• বুধবার, ২৯ জানুয়ারি ২০২০, ১৫ মাঘ ১৪২৬
ভারতেও পেঁয়াজের লাগাম টানা যাচ্ছে না

ফাইল ছবি

ভারত

ভারতেও পেঁয়াজের লাগাম টানা যাচ্ছে না

  • ডেস্ক রিপোর্ট
  • প্রকাশিত ০৭ ডিসেম্বর ২০১৯

ভারতের পেঁয়াজ বাজারেও লাগাম টানা যাচ্ছে না। দেশটির পশ্চিমবঙ্গের মুর্শিদাবাদ ও কলকাতার বাজারে পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ১৫০ রুপি কেজিতে। এছাড়া দেশটির রাজধানী দিল্লিতেও পেঁয়াজের দাম ইতোমধ্যেই সেঞ্চুরি করে ফেলেছে। পাশাপাশি মূল্যবৃদ্ধি নিয়ন্ত্রণে গঠিত টাস্কফোর্স জানিয়েছে, চলতি মাসে এই সংকট শেষ হওয়ার সম্ভাবনা খুবই কম। আনন্দবাজারের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

পেঁয়াজ নিয়ে ভারতের সংসদে গত বুধবার সরকারের সমালোচনা করে বিরোধী দলগুলো। তাদের প্রশ্নের জবাবে দেশটির অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন জানান, মহারাষ্ট্রের মতো কয়েক জায়গায় বন্যার ফলে পেঁয়াজের উৎপাদন অনেক কম হয়েছে। দাম নিয়ন্ত্রণে সরকার কম দামে পেঁয়াজ সরবরাহ করছে। রপ্তানিও সম্পূর্ণ বন্ধ রাখা হয়েছে। পাইকারি ব্যবসায়ী ও আড়তদারের জন্য মজুতের সীমা বেধে দেওয়া হয়েছে। তবে দাম কবে নাগালের মধ্যে আসবে তা নিয়ে কোনো প্রতিশ্রুতি দিতে পারেননি তিনি।

বিরোধী দল থেকে তাকে প্রশ্ন করা হয়, আপনি কত দামে পেঁয়াজ কিনছেন? নির্মলা এর জবাবে বলেন, আমি এমন পরিবার থেকে এসেছি, যেখানে পেঁয়াজ-রসুন ঢোকে না!

পেঁয়াজের অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে বিক্ষোভ করেছেন কংগ্রেসের সংসদ সদস্যরা (এমপি)। গত বৃহস্পতিবার সংসদ চত্বরে ঝুড়িতে পেঁয়াজ নিয়ে রাস্তায় বসে এমন বিক্ষোভ করেন তারা। এ সময় কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে বিভিন্ন স্লোগান দেন সাংসদরা। মুদ্রাস্ফীতিতে পেঁয়াজের মার, নীরব কেন মোদি সরকার; কী রকম এই মোদি রাজ, ব্যয়বহুল রেশন, দামি পেঁয়াজ লেখা ও পেঁয়াজের ছবিসংবলিত পোস্টার নিয়ে বিক্ষোভ করেন তারা।  পার্স টুডের প্রতিবেদনে এ কথা বলা হয়েছে।

ওই প্রতিবেদনের বলা হয়, সাড়ে তিন মাস পর হাজত থেকে বেরিয়ে আসার এক দিন পরই ভারতের সাবেক অর্থমন্ত্রী পি চিদাম্বরমও এই বিক্ষোভে অংশ নেন। তিনি বলেন, এই সরকার আমার কণ্ঠ রুখতে পারবে না।

তৃণমূল কংগ্রেস নেতা সুখেন্দু শেখর রায় প্রতিবাদ করে বলেন, ‘মহারাষ্ট্রের পেঁয়াজ চাষিরা যেখানে ৮ থেকে ১০ টাকা কেজি দরে পেঁয়াজ বিক্রি করতে বাধ্য হচ্ছে, সেখানে সাড়া দেশে এ রকম ১০০ টাকা দেড় শ টাকা কেজি পেঁয়াজের দাম! আমার কাছে খবর আছে এবং খবরের কাগজেও বেরিয়েছে যে মালদহ সীমান্ত দিয়ে বাংলাদেশে প্রচুর পেঁয়াজ যাচ্ছে। তাদের নাকি রপ্তানির সমস্ত কাগজপত্র থাকায় পুলিশ কিছু করতেও পারছে না।’

তিনি বলেন, এই সরকার চোরাকারবারিদের প্রশ্রয় দিচ্ছে, মজুতদারদের প্রশ্রয় দিচ্ছে বলে আজকে দেশে পেঁয়াজের এই অবস্থা। এর বিরুদ্ধে সব রাজনৈতিক দলের ঐক্যবদ্ধভাবে প্রতিবাদ করা প্রয়োজন।

পেঁয়াজের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে গত মঙ্গলবার পেঁয়াজের মালা পড়ে সংসদ চত্বরে বিক্ষোভ করেন আম আদমি পার্টির (এএপি) নেতারা।

সম্প্রতি দেশটির কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা বিদেশ থেকে ১ লাখ ২০ হাজার টন পেঁয়াজ আমদানির অনুমোদন দিয়েছে। মিসর থেকে ৬ হাজার ৯০ টন পেঁয়াজ চলতি মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহে দিল্লিতে পৌঁছার কথা রয়েছে। সম্প্রতি তুরস্কের কাছ থেকেও ১১ হাজার টন পেঁয়াজ আমদানির সিদ্ধান্ত নিয়েছে মোদি সরকার।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads