটি বাগদান সারেন এবং এক বছরের মাথায় বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করেন। এখন তিনি অভিনয়ের পাশাপাশি পুরোদস্তুর সংসারী বনে গেছেন। রাইটনকে নিজের হাতে মজার মজার রেসিপি রেঁধেও খাওয়াচ্ছেন কিরা। ‘দ্য ইমিটেশন গেম’ কিংবা ‘প্রাইড অ্যান্ড প্রিজুডিস’ তারকার এখন পরিবারের পেছনে সময় কাটছে বেশি। কারণ সন্তান অ্যাডিকে নিয়ে ভীষণ ব্যস্ত কিরা।

শুধু অভিনয় নয়, সমাজসেবায়ও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছেন নাইটলি। আর তাইতো আফগানিস্তানের নারীদের অধিকার আদায়ের জন্য ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরনকে চিঠিও লিখেছেন। এছাড়া নারীর প্রতি সহিংসতা রোধে অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালের একাধিক কর্মসূচিতেও অংশ নিয়েছেন তিনি। বেশ কয়েক বছর ধরে অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালের মুখপাত্র হিসেবে কাজও করছেন কিরা নাইটলি।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads