• শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২১ কার্তিক ১৪২৪
ads
শপথ নিলেন মোদি

সংগৃহীত ছবি

ভারত

শপথ নিলেন মোদি

  • আন্তর্জাতিক ডেস্ক
  • প্রকাশিত ৩০ মে ২০১৯

টানা দ্বিতীয় মেয়াদে ভারতের ১৫তম প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিয়েছেন নরেন্দ্র মোদি। আজ বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় রাজধানী দিল্লিতে রাষ্ট্রপতি ভবনে নরেন্দ্র দামোদরদাস মোদিকে শপথ পড়ান রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ। তারা সবাই যথাসময়ে সেখানে পৌঁছান। অতিথিদের সঙ্গে উপস্থিত হন সোনিয়া ও রাহুল গান্ধীও।

এদিন সন্ধ্যায় শপথ নিতে রাষ্ট্রপতি ভবনের ডায়াসে ওঠার জন্য রওনা দিলে দর্শক সারিতে ‘মোদি, মোদি’ স্লোগান ওঠে। বিজেপি প্রেসিডেন্ট অমিত শাহ এবারের মন্ত্রিসভায় বড় পোস্ট পাচ্ছেন। শীর্ষ চার মন্ত্রণালয়ের যেকোনো একটির দায়িত্ব সামলাতে গতকালের অনুষ্ঠানে অমিত শাহও শপথ নিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী হিসেবে মোদির শপথের পর মন্ত্রিসভার সদস্যদের একে একে শপথ পড়ান রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ।

এবার পশ্চিমবঙ্গ থেকে মন্ত্রিসভায় অন্তত তিনজনের আসন নিশ্চিত হয়েছে। রাষ্ট্রপতি ভবনে বাংলায় শপথ নিচ্ছেন পশ্চিমবঙ্গের মন্ত্রীরা। বিজেপি শীর্ষ পর্যায় থেকেই এ নির্দেশ ছিল। ফলে শপথ গ্রহণে রয়েছে বাংলার ছাপ।

৮ হাজারের বেশি অতিথি উপস্থিত ছিলেন রাষ্ট্রপতি ভবনের ইতিহাসে সবচেয়ে বড় আর জমকালো এই অনুষ্ঠানে। উপস্থিত আমন্ত্রিত ছিলেন বাংলাদেশ, মিয়ানমার, শ্রীলঙ্কা, থাইল্যান্ডসহ বিমসটেকের সব দেশের প্রতিনিধিরা। তবে আমন্ত্রণ না জানানোয় ছিলেন না পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন না মোদির কট্টর সমালোচক পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়। তবে শপথ অনুষ্ঠানে এসেছিলেন প্রধান বিরোধী দল কংগ্রেসের প্রতিনিধিরা। এদিনের অতিথির তালিকায় ছিলেন ভারতের সব রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী, সাবেক রাষ্ট্রপতি, আরএসএস নেতা, শিক্ষাবিদ, চিত্রতারকা, শিক্ষা ও ক্রীড়া জগতের বিভিন্ন ব্যক্তিত্ব।

এর আগে বৃহস্পতিবার ভোরে দিল্লির রাজঘাটে মহাত্মা গান্ধী মেমোরিয়াল পরিদর্শনের মাধ্যমে শপথের দিনটি শুরু করেন মোদি, জানিয়েছে এনডিটিভি। স্থানীয় সময় সকাল ৭টায় গান্ধী মেমোরিয়ালে উপস্থিত হন ভারতের প্রধানমন্ত্রী। সেখানে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করে কিছু সময় অবস্থান করেন তিনি।

এরপর ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিজেপি নেতা অটল বিহারি বাজপেয়ির সমাধিতে যান তিনি। গত বছরের ১৬ আগস্ট বাজপেয়ির মৃত্যুর পর ডিসেম্বরে তার পদ্ম ফুল আকৃতির সমাধিটি নির্মাণ করা হয়। এখানে শ্রদ্ধা জ্ঞাপনের সময় মোদির সঙ্গে বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ্, বিজেপি নেতা রবি শঙ্কর প্রাসাদ, মানেকা গান্ধী, স্মৃতি ইরানিসহ বিজেপি ও এনডিএ জোটের বেশ কয়েকজন নেতা উপস্থিত ছিলেন।

এরপর মোদি দিল্লির ইন্ডিয়া গেটের কাছে ন্যাশনাল ওয়ার মেমোরিয়ালে যান। এখানে বিভিন্ন যুদ্ধে ভারতের নিহত সৈন্যদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন ও স্যালুট জানান তিনি।

ভারতের রাজধানীর ওই তিনটি স্থানে মোদির ভ্রমণের সময় কড়া নিরাপত্তাব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছিল, বিভিন্ন স্থাপনা ও ভবনের ওপরে স্নাইপার মোতায়েন করা হয়েছিল বলে পুলিশের এক ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার বরাতে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা পিটিআই।

সাত দফায় অনুষ্ঠিত ভারতের জাতীয় নির্বাচনের ফলাফল ২৩ মে প্রকাশ করা হয়। বিপুল জয় নিয়ে ফের ক্ষমতায় আসে বিজেপি। এর ঠিক এক সপ্তাহ পর দ্বিতীয় মেয়াদের জন্য শপথ নিলেন মোদি।

পিটিআই জানায়, শপথ অনুষ্ঠান উপলক্ষে কঠোর নিরাপত্তাব্যবস্থা গ্রহণ করে অনুষ্ঠানস্থল ও সংশ্লিষ্ট এলাকাগুলোতে দিল্লি পুলিশ ও আধা সামরিক বাহিনীর ১০ হাজার নিরাপত্তা সদস্য মোতায়েন করা হয়।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads