• শুক্রবার, ১৮ অক্টোবর ২০১৯, ২ কার্তিক ১৪২৬
ads
ইসাবেলা-কনরকে চান নিকোল কিডম্যান

সংগৃহীত ছবি

হলিউড

ইসাবেলা-কনরকে চান নিকোল কিডম্যান

  • বিনোদন ডেস্ক
  • প্রকাশিত ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯

অস্ট্রেলিয়ান অভিনেত্রী নিকোল ম্যারি কিডম্যান। কাগজে-কলমে নিকোল ম্যারি কিডম্যান হলেও, সারা বিশ্বে নিকোল কিডম্যান নামেই পরিচিত। ২০০১ সালের ৮ আগস্ট বিচ্ছেদ ঘটে নিকোল কিডম্যান এবং টম ক্রুজের। তবে স্বামী-স্ত্রী থাকাকালে দুই সন্তান দত্তক নিয়েছিলেন, ইসাবেলা (২৬) এবং কনর (২৪)। স্বামীর সঙ্গে বিচ্ছেদের পর দুই সন্তানের থেকেও আলাদা হয়ে গিয়েছিলেন তিনি। বাবার দেখানো পথে চার্চ অব সায়েন্টোলজিকে বেছে নিয়েছিল ছোট্ট ইসাবেলা এবং কনর।

কিন্তু সন্তানদের থেকে এই বিচ্ছেদ এখন আর ভালো লাগছে না কিডম্যানের। তাই তিনি আপ্রাণ চেষ্টা করছেন দুজনের সঙ্গে তার যে ব্যবধান তৈরি হয়েছে, তা মিটিয়ে ফেলার। দ্য সান-কে দেওয়া একটি সাক্ষাৎকারে নিকোল কিডম্যান জানিয়েছেন, ‘মাতৃত্ব একটা সফর বলতে পারেন। এতে চড়াই-উতরাই রয়েছে। সে আপনি নিজে জন্মদিন বা দত্তক নিন। সন্তান শুধুই আপনার ভালোবাসা চায়। ওরা ওদের পথ বেছে নিয়েছে। ওরা সায়েন্টোলজিস্টই হতে চায়। তাই মা-বাবা হিসেবে আমাদেরও উচিত ওদের এই মতকে গুরুত্ব দেওয়া এবং স্বার্থহীন ভালোবাসা দেওয়া।’

শোনা গিয়েছিল সন্তানদের সঙ্গে সম্পর্ক এতটাই তিক্ত হয়ে উঠেছিল নিকোলের, ছেলে কনরের বিয়েতেও তাকে আমন্ত্রণ জানানো হয়নি। এমনকি মেয়ে ইসাবেলার সঙ্গেও কোনো যোগাযোগ নেই তার। বিয়ের পর ইসাবেলা দক্ষিণ লন্ডনের ক্রয়ডনে থাকেন।

গত ২০ জুলাই ৫২ বছরে পদার্পণ করেন হলিউড অভিনেত্রী নিকোল কিডম্যান। পঞ্চাশ পেরিয়েও তিনি অনিন্দ্য সুন্দরী। বয়স নিয়ে কোনো রাখঢাক নেই এই অভিনেত্রীর। নিকোল বলেন, ‘একটা সময় আসে যখন বয়স খুব বড় কোনো বিষয় বলে মনে হয় না আর। আমি অত্যন্ত আনন্দিত, আমার বয়স ৫২। এ নিয়ে আমার কোনো মাথাব্যথা নেই!’ জনপ্রিয় এ অভিনেত্রী অভিনয়ের পাশাপাশি গানও গেয়ে থাকেন। রয়েছে একটি প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান। সে সুবাদে তিনি বেশ কয়েকটি চলচ্চিত্র প্রযোজনা করেও সুনাম কুড়িয়েছেন।

১৯৬৭ সালে জন্মগ্রহণ করেন হলিউডের এ দাপুটে অভিনেত্রী। তার বাবা ছিলেন একজন মনোবিদ। মূলত বাবার অনুপ্রেরণায় চলচ্চিত্রাঙ্গনে এসেছেন কিডম্যান। ১৯৮৯ সালের ‘ডেড কাম’ নামের একটি থ্রিলার চলচ্চিত্রে অভিনয় করে প্রথমবারের মতো হলিউডের দর্শকের কাছে জনপ্রিয়তা পান। পরে ‘ব্যাংকক হিল্টন’ নামের একটি ধারাবাহিকে কাজ করে ওঠেন জনপ্রিয়তার তুঙ্গে। এরপর একে একে কাজ করেছেন ‘ডেজ অব থান্ডার’, ‘ফার আন্ডার অ্যাওয়ে’, ‘সুপারহিরো’, ‘ব্যাটম্যান ফরেতার’ ও ‘দ্য আওয়ার্স’র মতো ব্যবসাসফল সব ছবিতে। অভিনয় দক্ষতার জন্য পেয়েছেন গোল্ডেন গ্লোব পুরস্কার, একাডেমি পুরস্কার, বাফটা পুরস্কার, বার্লিন আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব রৌপ্য পুরস্কারসহ অসংখ্য সম্মাননা।

এ ছাড়া কিডম্যান ইউনিসেফের শুভেচ্ছাদূত হিসেবে কাজ করছেন। হলিউডের সর্বোচ্চ পারিশ্রমিকপ্রাপ্ত অভিনেত্রীদের তালিকায় তার নাম সবার ওপরেই রয়েছে। বর্তমানে অস্ট্রেলিয়ার একটি বেসরকারি টেলিভিশনে নিয়মিত অনুষ্ঠান উপস্থাপনা ও প্রযোজনা করছেন এ অভিনেত্রী।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads