• মঙ্গলবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৮, ২৯ কার্তিক ১৪২৫
ads
হারমানপ্রীতের স্নাতক ডিগ্রি ভুয়া !

ভুয়া স্নাতক ডিগ্রি পেশের অভিযোগ উঠেছে হারমানপ্রীতের বিরুদ্ধে

ছবি : ইন্টারনেট

ভারত

হারমানপ্রীতের স্নাতক ডিগ্রি ভুয়া !

চাকরিতে হতে পারে ডিমোশন

  • ডেস্ক রিপোর্ট
  • প্রকাশিত ১০ জুলাই ২০১৮

ভুয়া স্নাতক ডিগ্রি পেশের অভিযোগ উঠেছে টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে ভারতের অধিনায়ক ও অর্জুন পুরস্কার প্রাপ্ত নারী ক্রিকেটার হারমানপ্রীত কউরের বিরুদ্ধে। আর অভিযোগের সত্যতার ভিত্তিতে ডিএসপির পদ থেকে তাকে নামিয়ে আনা হতে পারে কনস্টেবলের পদে।

সম্প্রতি ভারতীয় পুলিশ বিভাগ হারমানপ্রীতের স্নাতক ডিগ্রি পরীক্ষার জন্য পাঠিয়েছিল মিরাট বিশ্ববিদ্যালয়ে। সেখানেই ধরা পড়ে যে তার স্নাতকের ডিগ্রি ভুয়া। তবে হারমানপ্রীত সরকারকে বলেছে যে ডিগ্রি যে সঠিক নয়, তা অজানা ছিল তারও। এই ক্রিকেটার জানিয়েছেন, তার কোচ চৌধুরী চরণ সিং তাকে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি করিয়েছিলেন। তিনি বলেছিলেন, এখানে পরীক্ষা নিয়ে কড়াকড়ি নেই। ডিগ্রি দেওয়া হলেও তা যে ভুয়া, এমন কোনও ইঙ্গিত তাকে দেওয়া হয়নি।

যদিও পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী অমরিন্দর সিং হারমানের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নিতে চাইছেন না। তবে কনস্টেবলের পদে তাকে নিয়োগের সিদ্ধান্ত প্রায় চূড়ান্ত করে ফেলেছেন বলে পাঞ্জাব সরকারের তরফে শোনা গিয়েছে। এক্ষেত্রে হারমানপ্রীতকে বলা হবে, শিক্ষাগত যোগ্যতা পূর্ণ করতে পারলেই কেবল তাকে ফের ডিএসপি করা হবে। পুলিশ বিভাগ জানিয়েছে, ডিএসপি হিসেবে যিনি কাজ করবেন, তাকে ন্যূনতম স্নাতক হতেই হবে। কারও ক্ষেত্রেই নিয়মে ছাড় দেওয়া ঠিক হবে না।

এই ঘটনা পুলিশ বিভাগকেও অস্বস্তিতে ফেলছে। নারী বিশ্বকাপে তার পারফরম্যান্স দেখে ২০১৭ সালের জুলাইয়ে তাকে পুলিশে কাজ করার প্রস্তাব দেওয়া হয়। এর পিছনে ছিলেন মুখ্যমন্ত্রী নিজেই। সেই সময় ওয়েস্টার্ন রেলওয়েতে কাজ করতেন তিনি। যদিও রেল ছাড়তে চায়নি তাকে। রেলের সাথে পাঁচ বছরের চুক্তি ছিল হারমানের। তখন মুখ্যমন্ত্রীই নিজের উদ্যোগে তাকে ছাড়িয়ে আনেন। কয়েক মাস আগে ফেব্রুয়ারিতে পুলিশের চাকরিতে নিযুক্ত হন তিনি।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads