• শনিবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

হলিউড

ছোটপর্দায় ফিরছেন জেনিফার অ্যানিস্টন

  • বিনোদন ডেস্ক
  • প্রকাশিত ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯

হলিউডে খুব অল্প সময়ে যারা খ্যাতির শীর্ষে উঠে এসেছেন, তাদের মধ্যে একজন জেনিফার লরেন্স। মাত্র ২৪ বছর বয়সে হলিউডে যাত্রা শুরু হয় তার। এরই মধ্যে নাম, যশ, খ্যাতি, বাঘা বাঘা পুরস্কার- সবকিছুই ক্যারিয়ারের ঝুলিতে ভরে নিয়েছেন এই অভিনেত্রী। নতুন খবর হলো, দীর্ঘ ১৫ বছর পর ছোটপর্দায় অভিনয় করতে যাচ্ছেন হলিউড অভিনেত্রী জেনিফার অ্যানিস্টন। ‘দ্য মর্নিং শো’র মধ্য দিয়ে এক যুগেরও বেশি সময়ের বিরতি ভাঙতে চলেছেন এ অভিনেত্রী। তাকে শেষ টেলিভিশনে দেখা গেছে এনবিসির সিটকম ‘ফ্রেন্ড’-এ। ‘ফ্রেন্ডস’ সিরিজে তিনি রেচেল গ্রিনের ভূমিকায় অভিনয় করতেন। ফ্রেন্ডস শেষ হওয়ার পর অ্যানিস্টন অনেকগুলো চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন। কিন্তু এবার তাকে একেবারে ভিন্ন ভূমিকায় দেখা যাবে টিভিতে।

জেনিফার অ্যাপল টিভি প্লাসের অরিজিনাল সিরিজ ‘দ্য মর্নিং শো’তে শুধু অংশই নেবেন না, এটি নির্বাহী প্রযোজনাও করবেন। সব ঠিকঠাক থাকলে আগামী ১ নভেম্বর থেকে সিরিজটির শুটিং শুরু হবে। জানা গেছে, ‘দ্য মর্নিং শো’ সিরিজটির গল্প একটি সংবাদভিত্তিক অনুষ্ঠান নিয়ে, যেখানকার একজন উপস্থাপকের বিরুদ্ধে যৌন অসদাচরণের অভিযোগ রয়েছে। এই সিরিজের অ্যানিস্টনের সঙ্গে আরো থাকবেন রিজ উইদারস্পুন।

এদিকে ২০১৭-তে এ অভিনেত্রী অ্যাপলকে এমন একটি সিরিজের ধারণা দিয়েছিলেন। কিন্তু মি টু আন্দোলনের কারণে হঠাৎ করেই এ বিষয়ে ফিকশন শো যৌক্তিকতা হারায়। সিরিজের কাহিনীতে দেখা যাবে অ্যালেক্স লেভি চরিত্রটি তার সহ-উপস্থাপক মিচ কেসলারের (স্টিভ ক্যারেল) বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ আনলে কেসলারকে বরখাস্ত করা হয়।

সবচেয়ে সফল অভিনেত্রী হিসেবে গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডেও নিজের নাম লেখিয়েছেন আমেরিকান অভিনেত্রী জেনিফার লরেন্স। লরেন্সে সায়েন্স ফিকশন ফিল্ম সিরিজ ‘দ্য হাঙ্গার গেমসে’ ক্যাটনিস এভারডিন চরিত্রে অভিনয় করে যে সফলতা অর্জন করেছেন, তার ওপর ভিত্তি করেই তিনি এই রেকর্ড গড়েছেন। এবার ‘মার্ভেল কমিকসের ডার্ক ফোনিক্স’ ছবিতে দুর্দান্ত অভিনয় করে বাজিমাত করলেন। ‘ডার্ক ফোনিক্স’ ছবিটি পরিচালনা করেছেন সিমন কিনবার্গ।

জেনিফার লরেন্স অভিনীত ‘দ্য হাঙ্গার গেমস’ ও তার সিক্যুয়েল ফিল্ম ‘ক্যাচিং ফায়ার’ বিশ্বজুড়ে ৯০০ মিলিয়ন পাউন্ডেরও বেশি উপার্জন করেছে। আর তাতেই সফল অভিনেত্রীর স্বীকৃতি পেলেন জেনিফার। দ্য হাঙ্গার গেমসের পর ২০১০ সালে সিনেমায় প্রধান চরিত্রে অভিনয় শুরু করেন। তিনি ‘এক্সম্যান : ফার্স্ট ক্লাস’ ও তার সিক্যুয়েল ‘এক্সম্যান : ডেস অব ফিউচার পাস্ট অ্যান্ড আমেরিকান হাসল’সহ অনেক সফল সিনেমায় অভিনয় করেছেন। এই সিরিজের সর্বশেষ কিস্তি ‘এক্সম্যান : অ্যাপোক্যালপস’ মুক্তি পায় ২০১৬ সালে।

২৮ বছর বয়সী জেনিফার লরেন্স ২০০৬ সাল থেকে অভিনয়ের সঙ্গে সক্রিয়ভাবে যুক্ত রয়েছেন। একবার একাডেমি অ্যাওয়ার্ড, একবার বাফটা অ্যাওয়ার্ড, তিনবার গোল্ডেন গ্লোব অ্যাওয়ার্ড, দুবার স্ক্রিন অ্যাক্টরস অ্যাওয়ার্ড, চারবার ক্রিটিকস চয়েস মুভি অ্যাওয়ার্ড বিজয়ী জেনিফার লরেন্স স্কুল জীবনেই বিভিন্ন নাটকে অভিনয় করতেন।

ছোটপর্দা দিয়ে ক্যারিয়ার শুরু করে একপর্যায়ে বড়পর্দার সঙ্গে জড়িয়ে পড়েন তিনি। প্রথম তাকে বড়পর্দায় দেখা গিয়েছিল ‘গোল্ডেন পার্টি’ নামের মুভিতে। এরপর ‘দ্য পোকার হাউস’, ‘দ্য বার্নি প্লেইন উইন্টার বোন’, ‘লাইক ক্রেজি’, ‘দ্য বিভার’, ‘এক্সম্যান : ফার্স্ট ক্লাসে’র মতো ছবিগুলোতে অভিনয় করতে নিজেকে দারুণ পরিপক্ব করে তোলেন। সেই পরিপক্বতার প্রমাণ পাওয়া যায় ‘দ্য হাঙ্গার গেমস’ সিরিজের সিনেমাগুলোয়। এখানে ‘ক্যাটনিস এভারডিন’ চরিত্রে জেনিফার লরেন্সের দুর্দান্ত অভিনয় দর্শকদের এতটাই আলোড়িত করে যে, ‘হাঙ্গার গেমস’ সিরিজের মুভিগুলোতে তিনি আবশ্যকীয় তারকায় পরিণত হয়েছেন।

পাশাপাশি ‘এক্সম্যান’ সিরিজের বিভিন্ন ছবিতে তার অনবদ্য পারফরম্যান্স দর্শক-সমালোচকদের উচ্ছ্বসিত প্রশংসা অর্জন করেছে বারবার। এর বাইরে ‘অ্যামেরিকান হাসেল’, ‘সারেনা’, ‘জয়’, ‘প্যাসেঞ্জার’ প্রভৃতি সিনেমায় বিচিত্র চমক নিয়ে উপস্থিত হয়েছেন।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads