• মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০১৯, ৪ আষাঢ় ১৪২৫
ads
মোদির শপথে যাচ্ছেন না মমতা

ছবি : সংগৃহীত

ভারত

মোদির শপথে যাচ্ছেন না মমতা

  • আন্তর্জাতিক ডেস্ক
  • প্রকাশিত ৩০ মে ২০১৯

নরেন্দ্র মোদির দ্বিতীয় মেয়াদে শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে যোগ দিতে দিল্লি যাচ্ছেন না পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

গত মঙ্গলবার বিকেলে নবান্ন থেকে বেরোনোর সময় মমতা সাংবাদিকদের বলেন, বৃহস্পতিবার রাষ্ট্রপতি ভবনে নরেন্দ্র মোদির শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকবেন তিনি। কারণ, প্রধানমন্ত্রীর শপথ গ্রহণ হলো একটি সাংবিধানিক অনুষ্ঠান। যুক্তরাষ্ট্রীয় ব্যবস্থায় সৌজন্যের স্বার্থে ওই অনুষ্ঠানে তার যাওয়া উচিত বলে তিনি মনে করেন। তাই তিনি যাবেন।

কিন্তু এ ঘোষণার ২৪ ঘণ্টা না যেতেই বদলে গেল মমতার গলার সুর। গতকাল বুধবার সকালে জানাজানি হয় যে, বাংলায় রাজনৈতিক হিংসার ঘটনায় আক্রান্ত বিজেপি পরিবারের ৫৪ জনও মোদির শপথ অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকবেন। এ খবর পাওয়া মাত্রই সিদ্ধান্ত বদলে ফেলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। টুইট করে তিনি স্পষ্ট জানিয়ে দেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী। টুইটে তিনি লেখেন, ‘শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠান গণতন্ত্রের মহতী উদযাপন। রাজনীতির স্বার্থে কেউ যেন তার মর্যাদা খাটো না করে।’

নিজের টুইটের সঙ্গে তার একটি বিবৃতির ছবিও জুড়ে দেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী। সেখানে মমতা লেখেন, ‘দেশের নতুন প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ। নরেন্দ্র মোদিজি আমার ইচ্ছা ছিল ‘সাংবিধানিক আমন্ত্রণকে’ গ্রহণ করে শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকার। কিন্তু আমি কিছু মিডিয়া রিপোর্ট পাচ্ছি যে এই শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে বাংলা থেকে ৫৪টি পরিবারকে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে, যারা নাকি বাংলায় রাজনৈতিক সন্ত্রাসের শিকার হয়েছে। আমি জোর গলায় বলছি যে, বাংলায় কোনো রাজনৈতিক খুন হয়নি। যারা মারা গেছেন, তারা হয় কোনো পারিবারিক অশান্তিতে অথবা অন্য কোনো কারণে মারা গিয়ে থাকতে পারেন। এ রাজ্যে কোনো রাজনৈতিক সন্ত্রাস হয় না।’

মমতা ওই বিবৃতিতে আরো লেখেন, শপথ গ্রহণের মতো গণতন্ত্রের মহৎ এই অনুষ্ঠানকে যেভাবে রাজনীতি করা হচ্ছে তা ঠিক নয়। সুতরাং কালকে অনুষ্ঠানে না যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য হচ্ছি।

দিলীপ ঘোষ এ প্রসঙ্গে মন্তব্য করেছেন, ‘সত্যের মুখোমুখি হতে ভয় পাচ্ছেন মমতা, তাই আসবেন না শপথে। বাংলায় গত এক বছরে ১০০ জনের বেশি বিজেপি কর্মী তৃণমূলের সন্ত্রাসে মারা গেয়েছে। তাকে এই সত্যটা বাংলার মানুষের কাছে স্বীকার করতেই হবে। তা না হলে তিনি পার পাবেন না। আজ শপথের অনুষ্ঠানকে এড়িয়ে যাবেন কিন্তু আগামী তাকে বাঁচাবে না। সত্য কাউকে ক্ষমা করে না। এটা মনে রাখতে হবে বাংলার অহঙ্কারী মুখ্যমন্ত্রীকে।’

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads