• মঙ্গলবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৮, ২৯ কার্তিক ১৪২৫
ads
পকেটে রাখার উপযোগী সারফেস ডিভাইস নিয়ে কাজ করছে মাইক্রোসফট

পকেটে রাখা যাবে, এমন একটি সারফেস ডিভাইস নিয়ে প্রায় দুই বছর ধরে কাজ করছে মাইক্রোসফট

ছবি সংরক্ষিত

তথ্যপ্রযুক্তি

পকেটে রাখার উপযোগী সারফেস ডিভাইস নিয়ে কাজ করছে মাইক্রোসফট

  • ডেস্ক রিপোর্ট
  • প্রকাশিত ০১ জুলাই ২০১৮

পকেটে রাখা যাবে, এমন একটি সারফেস ডিভাইস নিয়ে প্রায় দুই বছর ধরে কাজ করছে মাইক্রোসফট। এর আগে পেটেন্ট সংক্রান্ত প্রতিবেদনে ‘অ্যান্ড্রোমেডা’ সাঙ্কেতিক নামের এ ডিভাইসটির খবর পাওয়া গেছে। এছাড়া অপারেটিং সিস্টেম সংক্রান্ত রেফারেন্স প্রতিবেদনেও একাধিকবার ডিভাইসটির কথা উল্লেখ করা হয়েছে। এসব প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে, ডিভাইসটিতে থাকতে পারে দুটি ডিসপ্লে। এছাড়া সম্প্রতি এ প্রকল্পের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট কর্মীদের একটি ই-মেইল থেকেও বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া গেছে বলে জানিয়েছে প্রযুক্তিবিষয়ক ওয়েবসাইট দ্য ভার্জ।

বর্তমানে বেশ গোপনীয়তার সঙ্গে ডিভাইসটির উন্নয়নে কাজ করছে মাইক্রোসফট। এতে থাকতে পারে দুটি ডিসপ্লে, যা ভাঁজ করা অবস্থায় থাকবে। তবে ভাঁজ খুললেই একটি অভিন্ন ডিসপ্লে হিসেবে কাজ করবে এটি।

এর পাশাপাশি ডিভাইসটির জন্য একটি স্টাইলাস নিয়েও কাজ করছে মাইক্রোসফট। এ ডিভাইসের প্রোটোটাইপে থাকছে ডিভাইসটির জন্য তৈরি করা এ স্টাইলাস এবং নোটপ্যাড ক্যাটাগরির অ্যাপ যেখানে স্টাইলাস ব্যবহারের মাধ্যমে প্রয়োজনীয় তথ্য টুকে রাখা যাবে। প্রোটোটাইপ ডিভাইসে এআরএম প্রসেসর ব্যবহার করছে মাইক্রোসফট। তবে চূড়ান্তভাবে ডিভাইসটি বাজারে আনা হলে তাতে ইন্টেল প্রসেসর থাকবে নাকি কোয়ালকম প্রসেসর ব্যবহার করা হবে, সে ব্যাপারে এখনো কিছু জানা যায়নি।

প্রযুক্তিপণ্য নির্মাতা প্রতিষ্ঠানগুলো বিভিন্ন সময় বিভিন্ন পণ্যের প্রোটোটাইপ নিয়ে কাজ করে। তবে অনেক ক্ষেত্রেই এসব পণ্য আলোর মুখ দেখে না। পকেট সারফেস ডিভাইসের ক্ষেত্রে মাইক্রোসফট একই কাজ করতে পারে বলেও আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন এ প্রকল্পের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট কর্মীরা। এর আগে মাইক্রোসফট সারফেস মিনি নামের একটি ডিভাইস তৈরি করেছিল। তবে আনুষ্ঠানিকভাবে বাজারে আসার কয়েক সপ্তাহ আগে ডিভাইসটি বাজারে ছাড়ার পরিকল্পনা বাতিল করে প্রতিষ্ঠানটি।

ছয় বছর আগে প্রথমবারের মতো সারফেস ডিভাইস বাজারে আনে মাইক্রোসফট। সে সময় সারফেস আরটি এবং সারফেস প্রো নামের দুটি ডিভাইস বাজারে ছাড়া হয়েছিল। এর মধ্যে সারফেস প্রো বাজারে ব্যাপক সাড়া ফেলতে সক্ষম হয়। ডিভাইসটি ল্যাপটপ কিংবা ট্যাব দু’ভাবেই ব্যবহারের সুযোগ থাকায় ব্যবহারকারীদের মাঝে বেশ জনপ্রিয় হয়েছিল।

আরও পড়ুন



বাংলাদেশের খবর
  • ads
  • ads